• Home
  • »
  • News
  • »
  • uncategorized
  • »
  • চলতি বছর মহিষাদলে ইভটিজিংয়ের ঘটনা নাড়িয়ে দিয়েছিল গোটা রাজ্যকে

চলতি বছর মহিষাদলে ইভটিজিংয়ের ঘটনা নাড়িয়ে দিয়েছিল গোটা রাজ্যকে

 চলতি বছর মহিষাদলে ইভটিজিং এবং তার জেরে ছাত্রীর মৃত্যুর ঘটনা নাড়িয়ে দিয়েছিল গোটা রাজ্যকে। প্রশ্ন উঠেছিল পুলিশের ভূমিকা নিয়েও।

চলতি বছর মহিষাদলে ইভটিজিং এবং তার জেরে ছাত্রীর মৃত্যুর ঘটনা নাড়িয়ে দিয়েছিল গোটা রাজ্যকে। প্রশ্ন উঠেছিল পুলিশের ভূমিকা নিয়েও।

চলতি বছর মহিষাদলে ইভটিজিং এবং তার জেরে ছাত্রীর মৃত্যুর ঘটনা নাড়িয়ে দিয়েছিল গোটা রাজ্যকে। প্রশ্ন উঠেছিল পুলিশের ভূমিকা নিয়েও।

  • Pradesh18
  • Last Updated :
  • Share this:

    #মহিষাদল: চলতি বছর মহিষাদলে ইভটিজিং এবং তার জেরে ছাত্রীর মৃত্যুর ঘটনা নাড়িয়ে দিয়েছিল গোটা রাজ্যকে। প্রশ্ন উঠেছিল পুলিশের ভূমিকা নিয়েও।

    ২১ অক্টোবর, ২০১৬ : গৃহশিক্ষকের কাছে যাওয়ার জন্য বাড়ি থেকে বেরোয় তিন ছাত্রী। হলদিয়া-মেচেদা ৪১ নম্বর জাতীয় সড়ক ধরে গারুঘাটার দিকে যাচ্ছিল তারা। হঠাৎই জাতীয় সড়কের ওপর ইভটিজারদের খপ্পরে পড়ে তিনজন। প্রত্যক্ষদর্শীদের মতে, সে সময় এই গাড়ি ছাত্রীদের পিছু নেয়। চলন্ত গাড়ি থেকেই উড়ে আসে একের পর এক কটূক্তি। সম্মান বাঁচাতে ছুটে পালানোর চেষ্টা করে ছাত্রীরা। গতি বাড়িয়ে গাড়িটি তাদের পিছু নেয়। নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে এক ছাত্রীকে পিষে দেয় গাড়িটি। ঘটনাস্থলেই মৃত্যু হয় তাজপুর হাইস্কুলের একাদশ শ্রেণির ছাত্রী মধুমিতা বাগের। আহত অবস্থায় স্থানীয় হাসপাতালে ভর্তি করা হয় বাকি ২ ছাত্রীকে ৷

    এলাকাবাসী গাড়ির চালক ও সওয়ারিকে ধরে ফেললেও, আরেক অভিযুক্ত চম্পট দেয়। পরে চালক ও সওয়ারিকে গ্রেফতার করা হয়। কিন্তু হলদিয়া মহকুমা আদালতে পুলিশ ধৃতদের হেফাজতেই চায়নি।

    পুলিশের ভূমিকায় প্রশ্ন

    - ইভটিজিং-এর ঘটনা অস্বীকার করে পুলিশ - অস্বীকার করা হয় মত্ত অবস্থায় গাড়ি চালানোর অভিযোগও - কিন্তু প্রত্যক্ষদর্শীদের বয়ান ও পরিপাশ্বিক প্রমাণ ইভটিজিংয়ের ঘটনাকেই জোরালো করছিল - প্রশ্ন ওঠে, মহিষাদলকাণ্ডে কি দোষীদের আড়ালের চেষ্টা করে মেদিনীপুর জেলা পুলিশ?

    ইভটিজারদের হাতে ছাত্রী মৃত্যুর ঘটনায় কড়া ব্যবস্থার নির্দেশ দেন মুখ্যমন্ত্রী বন্দ্যোপাধ্যায়। তা সত্ত্বেও এই গা ছাড়া মনোভাবে প্রশ্নের মুখে দাঁড়িয়েছিল পুলিশের ভূমিকা।

    First published: