Home /News /cooch-behar /
Coochbehar: সুপার স্পেশালিটি হাসপাতালের দাবিতে মহকুমা শাসকের কাছে স্মারক জমা

Coochbehar: সুপার স্পেশালিটি হাসপাতালের দাবিতে মহকুমা শাসকের কাছে স্মারক জমা

মাথাভাঙ্গা মহাকুমায় সুপার স্পেশালিটি হাসপাতাল করার দাবিকে কেন্দ্র করে সদর মহকুমা শাসকের কাছে স্মারকলিপি জমা দিল সুপার স্পেশালিটি হাসপাতালের প্রস্তুতি কমিটি।

  • Share this:

    মাথাভাঙ্গা: মাথাভাঙ্গা মহাকুমায় সুপার স্পেশালিটি হাসপাতাল করার দাবিকে কেন্দ্র করে সদর মহকুমা শাসকের কাছে স্মারকলিপি জমা দিল সুপার স্পেশালিটি হাসপাতালের প্রস্তুতি কমিটি। মাথাভাঙ্গা মহাকুমা থেকে কোচবিহার মেডিকেল কলেজের দূরত্ব প্রায় ৫০ কিলোমিটার। এত দূরে কোন রোগী অসুস্থ হলে সেই রোগীকে কোচবিহার মহারাজা জিতেন্দ্র নারায়ান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার পথেই প্রাণ হারান বেশির ভাগ রোগী। মূলত এই দাবি গুলিকে সামনে রেখেই মাথাভাঙ্গা সুপার স্পেশালিটি হাসপাতাল তৈরির করা কথা বারবার বলে গেছেন কোচবিহারের পঞ্চানন অনুরাগী গিরীন্দ্রনাথ বর্মন। তিনি দফায় দফায় এই দাবি মুখ্যমন্ত্রীর কাছে রেখে গেছেন তিনি জানান, \"মাথাভাঙ্গা এখন পর্যন্ত যোগাযোগ ব্যবস্থায় অনেকটাই পিছিয়ে রয়েছে। তাই মাথাভাঙ্গায় সুপার স্পেশালিটি হাসপাতাল তৈরি হলে শুধু মাথাভাঙ্গা নয় পার্শ্ববর্তী জেলা আলিপুরদুয়ার পর্যন্ত মানুষ উপকৃত হবেন। সিতাই এবং শীতলকুচির বিস্তীর্ণ এলাকায় বসবাসকারী নিম্ন মধ্যবিত্ত মানুষদেরও যথেষ্ট উপকার হবে। সেই কারণে ইতিমধ্যেই সুপারস্পেশালিটি হাসপাতাল এর পক্ষে ১৩০০০ সাধারণ মানুষের স্বাক্ষর গ্রহণ করা হয়েছে।

     

     

    সমস্ত এলাকায় পৌঁছতে পারলে এই সংখ্যাটা ১লক্ষের বেশি ছড়িয়ে যাবে। বর্তমান দিনে যখন সাধারণ মানুষের স্বাস্থ্য পরিষেবার জন্য একের পরে জনমুখী পরিকল্পনা নিয়ে আসা হচ্ছে। পশ্চিমবঙ্গে নতুন করে মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল তৈরি হয়েছে। তাই মাথাভাঙ্গা মহাকুমার সাধারণ মানুষের আশা মুখ্যমন্ত্রী তাদের দাবিকে অবশ্যই মান্যতা দেবেন।

    আরও পড়ুনঃ ঐতিহ্য মেনে কোচবিহার মদনমোহন বাড়ির নহবৎখানায় সানাই বাজান দুজন

     

     

    তাই তারা মনে করেন, মুখ্যমন্ত্রী অবশ্যই তাদের বিষয়টিকে যত্ন সহকারে দেখবেন এবং তাদের স্বপ্ন সফল করবেন। এই বিষয়ে মাথাভাঙ্গা মহকুমা শাসক অচিন্ত্য কুমার হাজরা বলেন, \"তাদের এই স্মারকলিপি বর্তমান প্রেক্ষাপটে যথেষ্ট যুক্তিযুক্ত। আমি অবশ্যই কোচবিহারের জেলাশাসক এর মাধ্যমে সাধারণ মানুষের এই দাবি মুখ্যমন্ত্রীর কাছে পৌঁছে দেওয়ার চেষ্টা করব।

    আরও পড়ুনঃ বর্ষার মরশুম আসতেই উত্তরবঙ্গে বাড়ছে নদিয়ালী মাছের চাহিদা, খুশি মৎস্য ব্যবসায়ীরা

     

     

    পশ্চিমবঙ্গে গত ১১ বছরে বেশ কয়েকটি মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল হয়েছে। সম্প্রতি আর্থিক একটু সমস্যা রয়েছে কিন্তু মাথাভাঙ্গার সাধারণ মানুষের এই দাবি যথেষ্ট যুক্তিযুক্ত বলে মনে করছেন তিনি।\"

     

     

     

    Sarthak Pandit

    First published:

    Tags: Coochbehar, Hospital, Mathabhanga

    পরবর্তী খবর