এক নজরে দেখে নিন ২০১৬-এ গোটা বিশ্বে কী কী হল?

  • Pradesh18
  • Last Updated :
  • Share this:

    নীরব সু-কি সেনা ও কিউ বাহিনীর অত্যাচারে মায়ানমার ছেড়ে বাংলাদেশে আশ্রয় নিয়েছেন প্রায় ৫০ হাজার রোহিঙ্গাভুক্ত মানুষ। চরম মানবিকার লঙ্ঘনের ঘটনায় প্রতিনিধি দল পাঠানোর সুপারিশ রাষ্ট্রসংঘের। তাতে আবার প্রবল আপত্তি বিদেশমন্ত্রী আন সাং-সুকির। কয়েক হাজার রোহিঙ্গাকে হত্যা ও দেশছাড়া করার পরও নির্বিকার একদা মানবাধিকার আন্দোলনের অন্যতম মুখ।

    নজরে দক্ষিণ চিন সাগর চিন সাগরে আধিপত্য যুদ্ধ। চিন সাগরে বিতর্কিত অংশে চিনের অধিকার খারিজ করে রায় দেয় রাষ্ট্রসংঘের ট্রাইবুনাল। যার পরই ফিলিপিনসের বিতর্কিত জলসীমায় ঢোকে চিনের যুদ্ধজাহাজ। পালটা যুদ্ধজাহাজ পাঠায় আমেরিকা। জাহাজ ধংস্বের জন্য ক্ষেপণাস্ত্রও মোতায়েন করে মার্কিন সেনা। চিন সাগরের দখল নিয়ে উত্তেজনা কমার লক্ষণ নেই।

    জার্মানিতে নিষিদ্ধ বোরখা জার্মানিতে নয় বোরখা। মুখও ঢাকতে পারবে না মহিলারা। সিদ্ধান্ত জার্মান চ্যান্সেলক অ্যাঞ্জেলা মর্কেলের। চতুর্থবারের জন্য চ্যান্সেলর হওয়ার পর ডিসেম্বরেই নতুন সিদ্ধান্ত ঘোষণা মর্কেলের। আরও একধাপ এগিয়ে তাঁর দাবি, কোনও সভ্য সমাজেই বোরখা চলতে দেওয়া যায় না। এরপরই বোরখা নিষিদ্ধ করতে আইন পাশ করে জার্মান আইনসভা।

    নোবেল শান্তিতে বিতর্ক আবারও বিতর্কে নোবেল শান্তি পুরস্কার। কলম্বিয়ায় শান্তি প্রতিষ্ঠার জন্য পুরস্কৃত করা হয়েছিল প্রেসিডেন্ট জুয়ান ম্যানুয়াল স্যান্টোসকে। শান্তি চুক্তি ঘিরে বিক্ষোভ দমনের অভিযোগে মুখ পুড়েছে নোবেল কমিটির। স্যান্টোসের পুরস্কার আটকায়নি। তবে মতবিরোধ প্রকাশ্যে আসায় বিব্রত নোবেল কমিটি। অলিম্পিকে ঠান্ডা যুদ্ধ

    রাশিয়ান অ্যাথলেটদের ডোপ বিতর্ক রাশিয়ান অ্যাথলেটরা ডোপ করেছেন তা প্রমাণিত। তবে তার জের খেলার মাঠেই আটকে থাকল না।গণহারে ডোপের অভিযোগে, দেশের হয়ে অলিম্পিকে খেলার সুযোগ পেলেন না রুশ অ্যাথলেটরা।যে আসরে অংশগ্রহণই সর্বোচ্চ আদর্শ বলে ঘোষিত, তা এরপর ঢুকে পড়ল বিশ্ব রাজনীতির আঙিনায়। রুশ প্রেসিডেন্ট পুতিন, আন্তর্জাতিক চক্রান্তের নামে তোপ দাগলেন আমেরিকা আর ইওরোপকে।পাল্টা তোপে, রাজনীতি দিয়ে অলিম্পিক কলঙ্কিত করার অভিযোগ তুলল আমেরিকা। ’৮০ ও ’৮৪-র মস্কো ও লস অ্যাঞ্জেলস অলিম্পিকের পর, ফের গ্রেটেস্ট ইভেন্ট অন দ্য আর্থ-এ ঠান্ডা যুদ্ধের ছায়া।

    নেপালে ফের পরিবর্তন নতুন সংবিধানে মধেশি ও অন্য সংখ্যালঘুদের অধিকারের প্রশ্নে মতবিরোধ।দেশের ভিতরে বিক্ষোভ।ভারতের সঙ্গে সম্পর্কের অবনতি।বছরের শেষ দিকে শেষমেষ সরেই যেতে হল কেপি ওলিকে।নেপালের প্রধানমন্ত্রী পদে আবার প্রচন্ড।কট্টর ভারতবিরোধী পুষ্পকুমার দহল অবশ্য এবার নতুন অবতারে।চিনের সঙ্গে সুসম্পর্ক রাখলেও, শপথ নিয়েই প্রথম ভারতে এলেন।নিয়ে গেলেন প্রচুর অনুদান আর বিনিয়োগের প্রতিশ্রতি।দিয়ে গেলেন সুসম্পর্কের আশ্বাস।

    ঐতিহাসিক আইন এক শিশুর তিন বাবা-মা? এমনটাও সম্ভব। পথ দেখাল গ্রেট ব্রিটেন। বাবা-মায়ের জিনগত ক্রুটি থাকলে তৃতীয় বাবা-মায়ের শুক্রাণু বা ডিম্বানু ব্যবহার করা যাবে। ৩ জনের 'ভাল' জিন থেকেই জন্ম নেবে নীরোগ শিশু। এই ব্যবস্থা আইনি স্বীকৃতি পেল ব্রিটেনে। ফার্টিলিটি রেগুলেশন বোর্ডের অনুমতি পেলেই তা প্রয়োগ করা যাবে। সৃস্টি-তরঙ্গের খোঁজ

    সৃষ্টিরহস্য সমাধানের পথে অগ্রগতি ২০১৬-র ১১ ফেব্রুয়ারি জ্যোতির্পদার্থবিজ্ঞানের ক্যালেন্ডারে ঐতিহাসিক দিন হয়ে থেকে গেল। প্রথমবারের জন্য লাইগো ঘোষণা করল, মহাকর্ষ তরঙ্গের খোঁজ মিলেছে।দুটি ব্ল্যাক হোল পরস্পর মিশে গেলে যে তরঙ্গের উৎপত্তি হয়।১৫ জুন দ্বিতীয়বারের ঘোষণা।আইনস্টাইনের আপেক্ষিকতার নোবেল জয়ী তত্ত্বে যার গাণিতিক প্রমাণ ছিল।যার তাত্ত্বিক অস্তিত্ত্ব নিয়ে কোনও সংশয় ছিল না। তবে পরীক্ষাগারে প্রমাণ মেলেনি।শেষমেশ একইবছরে দু-দুবার তার প্রমাণ পেলেন বিজ্ঞানীরা।সৃষ্টিরহস্য সমাধানে আর একটু এগোলাম আমরা।

    First published: