Home /News /west-midnapore /
West Midnapore News: ফষলের ক্ষতি, বাড়ি ঘর ভাঙচুর, প্রাণহানি! ঝাড়গ্রামে তাণ্ডব চালাচ্ছে কে জানেন?

West Midnapore News: ফষলের ক্ষতি, বাড়ি ঘর ভাঙচুর, প্রাণহানি! ঝাড়গ্রামে তাণ্ডব চালাচ্ছে কে জানেন?

title=

Jhargram: গত এক বছরে ঝাড়গ্রামে হাতির হামলায় মৃত্যু হয়েছে প্রায় ২০ জনের।

  • Share this:

    #ঝাড়গ্রাম: রাজ্যের বন প্রতিমন্ত্রী তাঁদের এলাকার বিধায়ক। অথচ একের পর এক হাতির হামলায় মৃত্যু, আহতর ঘটনা ঘটেই চলেছে ঝাড়গ্রাম জেলা জুড়ে।

    শুধু মৃত্যুই নয়, হাতির তান্ডবে ফষলের ক্ষতি, বাড়ি ঘর ভাঙচুর হচ্ছে প্রায় প্রতিদিনই, অথচ বনদফতর উদাসীন। অভিযোগ জানাতে গেলে উল্টে গ্রামবাসীদের নামে কেস দিয়ে হয়রানি করা হচ্ছে বলে অভিযোগ।

    বন প্রতিমন্ত্রী বীরবাহা হাঁসদাকে জানালেও তিনিও এবিষয়ে উদাসীন বলে অভিযোগ। মানুষের মৃত্যু ক্ষয় ক্ষতি তার চোখে পড়ছে না। এই অভিযোগ তুলে একপ্রকার বাধ্য হয়ে গ্রামবাসীরা বিক্ষোভে সামিল হয়েছেন বন প্রতিমন্ত্রী ও বনদফতরের বিরুদ্ধে। রবিবার সকালেও গ্রামে ঢুকে হাতি একটি গরুেক মেরে ফেলেছে। অথচ গ্রামবাসীদের অভিযোগ, মানুষের মৃত্যুর ক্ষতিপুরণ ছাড়া আর কোনও ক্ষতিপূরণই দিচ্ছে না বনদফতর।

    আরও পড়ুন- ৬ মাস- ১ বছর আগের চুরি ‌যাওয়া মোবাইল ফিরে পেলেন অনেকে!সৌজন্য মুর্শিদাবাদ পুলিশ 

    হাতির তাণ্ডবে অতিষ্ঠ হওয়া গ্রামবাসীরা পুকুরিয়া বিট অফিস ঘেরাও করে বিক্ষোভ দেখান। গ্ৰামবাসীদের বক্তব্য, ঝাড়গ্রাম জেলা জুড়ে হাতির তাণ্ডব অব্যাহত। খাবারের সন্ধানে দলমার দাঁতালের দল বেশিরভাগ সময় গ্ৰামেগঞ্জে প্রবেশ করে তাণ্ডব চালাচ্ছে। ভাঙ্গছে বাড়িঘর নষ্ট করছে খাবার। হুঁস নেই বনদপ্তরের। গত এক বছরে ঝাড়গ্রামে হাতির হামলায় মৃত্যু হয়েছে প্রায় ২০ জনের। গ্ৰামবাসীদের আরও দাবি, যেখানে রাজ্যের বন প্রতিমন্ত্রী বীরবাহা হাঁসদা থাকেন সেই জায়গায় হাতির হানায় মৃত্যুর হার বাড়ছে, তার পরেও কোনও পদক্ষেপ গ্রহণ করা হচ্ছে না বন দফতরের তরফে।

    এই নিয়েও ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন এলাকার মানুষজন। গ্ৰামবাসীরা বন দপ্তরে বারবার জানিয়েও কোনো সুহারা পায়নি। তাই গ্রামবাসীরা বাধ্য হয়ে পুকুরিয়া বিট অফিস ঘেরাও করেন।

    আরও পড়ুন- আইনের প্যাচ,হাতে আঁকা ছবি মুখ্যমন্ত্রীকে না দিতে পেরে মন খারাপ ছোট তামান্নার 

    খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছয় বিশাল পুলিশ বাহিনী ও বনদপ্তরের উচ্চপদস্থ কর্মকর্তারা। গ্রামবাসীদের দাবি, হাতির আক্রমণ রুখতে স্থায়ী পদক্ষেপ গ্রহন করুক বন দফতর। মানুষের মৃত্যুর ক্ষতিপূরণের পাশাপাশি গৃহপালিত পশুর মৃত্যুর এবং ঘরবাড়ি ও ফসলের ক্ষতির জন্য ক্ষতিপূরণ দিতে হবে বন দফতরকে।

    First published:

    Tags: Elephant, Jhargram

    পরবর্তী খবর