করোনা রুখতে মহারাষ্ট্রের পর এবার কর্ণাটকেও জারি নাইট কারফিউ

করোনা রুখতে মহারাষ্ট্রের পর এবার কর্ণাটকেও জারি নাইট কারফিউ

রাত ১০টা থেকে সকাল ৬টা পর্যন্ত নাইট কারফিউ জারির সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

রাত ১০টা থেকে সকাল ৬টা পর্যন্ত নাইট কারফিউ জারির সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

  • Share this:

    #বেঙ্গালুরু: ব্রিটেনে করোনাভাইরাসের নতুন স্ট্রেন মারাত্মক আকারে ছড়িয়ে পড়ায় নতুন করে উদ্বেগের পরিপ্রেক্ষিতে নাইট কারফিউ জারি করেছে মহারাষ্ট্র সরকার। এবার সেই পথেই এগোলো কর্নাটক সরকার। কর্ণাটকের মুখ্যমন্ত্রী বিএস ইয়েদুরাপ্পা জানান, করোনাভাইরাসের নতুন স্ট্রেনের পরিপ্রেক্ষিতে, আজ বুধবার থেকে ২ জানুয়ারি রাত ১০টা থেকে সকাল ৬টা পর্যন্ত নাইট কারফিউ জারির সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। তিনি সবাইকে সহযোগিতা করার জন্যও অনুরোধ করেন।

    ইতিমধ্যেই মঙ্গলবার থেকে নাইট কারফিউ কার্যকর করা হয়েছে মহারাষ্ট্রে। মহারাষ্ট্র সরকার জানিয়েছে যে, সেই রাজ্যের মিউনিসিপ্যাল কর্পোরেশনের আওতাভুক্ত প্রতিটি জায়গায় নাইট কারফিউ জারি থাকবে৷ মঙ্গলবার অর্থাৎ ২২ ডিসেম্বর থেকে ৫ জানুয়ারি পর্যন্ত চলবে এই কারফিউ৷ রাত ১১টা থেকে ভোর ৫টা পর্যন্ত সময় ধার্য করা হয়েছে৷

    যদিও ঠাকরে প্রথমে ভার্চুয়াল সাংবাদিক সম্মেলনে জানান যে, মহারাষ্ট্রে নাইট কারফিউ হবে না৷ আগামী ছ'মাস তাঁর রাজ্যের বাসিন্দাদের মাস্ক ব্যবহার করার পাশপাশি সামাজিক দূরত্ব মেনে চলার নির্দেশ দিয়েছিলেন তিনি৷ কিন্তু ২৪ ঘণ্টার মধ্যে নিজের সিদ্ধান্ত বদল করলেন ঠাকরে৷

    নাইট কারফিউয়ের পাশাপাশি মহারাষ্ট্র সরকার সিদ্ধান্ত নিয়েছে যে, ইউরোপ বা মধ্য প্রাচ্যের দেশগুলি থেকে যাঁরা আগামিকাল মহারাষ্ট্রে পা রাখবেন, তাঁদের ১৪ দিনের বাধ্যতামূলক সরকারি কোয়ারেন্টাইনে যেতে হবে৷ মহারাষ্ট্রে আসার পঞ্চম বা সপ্তম দিনে কোভিড-১৯ আরটি-পিসিআর পরীক্ষা করাতে হবে৷ যাঁরা ইউরোপ বা মধ্য প্রাচ্যের দেশগুলি বাদে অন্য দেশ থেকে আসবেন, তাঁদের ১৪ দিন ঘরেই নিভৃতবাসে থাকতে হবে৷

    প্রসঙ্গত, নয়া রূপের করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ ঠেকাতে ব্রিটেন থেকে ভারতে আসার সমস্ত বিমান বাতিল করল কেন্দ্র৷ অসামরিক পরিবহণ মন্ত্রী হরদীপ সিং পুরী জানিয়েছেন, ২২ ডিসেম্বর থেকে আপাতত ৩১ ডিসেম্বর পর্যন্ত ব্রিটেন থেকে ভারতে আসার সমস্ত বিমান বাতিল করা হল ৷ সংক্রমণ রুখতেই এই সিদ্ধান্ত কেন্দ্র আগেই জানিয়েছিল এই নয়া রূপের করোনা ভাইরাস নিয়ে আতঙ্কিত হওয়ার কিছু নেই ৷ তবুও নতুন করে কোনও ঝুঁকি নিতে নারাজ ভারত সরকার ৷

    Published by:Simli Dasgupta
    First published: