মদনের জামিন খারিজে মরিয়া সিবিআই

মদন মিত্রের জামিনে কার্যত দিশেহারা সিবিআই। দ্রুত তাঁর জামিন খারিজের মামলার শুনানি চেয়ে দিনভর আদালতে পড়ে রইলেন সিবিআইয়ের তদন্তকারী অফিসার।

মদন মিত্রের জামিনে কার্যত দিশেহারা সিবিআই। দ্রুত তাঁর জামিন খারিজের মামলার শুনানি চেয়ে দিনভর আদালতে পড়ে রইলেন সিবিআইয়ের তদন্তকারী অফিসার।

  • Pradesh18
  • Last Updated :
  • Share this:

    #কলকাতা: মদন মিত্রের জামিনে কার্যত দিশেহারা সিবিআই। দ্রুত তাঁর জামিন খারিজের মামলার শুনানি চেয়ে দিনভর আদালতে পড়ে রইলেন সিবিআইয়ের তদন্তকারী অফিসার। মামলার গুরুত্ব বোঝাতে হাইকোর্টে হাজির ছিলেন সিবিআইয়ের পুলিশ সুপারও। দিনের শেষে প্রধান বিচারপতির মৌখিক আশ্বাস নিয়েই আদালত ছাড়লেন সিবিআইয়ের বিশেষ কৌশলী। মদন মিত্রের জামিন খারিজের মামলার দ্রুত শুনানি চেয়ে কলকাতা হাইকোর্টে সিবিআই। সোমবার ফের বিচারপতি অসীমকুমার রায়ের ডিভিশন বেঞ্চে আবেদন করেন সিবিআইয়ের বিশেষ আইনজীবী।

    কোর্ট রুমে সিবিআইয়ের বিশেষ আইনজীবী, কে রাঘরচারুল্ল্যু বলেন, ‘অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ মামলা। নিম্ন আদালতের দেওয়া জামিনের একটি শর্ত ইতিমধ্যেই সংশোধিত হয়েছে। আরও একটি শর্ত সংশোধনের আবেদন করা হয়েছে। জরুরি ভিত্তিতে মামলার শুনানি প্রয়োজন ৷ সিবিআইয়ের আবেদন ফের নাকচ করে ডিভিশনবেঞ্চ।

    জবাবে বিচারপতি অসীমকুমার রায় বলেন , ‘সিবিআইকে অপেক্ষা করতেই হবে। হাইকোর্টে মামলার পাহাড়। সিবিআইয়ের আবেদন গ্রহণ করলে অন্যদের সঙ্গে দ্বিচারিতা হবে। মামলাটি তালিকা মেনেই শুনানিতে আসবে।’

    দুপুরে হাইকোর্টে আসেন সিবিআইয়ের পুলিশ সুপার। তাঁদের বক্তব্য লিখিত ভাবে প্রধান বিচারপতিকে জানায় সিবিআই। তবে দিনের শেষে প্রধান বিচারপতির মৌখিক আশ্বাসই ভরসা সিবিআইয়ের।

    সারদাকাণ্ডে সৃঞ্জয় বসু, দেবব্রত সরকার, রজত মজুমদারের মত অনেকেই জামিনে মুক্ত। অন্যদের ক্ষেত্রে সিবিআই নীরব ও মদন মিত্রে সরব থাকায় ইতিমধ্যেই প্রশ্ন উঠছে। সিবিআইয়ের এই মনোভাব কি অন্য কোন উদ্দেশ্যে? সারদায় ক্ষতিগ্রস্ত অামানতকারীদের একাংশের মনে উঠেছে এই প্রশ্ন ৷

    First published: