corona virus btn
corona virus btn
Loading

ব‍্যাঙ্ককর্মীকে নৃশংসভাবে খুন, বস্তায় পাওয়া গেল হাত-পা, মুণ্ডহীন দেহ !

Bangla Editor | News18 Bangla | 03:44:35 PM IST Aug 31, 2018

নৃশংসভাবে খুন ব‍্যাঙ্ককর্মী। মাথা, দুটি হাত, দুটি পা নেই। বাকি দেহাংশ বস্তায় ভরা। রক্তাক্ত সেই বস্তা পড়েছিল ডোমজুড়ে রাস্তার ধারের ঝোপে। কারা এ ভাবে খুন করল ? কেনই বা করল ? পরিবারের দাবি, খুন হয়ে যেতে পারেন বলে সম্প্রতি আশঙ্কা প্রকাশ করেছিলেন যুবক। মাস দেড়েক ধরে তিনি অন‍্যমনস্কও থাকতেন। নেপথ্যে কি কোনও মহিলার সঙ্গে সম্পর্কের জের ? উড়িয়ে দিচ্ছে না পরিবার।

বুধবার বিকেলে হাওড়ার ডোমজুড়ের নারনা এলাকায় রাস্তার ধারের ঝোপের মধে রক্তমাখা বস্তা দেখেই পুলিশকে খবর দেন স্থানীয়রা। পুলিশ গিয়ে বস্তার ভিতর থেকে উদ্ধার করে দেহাংশ।

এর আগে, বুধবারই দুপুরে ডোমজুড় থানায় একটি বেসরকারি ব‍্যাঙ্কের তরফে জানানো হয়, তাঁদের এক কর্মীর হদিশ পাওয়া যাচ্ছে না। সেই সূত্র ধরেই একে একে দুই হয়। বস্তায় দেহাংশ উদ্ধারের পরই খবর দেওয়া হয় ব‍্যাঙ্কে। সেখানকার দুজন কর্মী গিয়ে পোশাক দেখে, বস্তা থেকে উদ্ধার দেহাংশ, নিখোঁজ সহকর্মী পার্থ চক্রবর্তীর বলে প্রাথমিক ভাবে সনাক্ত করেন।

সেখানে খবর দেয় পুলিশ। এরপর বুধবার রাতেই ডোমজুড়ে গিয়ে দেহাংশ সনাক্ত করেন বাড়ির লোকেরা। মাথা, হাত ও পা বস্তায় না থাকলেও , দেহাংশে একাধিক দাগ, চিহ্ন ও পৈতের গিঁট দেখে ছেলেকে চিনতে পারেন বাবা। কিন্তু, বছর তিনেক আগে ব‍্যাঙ্কের চাকরি পাওয়া এই যুবককে কারা এমন নৃশংসভাবে খুন করল ? কেনই বা করল ? কিছুই বুঝে উঠতে পারছে না পরিবার।

তবে, পরিবারের দাবি, সম্প্রতি, খুন হয়ে যেতে পারেন বলে আশঙ্কা প্রকাশ করেছিলেন ওই ব‍্যাঙ্ককর্মী। মাস দেড়েক ধরে তিনি অন‍্যমনস্কও থাকতেন। নেপথ্যে কি কোনও মহিলার সঙ্গে সম্পর্কের চাপানউতোর ? উড়িয়ে দিচ্ছে না পরিবার।

পার্থর পরিবারের সন্দেহ, কোনও সহকর্মী এই ঘটনার সঙ্গে যুক্ত। পুলিশ সেই সম্ভাবনা উড়িয়ে দিতে পারছে না। সেই সঙ্গে তাদের ভাবাচ্ছে সেই রহস্যময়ী মহিলার ভূমিকাও। কারণ সেই মহিলার সঙ্গেই পার্থ শেষ কথা বলেছেন ফোনে। ওই মহিলার হদিশ পেলে গোটা রহস্য পরিষ্কার হবে বলে মনে করছেন তদন্তকারীরা।

বেসরকারি ব‍্যাঙ্কের লোন এজেন্ট হিসেবে কাজ করতেন পার্থ চক্রবর্তী। ব‍্যাঙ্ক কর্তৃপক্ষের দাবি, বুধবার, পাঁচ জায়গা থেকে তাঁর লোনের মাসিক কিস্তি বাবদ মোটা টাকা আনার কথা ছিল ৷

সব দিকই খতিয়ে দেখছে পুলিশ। মৃত যুবকের মোবাইল ফোন ও সাইকেল খোয়া গিয়েছে। তাঁর মোবাইল ফোনের টাওয়ার লোকেশন ট্র্যাক করে পুলিশ জানার চেষ্টা করছে, বুধবার ওই ব‍্যাঙ্ক কর্মী কোথায় কোথায় গিয়েছিলেন, কাঁদের সঙ্গে দেখা করেছিলেন। পুলিশ জানতে পেরেছে, শেষবার এক মহিলার সঙ্গ ব‍্যাঙ্ককর্মীর কথা হয়। ব‍্যাঙ্কের সিসিটিভি ফুটেজ খতিয়ে দেখা গেছে, এই মহিলার সঙ্গে এর আগেও তাঁর ব‍্যাঙ্কের মধ‍্যে কথা হয়েছিল। দু’জনের মধ‍্যে কি কোনও সম্পর্ক তৈরি হয়েছিল ? খুনের সঙ্গে সেই সম্পর্কের কি কোনও যোগ আছে? খতিয়ে দেখছে পুলিশ। প্রয়োজনে এই মহিলাকে জিজ্ঞাসাবাদ করতে পারেন তদন্তকারীরা। তাঁরা জানিয়েছেন, দেহাংশ পাঠানো হবে ডিএনএ টেস্টের জন‍্য।

লেটেস্ট ভিডিও