Uttarakhand Corona : ১০ দিনে করোনায় আক্রান্ত ১০০০ শিশু! দুশ্চিন্তায় উত্তরাখণ্ড প্রশাসন

আক্রান্ত শিশুরাও, চিন্তা বাড়ছে প্রতীকী ছবি

তৃতীয় ধাক্কায় এবার করোনার কবলে পড়তে পারে দেশের শিশুরাও ( Coronavirus affeted Children)। এমনটাই অনুমান করছেন দেশের চিকিৎসক মহল ৷ সম্প্রতি হৃদরোগ বিশেষজ্ঞ দেবী শেঠিও এক বেসরকারি সংবাদমাধ্যমে এমন আশঙ্কার কথা বলেছেন ৷

  • Share this:

    #দেরাদুন : করোনার তৃতীয় ঢেউ (Coronavirus third wave) এর আশঙ্কায় প্রমাদ গুনছে গোটা দেশ। জানা যাচ্ছে তৃতীয় ধাক্কায় এবার করোনার কবলে পড়তে পারে দেশের শিশুরাও ( Coronavirus affeted Children)। এমনটাই অনুমান করছেন দেশের চিকিৎসক মহল ৷ সম্প্রতি হৃদরোগ বিশেষজ্ঞ দেবী শেঠিও এক বেসরকারি সংবাদমাধ্যমে এমন আশঙ্কার কথা বলেছেন ৷ তিনি বলেছিলেন, শিশুরা যদি করোনায় আক্রান্ত হয়, সেক্ষেত্রে তাঁদের বাবা-মা যাতে রোগীর সঙ্গে থাকতে পারে সেটি দেখা অত্যন্ত জরুরি ৷ সেক্ষেত্রে বাবা-মায়েদের টিকা নেওয়া খুবই দরকার ৷ যাতে তাঁরা করোনা আক্রান্ত শিশুর সঙ্গে থাকতে পারেন ৷

    শিশুদের করোনায় আক্রান্ত হওয়ার সংখ্যা কিন্তু বাড়তে শুরু করেছে উত্তরাখণ্ডে (Uttarakhand) ৷ রিপোর্ট বলছে, শেষ ১০ দিনে ৯ বছরের কম বয়সি ১০০০ জন শিশু করোনায় আক্রান্ত হয়েছে ৷ কয়েকজন হাসপাতালেও ভর্তি৷ উত্তরাখণ্ডের স্বাস্থ্য দফতর সূত্রে খবর, বিগত এক মাসে মাত্র ২১৩১ জন শিশু করোনায় আক্রান্ত হয়েছে ৷ এর মধ্যে ১ এপ্রিল থেকে ১৫ এপ্রিলের মধ্যে ২৬৪ জন শিশু করোনায় আক্রান্ত হয়েছে ৷ কিন্তু তারপর থেকেই লাফিয়ে লাফিয়ে বেড়েছে শিশুদের মধ্যে সংক্রমণ ৷ ১৬ এপ্রিল থেকে ৩০ এপ্রিলের মধ্যে ১০৫৩ জন শিশু করোনায় আক্রান্ত হয়েছে ৷ আর ১ মে থেকে ১৪ মে-র মধ্যে সংখ্যাটা বেড়ে হয়েছে ১৬১৮ ৷ উত্তরাখণ্ডে শিশুদের করোনায় আক্রান্ত হওয়ার এই পরিসংখ্যান স্বাভাবিকভাবেই চিন্তা বাড়াচ্ছে প্রশাসনের ৷

    এদিকে দেশে করোনা পরিস্থিতি ভয়ঙ্কর হলেও কমছে দেশের দৈনিক করোনা সংক্রমণ। বেশ কিছু দিন ধরে দেশের দৈনিক আক্রান্তের সংখ্যা নিম্নমুখী। যা খানিকটা হলেও আশার আলো দেখাচ্ছে গবেষকদের। ২১ এপ্রিলের পর এই প্রথম দৈনিক নতুন সংক্রমণের সংখ্যা নামল ৩ লক্ষের নিচে। গত ২৪ ঘণ্টায় গোটা দেশে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ২ লক্ষ ৮১ হাজার ৮৩৭ জন। রবিবারের তুলনায় অনেকটাই কমেছে আক্রান্তের সংখ্যা। রবিবার ৩ লক্ষ ১১ হাজার ১৭০ জন আক্রান্ত হয়েছিলেন। এই বৃদ্ধির জেরে করোনায় আক্রান্তের মোট সংখ্যা গিয়ে দাঁড়িয়েছে ২ কোটি ৪৯ লক্ষ ৬৫ হাজার ৭৯ জন। বিশ্বে করোনা আক্রান্তের সংখ্যায় দ্বিতীয় স্থানে ভারত। প্রথম স্থানে রয়েছে আমেরিকা।

    গত বছরের তুলনায় এ বছর আরও ভয়ঙ্কর রুপ নিয়েছে করোনা। করোনার দ্বিতীয় ঢেউ দেশের দৈনিক মৃত্যুর সংখ্যাকেও বাড়িয়ে দিয়েছে। যা ভারতে উদ্বেগ বাড়াচ্ছে। ২৪ ঘণ্টায় করোনায় আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু হয়েছে ৪,০৯৫ জনের। দেশে এখনও পর্যন্ত করোনায় মৃত্যু হয়েছে ২ লক্ষ ৭৪ হাজার ৪১৪ জনের। তবে স্বস্তির খবর, দেশে কোভিড আক্রান্তদের মধ্যে সুস্থ হয়েছেন ২ কোটি ১১ লক্ষ ৬৭ হাজার ৭৪৬ জন। সক্রিয় করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ৩৫ লক্ষ ১২ হাজার ৬৭৪ জন। দেশে সুস্থতার হার ৮৪.৯ শতাংশ। আর এখনও পর্যন্ত টিকাকারণ হয়েছে ১৮ কোটি ২৯ লক্ষ ২৬ হাজার ৪৬০ জনের।

    Published by:Sanjukta Sarkar
    First published: