হোম » ছবি » পাঁচমিশালি » কুয়ো থেকে তোলা ১০৮টি সোনার কলসের জলে স্নানযাত্রা শুরু হয় পুরীর জগন্নাথদেবের

Snana Yatra 2021: কুয়ো থেকে তোলা ১০৮টি সোনার কলসের জলে স্নানযাত্রা শুরু হয় পুরীর জগন্নাথদেবের

  • Bangla Digital Desk

  • 15

    Snana Yatra 2021: কুয়ো থেকে তোলা ১০৮টি সোনার কলসের জলে স্নানযাত্রা শুরু হয় পুরীর জগন্নাথদেবের

    • এখনও করোনা অতিমারীর সঙ্কট কাটিয়ে উঠতে পারেনি দেশ ৷ তাই গত বছরের মতো এ বছরেও ভক্তহীন মন্দিরেই হচ্ছেন জগন্নাথের স্নানযাত্রা । পথের দিনও কোনও দর্শনার্থীর প্রবেশ নিষেধ । তবু উৎসবের দিনের যাবতীয় রীতিনীতি পালিত হচ্ছে নিষ্ঠা ভরে ৷ আর কয়েকদিন পরেই এখানকার শ্রেষ্ঠ উৎসব রথযাত্রা অনুষ্ঠিত হবে ৷ তার আগে আজই জগন্নাথ দেবের স্নানযাত্রা ৷

    MORE
    GALLERIES

  • 25

    Snana Yatra 2021: কুয়ো থেকে তোলা ১০৮টি সোনার কলসের জলে স্নানযাত্রা শুরু হয় পুরীর জগন্নাথদেবের

    • বলা হয়, এই তিথিতেই মর্ত্যে আবির্ভাব হয়েছিল দেবের ৷ জ্যৈষ্ঠমাসের পূর্ণিমা তিথিতে স্বয়ম্ভু মনুর ‌যজ্ঞের প্রভাবে প্রভু জগন্নাথ আবির্ভূত হয়েছিলেন। তাই এই তিথিকে জগন্নাথদেবের জন্মদিন হিসাবে পালন করার নির্দেশ দেন স্বয়ং মনুই। সেই জন্মদিন উপলক্ষ্যেই এই বিশেষ স্নান উৎসব পালিত হয়ে আসছে।

    MORE
    GALLERIES

  • 35

    Snana Yatra 2021: কুয়ো থেকে তোলা ১০৮টি সোনার কলসের জলে স্নানযাত্রা শুরু হয় পুরীর জগন্নাথদেবের

    • সেই উৎসবকে কেন্দ্র করে এখন ব্যস্ততা তুঙ্গে পুরীর জগন্নাথ মন্দিরে। প্রতি বছর দেবস্নান পূর্ণিমায় এই রীতি পালিত হয়। মহাস্নানের আগে অবধি রত্নবেদীতেই থাকেন জগন্নাথ।

    MORE
    GALLERIES

  • 45

    Snana Yatra 2021: কুয়ো থেকে তোলা ১০৮টি সোনার কলসের জলে স্নানযাত্রা শুরু হয় পুরীর জগন্নাথদেবের

    • প্রথমে জগন্নাথ, তারপর বলরাম, শেষে শুভদ্রাকে পুষ্পাঞ্জলী দেন মন্দিরের সেবায়েতরা। তারপর তাঁদের নিয়ে যাওয়া হয় স্নানবেদীতে। সেখানে মঙ্গল আরতী ও সূর্যপুজোর পর তিনজনকে মহাস্নানের জন্য প্রস্তুত করা হয়। মন্দিরের দক্ষিণের দরজায় রয়েছে কুয়ো। সেই কুয়ো থেকে তোলা হবে একশো আট ঘটি জল। সেই জলেই স্নান করবেন জগন্নাথ, বলরাম, শুভদ্রা।

    MORE
    GALLERIES

  • 55

    Snana Yatra 2021: কুয়ো থেকে তোলা ১০৮টি সোনার কলসের জলে স্নানযাত্রা শুরু হয় পুরীর জগন্নাথদেবের

    • স্নানের পর জগন্নাথ ও বলরামের হাতিবেশ বা গণেশবেশ হয়ে থাকে। স্বয়ং জগন্নাথদেব মহারাজা ইন্দ্রদ্যুম্নকে নির্দেশ দিয়েছিলেন মহাস্নানের পর তাঁর অঙ্গরাগবিহীন রূপ যেন কেউ না দেখেন। তাই স্নানযাত্রার পর থেকে ১৫ দিন পুরীর মন্দিরের দরজা সাধারণের জন্য বন্ধ থাকে।

    MORE
    GALLERIES