মানসিক অবসাদেই মাকে রডের বাড়ি মেরে, দুধের শিশুকে গলা টিপে খুন করে অভিযুক্ত

মানসিক অবসাদেই মাকে রডের বাড়ি মেরে, দুধের শিশুকে গলা টিপে খুন করে অভিযুক্ত

Elina Datta | News18 Bangla
Updated:Nov 01, 2017 09:41 AM IST
মানসিক অবসাদেই মাকে রডের বাড়ি মেরে, দুধের শিশুকে গলা টিপে খুন করে অভিযুক্ত
অভিযুক্ত
Elina Datta | News18 Bangla
Updated:Nov 01, 2017 09:41 AM IST

 #বারুইপুর: অসংলগ্ন কথা বার্তাতেই প্রথম সন্দেহ হয়। তাঁকে আততায়ীরা মারধর করেছে বলে জানালেও শরীরে তেমন আঘাতের চিহ্ন ছিল না। সন্দেহমতোই টানা জেরা শুরু করে পুলিশ। আর তাতেই চব্বিশ ঘণ্টার মধ্যে কিনারা হল বারুইপুরের জোড়া খুন রহস্যের। নিজের মা ও বাইশ দিনের কন্যা সন্তানকে খুনের অভিযোগে গ্রেফতার মোরশেদা বিবি।

বারুইপুরের উত্তরভাগে জোড়া খুনের ঘটনায় একমাত্র জীবিত মোরশেদা বিবিই হয়ে উঠলেন পুলিশের হাতিয়ার। আর সেই অস্ত্রেই রহস্যভেদ। প্রথম থেকেই অসংলগ্ন কথাবার্তায় সন্দেহ হয়।

অবশেষে পুলিশের টানা জেরার সামনে মোরশেদা জানান, প্রথমে মা সায়রা বেওয়াকে মাথায় রড মেরে খুন করেন মোরশেদা। তাঁর দেহ পুকুরের পাড়ে রেখে দেন তিনি। এরপর, ২২ দিনের কন্যাসন্তানকে গলাটিপে খুন করেন। দেহ ছুড়ে ফেলে দেন ওই পুকুরেই। ঘটনার বীভৎসতায় মোরশেদা নিজেও শক পান। ছুটে পালানোর সময়, প্রতিবেশীর বাড়ির সেপটিক ট্যাঙ্কে পড়ে গিয়ে জ্ঞান হারান তিনি।

২৪ ঘণ্টার মধ্যে জোড়া খুনের রহস্যভেদ। কিন্তু, কেন এমন নারকীয় ঘটনা ঘটালেন মোরশেদা? পুলিশের ধারণা,

Loading...

- মোরশেদা মানসিক রোগে আক্রান্ত

- তিনি স্প্লিট পার্সোনালিটিতে ভুগছেন

- স্বামী আজিজুলের সঙ্গে তাঁর সম্পর্ক খারাপ

- আজিজুলের সঙ্গে অন্য মহিলার সম্পর্ক রয়েছে

- তা থেকেই স্বামী ও স্ত্রী-র সম্পর্কের অবনতি হয়

- তার জেরেই মোরশেদার মানসিক অবসাদের সূত্রপাত

- কন্যা সন্তান হওয়ার পর থেকে অবসাদ আরও তীব্র হয়ে ওঠে

কয়েকদিন আগে, আজিজুলের বাড়ির পাশে স্থানীয় এক ব্যক্তির দেহ মেলে। সোমবার রাতের ঘটনায় স্থানীয় বাসিন্দারা প্রথমে সেই ঘটনার জেরেই পালটা খুন বলে অভিযোগ তুলেছিলেন। কিন্তু, আসল খুনির নাম জানতে পেরে হতবাক তাঁরা।

তবে ঘরের মধ্যে মেলা ব্যবহৃত কন্ডোম কীভাবে ও কোথা থেকে এল তা নিয়ে এখনও নিশ্চিত নয় পুলিশ। মোরশেদার কোনও সঙ্গী ছিল কিনা তাও এখনও জানা যায়নি। তাই নতুন করে জেরা করা হচ্ছে মোরশেদাকে।

First published: 09:41:28 AM Nov 01, 2017
পুরো খবর পড়ুন
Loading...
अगली ख़बर