কন্যাসন্তান পাওয়ার মনোবাঞ্ছা পূরণ না হওয়ায় ছেলের গলা কেটে খুন করল মা

কন্যাসন্তান পাওয়ার মনোবাঞ্ছা পূরণ না হওয়ায় ছেলের গলা কেটে খুন করল মা

এ তো উলটপুরাণ ৷ এত দিন শুনে এসেছি পুত্র সন্তানের কামনায় বিভিন্ন রকমের মানত রাখা হত ৷ এমনকি প্রতিদিন দেশের বিভিন্ন প্রান্তে কত না কন্যাভ্রুণ নষ্ট করে দেওয়া হয়েছে ৷ কিন্তু কন্যাসন্তান না হওয়ায় নিজের সদ্যোজাত পুত্র সন্তানকে খুন করলেন মা ৷ অবাক লাগলেও এটাই সত্যি ৷ জানা গিয়েছে, ২৩ দিনের ছেলের গলার নলি কেটে খুন করল মা ৷ মর্মান্তিক এই ঘটনা তেলাঙ্গানার নেরেদমাট এলাকার ৷

এ তো উলটপুরাণ ৷ এত দিন শুনে এসেছি পুত্র সন্তানের কামনায় বিভিন্ন রকমের মানত রাখা হত ৷ এমনকি প্রতিদিন দেশের বিভিন্ন প্রান্তে কত না কন্যাভ্রুণ নষ্ট করে দেওয়া হয়েছে ৷ কিন্তু কন্যাসন্তান না হওয়ায় নিজের সদ্যোজাত পুত্র সন্তানকে খুন করলেন মা ৷ অবাক লাগলেও এটাই সত্যি ৷ জানা গিয়েছে, ২৩ দিনের ছেলের গলার নলি কেটে খুন করল মা ৷ মর্মান্তিক এই ঘটনা তেলাঙ্গানার নেরেদমাট এলাকার ৷

  • Pradesh18
  • Last Updated :
  • Share this:

    #হায়দরাবাদ: এ তো উলটপুরাণ ৷ এত দিন শুনে এসেছি পুত্র সন্তানের কামনায় বিভিন্ন রকমের মানত রাখা হত ৷ এমনকি প্রতিদিন দেশের বিভিন্ন প্রান্তে কত না কন্যাভ্রুণ নষ্ট করে দেওয়া হয়েছে ৷ কিন্তু কন্যাসন্তান না হওয়ায় নিজের সদ্যোজাত পুত্র সন্তানকে খুন করলেন মা ৷ অবাক লাগলেও এটাই সত্যি ৷ জানা গিয়েছে, ২৩ দিনের ছেলের গলার নলি কেটে খুন করল মা ৷ মর্মান্তিক এই ঘটনা তেলাঙ্গানার নেরেদমাট এলাকার ৷

    অভিযুক্ত পূর্ণিমা (৩০) দুই সন্তানের মা ৷ প্রথমে মহিলা জানান, ঘটনার দিন কয়েকজন ছিনতাইবাজরা রাস্তায় তার উপর হামলা চালায় । তার মুখে তরল পদার্থ ঢেলে দেয় দুষ্কৃতিরা ৷ এর জেরে জ্ঞান হারান পূর্ণিমা ৷ এরপর জ্ঞান ফিরলে তিনি দেখেন যে গলার নলি কাটা অবস্থায় তার পুত্র সন্তান পরে রয়েছে ৷ এবং তার গলার সোনার চেনটিও নেই ৷ শিশুটিকে হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসকেরা তাকে মৃত বলে ঘোষণা করে ৷

    পূর্ণিমার বয়ান অনুযায়ী খুনের মামলা রুজু করে পুলিশ ৷ কিন্তু ঘটনাস্থলে পৌঁছলে পূর্ণিমা দেওয়া বয়ানে অসঙ্গতি মেলায় তাদের সন্দেহ হয় ৷ তারপর দীর্ঘক্ষণ তাকে জেরা করলে পূর্ণিমা স্বীকার করেন যে তিনি কন্যাসন্তান চেয়েছিলেন ৷ ছেলে হওয়ায় তিনি একদম খুশি ছিলেন না ৷ তাই সে নিজেই তার সদ্যোজাত পুত্র সন্তানকে খুন করে ৷ তার বিরুদ্ধে খুনের অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে।

    First published:

    লেটেস্ট খবর