Home /News /west-midnapore /
Paschim Medinipur: শান্তিনিকতনের আদলে জঙ্গলমহলে রবীন্দ্র জয়ন্তী

Paschim Medinipur: শান্তিনিকতনের আদলে জঙ্গলমহলে রবীন্দ্র জয়ন্তী

গোদাপিয়াশাল

গোদাপিয়াশাল হাইস্কুল প্রাঙ্গন

সোমবার জেলা তথ্য ও সংস্কৃতি দপ্তর, পশ্চিম মেদিনীপুরের উদ্যোগে গোদাপিয়াসাল এম.জি.এম হাই স্কুলের বটবৃক্ষ তলে, খোলা মঞ্চে অনুষ্ঠিত হলো রবীন্দ্র জয়ন্তী।

  • Share this:

    পশ্চিম মেদিনীপুর: সোমবার জেলা তথ্য ও সংস্কৃতি দপ্তর, পশ্চিম মেদিনীপুরের উদ্যোগে গোদাপিয়াসাল এম.জি.এম হাই স্কুলের বটবৃক্ষ তলে, খোলা মঞ্চে অনুষ্ঠিত হলো রবীন্দ্র জয়ন্তী। শুরু থেকে শেষ সব কিছুতে ছিলো আমাদের রবি ঠাকুর। অতিথি বরণ করা হয় শান্তিনিকেতন থেকে আনা রবীন্দ্র প্রতিকৃতিতে রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের প্রিয় অমলতাস চারা গাছ দিয়ে। এখানেই শেষ নয় চেতনে রবীন্দ্রনাথ আনতে রাখা হয় একটি ডাইরি, যেখানে অতিথি থেকে শুরু করে দর্শক পুষ্পর্ঘ নিবেদনের পর দু চার কথা লিপিবদ্ধ করবেন। এহেন ভাবনা সত্যি অভিনব। সেই সাথে বিদ্যালয়ের ছাত্রছাত্রীদের মধ্যে আঁকার বিষয় ছিলো রবীন্দ্রনাথের প্রতিকৃতি। এভাবেই অভিনব আয়োজনের খামতি রাখেনি বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ। বিদ্যালয়ের কচিকাঁচাদের সাথে সাথে স্থানীয় সংগীত শিল্পী, নৃত্যশিল্পীরা যেমন ছিলেন, তেমনি ছিলো বাঁশির সুর, আর খোলের তালে বাউলের সুরে রবীন্দ্র বন্দনা। তথ্য সংস্কৃতির আধিকারিক বরুন মন্ডলের উদ্যোগে এই রবীন্দ্র জয়ন্তী গোদাপিয়াসাল স্কুলের শান্ত পরিবেশকে যেন এক টুকরো শান্তিনিকেতন রচনা করে। বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক বলেন, এই অনুষ্ঠানে আমাদের বিদ্যালয়ের শিক্ষক শিক্ষিকার সাথে সাথে পাশের বালিকা বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষিকা ও সহ শিক্ষিকাগন সহযোগিতা করেন। সেই সাথে ছাত্রছাত্রীরা আগ্রহের সাথে আজকের অনুষ্ঠানে অংশ নেয়। এটা আমাদের অভিভুত করেছে। তথ্য সংকৃতির আধিকারিক বরুন মন্ডল বলেন, গোদাপিয়াসাল স্কুলের পরিবেশ একটি মিনি শান্তিনিকেতন। আর স্কুল শিক্ষকদের ভাবনায় রবীন্দ্র জয়ন্তী এক অন্যমাত্রা এনে দিয়েছে। শুরু থেকে শেষ ছত্রে ছত্রে রবীন্দ্রনাথকে স্মরণ করে রাখার ত্রুটি উনি করেননি। সব শেষে শিল্পী নরসিংহ দাস এক অভিনব সৃষ্টি (স্ক্রু দিয়ে তৈরি রবীন্দ্রনাথ প্রতিকৃতি) নিজ হাতে তুলে দেন জেলা তথ্য ও সংস্কৃতি আধিকারিক বরুন মন্ডলের হাতে।

    First published:

    Tags: Paschim medinipur

    পরবর্তী খবর