Home /News /west-bardhaman /
West Midnapur News|| বাহারি স্বাদের সাবেকি রান্না, ত্রয়ীর রান্নার স্বাদে মাতল চিত্তরঞ্জনের রন্ধন প্রতিযোগিতা

West Midnapur News|| বাহারি স্বাদের সাবেকি রান্না, ত্রয়ীর রান্নার স্বাদে মাতল চিত্তরঞ্জনের রন্ধন প্রতিযোগিতা

Special cooking competition at Chittaranjan: বাড়িতে বাড়িতে যে সমস্ত রান্না হামেশা আয়োজিত হয়, সেই সমস্ত রেসিপি তৈরি করেই কিচেনের বস হয়ে উঠলেন চিত্তরঞ্জন নিবাসী তিনজন।

  • Share this:

    #চিত্তরঞ্জন, পশ্চিম বর্ধমান: গ্রাম বাংলার পুরনো তথাকথিত রান্নাতেই মাত করলেন দু'জন মহিলা এবং একজন পুরুষ। সেই স্বাদের জাদুতে মোহিত সবাই। বাড়িতে বাড়িতে যে সমস্ত রান্না হামেশা আয়োজিত হয়, সেই সমস্ত রেসিপি তৈরি করেই কিচেনের বস হয়ে উঠলেন চিত্তরঞ্জন নিবাসী তিনজন। পোলাও, মাংসের রেসিপির মাধ্যমে জয় করে নিলেন বিচারকদের জিভ ও মন। চিত্তরঞ্জনে আয়োজিত বস ই কিচেন নামের একটি কুকিং প্রতিযোগিতার আয়োজন করা হয়েছিল। প্রতিযোগিতায় ৩৩ জন অংশগ্রহণকারী মহিলার মধ্যে দু'জনের রান্না সেরা বলে বিবেচিত হয়েছে এই প্রতিযোগিতায়। তা ছাড়া ৩ জন পুরুষ অংশগ্রহণকারীর মধ্যে একজনের রান্না সেরার তালিকায় স্থান পেয়েছে। তবে ওই তিনজনের হাতে এখনও সুযোগ রয়েছে বৃহত্তর এলাকায় নিজেদের রান্নার স্বাদের যাদু ছড়িয়ে দেওয়ার।

    জানা গিয়েছে এই কুকিং প্রতিযোগিতায় যে তিনটি রান্না সেরা প্রমাণিত হয়েছে, সেগুলি হল গ্রাম বাংলার লাল মটন, চিকেন কোরমা ফ্রাইড রাইস এবং চিকেন মহারানি সুইটস পোলাও। সাবেকিয়ানার সঙ্গে আধুনিকতার ছোঁয়া মিলিয়ে এই তিনটি রেসিপি তৈরি করেছিলেন অংশগ্রহণকারীরা। আর সেখানেই উঠেছে স্বাদের জাদু। গ্রাম বাংলার লাল মটন যে তৈরি করা হয়েছিল, তা চেখে দেখেই প্রশংসায় পঞ্চমুখ হয়েছেন সকলে। তাছাড়াও চিকেন কোরমা ফ্রাইড রাইস এবং চিকেন মহারানি সুইটস পোলাও- রেসিপি দুটিরও তারিখ করেছেন সবাই।

    আরও পড়ুন: বিশ্বজনীন দুর্গাপুজোর কাউন্টডাউন শুরু! কলকাতার উত্তর-দক্ষিণ, পূর্ব-পশ্চিমে কোথায় কী হচ্ছে?

    চিত্তরঞ্জন ছয়ের পল্লীতে আয়োজিত এই রন্ধন প্রতিযোগিতায় ৩৬ টি ডিসের মধ্যে সেরা তিনটি ডিস বলে বিবেচিত হয়েছে এগুলিই। বস-ই কিচেন নামাঙ্কিত এই প্রতিযোগিতাটি চিত্তরঞ্জনের স্থানীয় একটি সংগঠনের উদ্যোগে আয়োজিত হয়েছিল। সহযোগিতায় ছিল বহুল প্রচলিত একটি এফএম রেডিও চ্যানেল। ছয়ের পল্লী এরিয়া কমিটির উদ্যোগে এই রন্ধন প্রতিযোগিতায় ৩৩ জন মহিলা এবং ৩ জন পুরুষ অংশ নিয়েছিলেন। প্রত্যেকেই অসাধারণ উদ্ভাবনী শক্তির পরিচয় দিয়ে সুস্বাদু রান্না প্রস্তুত করেন সেখানে। তবে শেষ পর্যন্ত সেরা তিনটি স্থানের অধিকারী হয়েছেন মহুয়া ধর, মিতালী মন্ডল এবং প্রণব ঘোষ।

    জানা গিয়েছে, ওই রেডিও চ্যানেলের উদ্যোগে আরও বেশ কিছু অঞ্চলে প্রতিযোগিতা হবে। সেই সব প্রতিযোগিতা থেকে উঠে আসা সেরাদের নিয়ে চূড়ান্ত রন্ধন প্রতিযোগিতা হবে আসানসোলে। তবে তার দিনক্ষণ এখনও পর্যন্ত ঠিক হয়নি। তবে আসানসোলে আয়োজিত হতে চলা ওই মূলপর্বের প্রতিযোগিতায় এই তিনজন অংশ নেবেন। উল্লেখ্য, এই প্রতিযোগিতায় সেরার খেতাব পাওয়া তিনজনের পাশাপাশি, অংশগ্রহণকারী রন্ধন পারদর্শীদের মধ্যে সেরা ১৫ জনকে পুরস্কৃত করবে ছয়ের পল্লী এরিয়া কমিটি। এ ছাড়াও একটি বিশেষ পুরস্কারের জন্য মনোনীত হয়েছেন আরও এক অংশগ্রহণকারী শোভা পাল। চলতি বছরের দুর্গাপুজোর ষষ্ঠীর দিন সর্বপল্লী দুর্গোৎসব কমিটির উদ্যোগে তাদের হাতে পুরস্কার তুলে দেওয়া হবে।

    Published by:Shubhagata Dey
    First published:

    Tags: Recipe, West Bardhaman

    পরবর্তী খবর