মাঝবয়সী ব্যক্তিকে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ রিহ্যাব সেন্টারের বিরুদ্ধে, ধৃত দুই

Bangla Editor | News18 Bangla | 04:10:20 PM IST Jul 15, 2021

নিমতা, উত্তর ২৪ পরগনা : মাঝবয়সী এক ব্যক্তিকে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ উঠেছে নিমতা থানার পাইক পাড়ার একটি রিহ্যাব সেন্টারের বিরুদ্ধে। জানা গিয়েছে, বিরাটির কলাবাগান এলাকার বাসিন্দা ৪৯ বছরের পার্থ রাহা ওরফে বাপনকে নেশা কাটানোর জন্য পাইকপাড়ার সুদৃষ্টি দর্শন রিহ্যাব সেন্টারে ভর্তি করা হয়েছিল। মৃতের ভাই প্রণব রাহা জানান, দাদা লুকিয়ে ফোন করেছিল বাড়িতে আনার জন্য। দাদা বলেছিল ওখানে থাকতে পারছে না। তাই দাদাকে বৃহস্পতিবার বাড়িতে আনার কথা ছিল। প্রণব বাবুর অভিযোগ, লুকিয়ে ফোন করেছিল তা জানতে পেরে দাদাকে শারীরিক নিগ্রহ করে রিহ্যাব সেন্টারের লোকজন।  রিহ্যাব কর্তৃপক্ষের তরফে মঙ্গলবার রাতে ফোন করে জানায় দেওয়ালে কপাল ঠোকায় তকে পানিহাটি স্টেট জেনারেল হাসপাতালে আনা হয়েছে। পরিবারের লোকজন হাসপাতালে গিয়ে দেখেন পার্থ মৃত অবস্থায় পড়ে রয়েছে। মৃতের ভাইয়ের অভিযোগ, দাদাকে পিটিয়ে খুন করা হয়েছে।  বুধবার ভোর রাতে নিমতা থানায় অভিযোগ দায়ের করেছে মৃতের পরিবার। সেই অভিযোগের ভিত্তিতে রিহ্যাব সেন্টারের দুইজন শুভঙ্কর মন্ডল ও শুভাশীষ চক্রবর্তীকে গ্রেফতার করেছে নিমতা থানার পুলিশ। বনগাঁ, উত্তর ২৪ পরগনা : বনগাঁয় আইএনটিটিইউসি আয়োজিত রক্তদান শিবির থেকে শ্রমিকদের আর্থিক সহযোগিতা করা হল। উত্তর ২৪ পরগনার বনগাঁ শহর আইএনটিটিইউসি-র  পক্ষ থেকে অন্নপূর্ণা কমিউনিটি হলে একটি রক্তদান শিবিরের আয়োজন করা হয়েছিল। রক্তদান শিবিরের মঞ্চ থেকে বনগাঁর প্রাক্তন পৌর পিতা শংকর আঢ্য ও  প্রাক্তন পৌর মাতা জোসনা আঢ্যর উপস্থিতিতে গাছের ডাল পড়ে মৃত শ্রমিক টোটন বিশ্বাস এর পরিবারের হাতে ৩০ হাজার টাকা আর্থিক অনুদান তুলে দেওয়া হয় এবং করোনার কারণে আর্থিক অনাটনে ভুক্তভোগী বাস শ্রমিকদের হাতে ৫০০ টাকা করে তুলে দেওয়া হয়। আই এন টি টি ইউ সি র পক্ষ থেকে মৃত শ্রমিক টোটন বিশ্বাস এর পরিবারের হাতে অর্থ তুলে দেওয়াই তার দাদা জানিয়েছে ভাই মারা গেছে ভাইকে তো আর ফিরে পাবোনা কিন্তু শ্রমিক সংগঠনের পক্ষ ভাইয়ের স্মৃতির উদ্দেশ্যে যা করেছে তাতে আমরা খুশি। ব্যারাকপুর, উত্তর ২৪ পরগনা : রাজ্য সরকারের উপর বিভিন্ন অভিযোগ এবং ভ্যাকসিন দুর্নীতি নিয়ে প্রতিবাদে বিজেপির বিক্ষোভ সমাবেশ আয়োজন করা হয়েছিল ব্যারাকপুর চিড়িয়া মোড় সংলগ্ন এলাকায়। কিন্তু কিছুক্ষণ পরেই রণক্ষেত্রে পরিস্থিতি হয়ে ওঠে। বিজেপির অভিযোগ তৃণমূল আশ্রিত দুষ্কৃতীরা তাদের উপর চড়া হয়। তাদের মাইক্রোফোন, ব্যানার ছিঁড়ে দিয়ে যায়। বিজেপির বক্তব্য সিপিএম-তৃণমূল সভা করলে কোন অসুবিধা নেই বিজেপির বিক্ষোভ করলে কেন এরকম তাদের উপর হামলা হবে ?

লেটেস্ট ভিডিও