Football World Cup 2018

স্কুলের ছাত্রছাত্রীদের মাঠে টিফিন নিয়ে ঢুকতে দেওয়া হোক, ফিফাকে মমতার আবেদন

Elina Datta | News18 Bangla
Updated:Oct 16, 2017 02:13 PM IST
স্কুলের ছাত্রছাত্রীদের মাঠে টিফিন নিয়ে ঢুকতে দেওয়া হোক, ফিফাকে মমতার আবেদন
Elina Datta | News18 Bangla
Updated:Oct 16, 2017 02:13 PM IST

 #কলকাতা: প্রথমবারের জন্য ফুটবল বিশ্বকাপের আসর বসেছে ভারতে ৷ ফুটবলপ্রেমী বাঙালির শহর কলকাতাও কাঁপছে ফুটবল জ্বরে ৷ অনুর্ধ্ব ১৭ টিমগুলির খেলা দেখতে দল বেঁধে সল্টলেক স্টেডিয়ামে হাজির ফুটবল পাগল আট থেকে আশি ৷ কিন্তু ফিফার কড়া সুরক্ষাবিধি গেরোয় পড়ে অসুবিধার সম্মুখীন হচ্ছেন স্কুল থেকে আসা ছোট ছোট ছাত্রছাত্রীরা ৷

ফিফার নির্দেশ অনুযায়ী, মাঠের ভিতরে জলের বোতল বা খাবার নিয়ে প্রবেশ নিষেধ ৷ খিদে বা তেষ্টা পেলে মাঠের ভিতর থেকে তা কিনে খেতে হবে ৷ তাতে অসুবিধেয় পড়ছেন ছোট ছোট ছেলেমেয়েরা ৷ এদের কথা মাথায় রেখেই ফিফার কাছে রাজ্য সরকার আবেদন, স্কুল থেকে আসা ছাত্রছাত্রীদের টিফিন নিয়ে মাঠে ঢোকার অনুমতি দেওয়া হোক ৷

ভারত ইতিমধ্যেই বিশ্বকাপের দৌড় থেকে ছিটকে গেলেও টুর্নামেন্ট নিয়ে কলকাতার আগ্রহে এতটুকু কমতি নেই ৷ আগামী ২৮ অক্টোবর সল্টলেক স্টেডিয়ামেই অনুষ্ঠিত হবে অনুর্ধ্ব ১৭ ফুটবল বিশ্বকাপের ফাইনাল ৷ ফিফা কর্তৃপক্ষের কাছে শুধুমাত্র ওই দিন ছোটদের জন্য সুরক্ষাবিধি কিঞ্চিৎ শিথিল করার অনুরোধ জানিয়েছে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সরকার ৷

খেলাধূলায় অনুপ্রেরণা দিতে রাজ্য সরকার প্রায় পাঁচ হাজার স্কুল ও কলেজের পড়ুয়াদের মধ্যে বিনামূল্যে অনুর্ধ্ব ১৭ বিশ্বকাপ ম্যাচের টিকিট বিতরণ করে ৷ প্রতি ম্যাচে বিশ্বের বিভিন্ন দেশের ফুটবলারদের খেলা দেখতে হাজির হন রাজ্যের বিভিন্ন অঞ্চলের স্কুল ও কলেজের পড়ুয়ারা ৷

ফিফার নিয়ম অনুযায়ী, চেকিংয়ের পরও মাঠে মহিলাদের পার্স ছাড়া কোনও ব্যাগ নিয়ে ঢোকা নিষিদ্ধ ৷ নেওয়া যাবে না কোনওরকমের খাবার অথবা জল ৷ দিনের এতটা লম্বা সময় জল বা খাবার ছাড়া থাকা প্রায় অসম্ভব ৷ তাই খিদে বা তেষ্টা পেলে স্টেডিয়ামের ভিতর নির্দিষ্ট কাউন্টার থেকে কিনে খাওয়া ছাড়া উপায় নেই ৷ কিন্তু ছাত্রছাত্রীদের জন্য যা বেশ সমস্যার ৷ পড়ুয়াদের অনেকেই নিম্নবিত্ত পরিবার থেকে আসেন ৷ আবার সূদূর গ্রামেক স্কুল থেকেও ছাত্রছাত্রীরা মাঠে খেলা দেখতে আসছে ৷ তাদের সবার ভেতর থেকে কিনে খাওয়ার মতো সামর্থ্য নেই ৷

একটি সর্বভারতীয় দৈনিকের খবর অনুযায়ী, এই আবেদন আসলে ক্রীড়ামন্ত্রী অরূপ বিশ্বাসের মস্তিষ্কপ্রসূত ৷ মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের কাছে তিনিই ছোট ছোট ছেলেমেয়েদের এই অসুবিধার কথা তুলে ধরেন ৷

First published: 02:10:23 PM Oct 16, 2017
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर