Home /News /west-midnapore /
Paschim Medinipur: জানালা ভেঙে বাড়িতে ঢুকে ব্যক্তিকে গুলি খড়্গপুরে

Paschim Medinipur: জানালা ভেঙে বাড়িতে ঢুকে ব্যক্তিকে গুলি খড়্গপুরে

গুলিবিদ্ধ

গুলিবিদ্ধ ব্যক্তি ভর্তি মেদিনীপুর মেডিক্যালে

ইভটিজিংয়ের ঘটনাকে কেন্দ্র করে উত্তেজনা, আর তা থেকেই চলল গুলি।পশ্চিম মেদিনীপুর জেলার খড়গপুর শহরের ২৬ নম্বর ওয়ার্ডের সাউথ ডেভেলপমেন্ট এলাকার ঘটনায় আতঙ্কে গোটা রেলশহর।

  • Share this:

    পশ্চিম মেদিনীপুর: ইভটিজিংয়ের ঘটনাকে কেন্দ্র করে উত্তেজনা, আর তা থেকেই চলল গুলি। পশ্চিম মেদিনীপুর জেলার খড়গপুর শহরের ২৬ নম্বর ওয়ার্ডের সাউথ ডেভেলপমেন্ট এলাকার ঘটনায় আতঙ্কে গোটা রেলশহর। আশঙ্কাজনক অবস্থায় গুলিবিদ্ধ যুবক সুনীল গুপ্তা-কে মেদিনীপুর মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। ঘটনায় ইতিমধ্যে দু'জনকে গ্রেফতার করেছে খড়্গপুর টাউন থানা, জানিয়েছেন জেলার পুলিশ সুপার দীনেশ কুমার। পারিবারিক বিবাদের জেরেই এই ঘটনা বলেই প্রাথমিকভাবে জানা গেছে বলে জানিয়েছে পুলিশ। ওই এলাকার গুপ্তা ও সিং পরিবারের পারিবারিক বিবাদ দীর্ঘদিনের। বুধবার রাতে গুপ্তা পরিবারের আদিত্য গুপ্তা নামে এক কিশোর বাড়ির বাইরে ফোনে কথা বলছিল। ওই সময় ওই রাস্তা দিয়ে সিং পরিবারের এক যুবতী যাওয়ার সময় আদিত্য তাকে কটুক্তি করে বলে অভিযোগ। তার থেকেই দুই পরিবারের মধ্যে উত্তেজনা তৈরি হয়। সেই ঘটনার জেরে সিং পরিবারের সদস্যরা বাইরে থেকে আরো লোকজন নিয়ে এসে আদিত্য গুপ্তা ও তার বাবা বছর ৪০-এর সুনীল গুপ্তা-কে বেধড়ক মারধর করে বলে অভিযোগ। ঘটনায় তাঁরা পুলিশের কাছে লিখিত অভিযোগ করে আসেন। এরপর রাতে রীতিমতো জানালা ভেঙে প্রায় ৩০-৪০ জন ঢুকে গুলি চালায়। ৪-৫ রাউন্ড গুলি চালানো হয় বলে অভিযোগ। গুলিবিদ্ধ হয় সুনীল গুপ্তা। তেমনটাই অভিযোগ গুপ্তা পরিবারের। নিজের জামাই বাবু-কে উদ্ধার করতে গিয়ে প্রহৃত হন পাশের বাড়ির বাসিন্দা টিংকু রানা নামে আরও এক যুবক।রাতেই রক্তাক্ত অবস্থায় উদ্ধার করে সকলকে ভর্তি করা হয় খড়্গপুর মহকুমা হাসপাতালে। পরে বৃহস্পতিবার সকালে সেখান থেকে মেদিনীপুর মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতালে পাঠানো হয় তাদের। টিংকু রানার দাবি, \"পুরনো পারিবারিক শত্রুতা ছিল। তারপর গতকাল রাতে আমার ভাগ্না ফোনে কথা বলার সময় ওরা ভাবে পাশ দিয়ে যাওয়া প্রতিবেশীর বোনকে গালাগালি করেছে। তার জেরে এই গন্ডগোল তৈরি হয়। ওরা প্রচুর পরিমাণে বাইরে থেকে লোক এনে মারধর ও গুলি করেছে।\"

    First published:

    Tags: Kharagpur, Paschim medinipur

    পরবর্তী খবর