হোম » ছবি » দেশ » স্ত্রীর মৃত্যুতে শূন্যতা! একাকিত্ব কাটাতে বাড়িতেই মূর্তি বসালেন ব্যবসায়ী

স্ত্রীর মৃত্যুতে শূন্যতা! একাকিত্ব কাটাতে বাড়িতেই মূর্তি বসালেন তামিলনাড়ুর ব্যবসায়ী

  • Bangla Digital Desk

  • 15

    স্ত্রীর মৃত্যুতে শূন্যতা! একাকিত্ব কাটাতে বাড়িতেই মূর্তি বসালেন তামিলনাড়ুর ব্যবসায়ী

    দীর্ঘ ৪৮ বছরের সাংসারিক জীবন৷ তাই গত ১০ অগাস্ট নিজের স্ত্রীর মৃত্যুর পর কিছুতেই তাঁকে ভুলতে
    পারছিলেন না তামিলনাড়ুর প্রবীণ এক ব্যবসায়ী৷ বাড়ির মধ্যে সারাক্ষণই স্ত্রীর অভাব বোধ করছিলেন
    তিনি৷ আর সেই শূন্যতা পূরণেই স্ত্রীর মৃত্যুর এক মাসের মাথায় নিজের বাড়িতে স্ত্রীর একটা মূর্তি বসিয়ে
    ফেললেন ওই ব্যবসায়ী!Photo-ANI

    MORE
    GALLERIES

  • 25

    স্ত্রীর মৃত্যুতে শূন্যতা! একাকিত্ব কাটাতে বাড়িতেই মূর্তি বসালেন তামিলনাড়ুর ব্যবসায়ী

    ৭৪ বছরের ওই ব্যবসায়ীর নাম সি সেতুরমন৷ তিনি মাদুরাইয়ের মেলা পোন্নাগরমের বাসিন্দা৷ গত ১০
    অগাস্ট তাঁর ৬৭ বছর বয়সি স্ত্রী এস পিচাইমণি আচমকাই হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মারা যান৷Photo-ANI

    MORE
    GALLERIES

  • 35

    স্ত্রীর মৃত্যুতে শূন্যতা! একাকিত্ব কাটাতে বাড়িতেই মূর্তি বসালেন তামিলনাড়ুর ব্যবসায়ী

    সেতুরমনের কথায়, স্ত্রী তাঁর সবথেকে ভাল বন্ধু ছিলেন৷ ৪৮ বছরের দীর্ঘ সাংসারিক জীবনে সর্বতভাবে
    তাঁর পাশে থেকে সমর্থন জুগিয়েছেন পিচাইমণি৷ কঠিন সময়ে সাহস জুগিয়েছেন৷ স্বাভাবিক ভাবেই তাঁর
    মৃত্যু ওই ব্যবসায়ীর জীবনে এক বিরাট শূন্যতা সৃষ্টি করে৷Photo-ANI

    MORE
    GALLERIES

  • 45

    স্ত্রীর মৃত্যুতে শূন্যতা! একাকিত্ব কাটাতে বাড়িতেই মূর্তি বসালেন তামিলনাড়ুর ব্যবসায়ী

    কিছুদিন আগে কর্ণাটকের এক ব্যবসায়ীও নিজের মৃত স্ত্রীর মূর্তি বসিয়েছিলেন বাড়িতে৷ সেই ঘটনার কথা
    জানার পরই নিজের স্ত্রীরও মূর্তি বসানোর সিদ্ধান্ত নেন সেতুরমন৷Photo-ANI

    MORE
    GALLERIES

  • 55

    স্ত্রীর মৃত্যুতে শূন্যতা! একাকিত্ব কাটাতে বাড়িতেই মূর্তি বসালেন তামিলনাড়ুর ব্যবসায়ী

    ২৫ দিনের চেষ্টায় মাদুরাইয়ের এক শিল্পী ফাইবারের স্ট্যাচুটি তৈরি করেছেন৷ নিজের বাড়ির বসার ঘরেই
    স্ত্রীর এই মূর্তি বসিয়েছেন সেতুরমন৷ তাঁর দাবি, বাড়ির ভিতরে রাখলে বহু বছর মূর্তিটি নষ্ট হবে না৷
    এমন ভাবে মূর্তিটি বসানো হয়েছে যে ঘরের দরজা খুললেই তা চোখে পড়বে৷ ওই ব্যবসায়ীর কথায়,
    'দরজা খুললেই স্ত্রীর মূর্তিটি দেখতে পাব৷ তাতে মনে হবে, আগের মতোই আমার স্ত্রীর আমাকে দরজা খুলে
    দিচ্ছেন৷' পেশায় রিয়েল এস্টেট ব্যবসায়ী সেতুরমনের তিন মেয়ে৷ তাঁদের প্রত্যেকেরই বিয়ে হয়ে গিয়েছে৷
    ফলে বাড়িতে স্ত্রীর মূর্তি এবং স্মৃতিকে সঙ্গী করেই বাকি জীবনটা কাটাতে চান তিনি৷Photo-ANI

    MORE
    GALLERIES