তিন তালাক প্রথা একটি অনভিপ্রেত ও তিক্ত সমাধান: সু্প্রিম কোর্ট

তিন তালাকের সাংবিধানিক বৈধতা নিয়ে দ্বিতীয় দিনের শুনানি শুরু সুপ্রিম কোর্টে। ছ'দিনের শুনানি শেষ করে এনিয়ে রায় দেবে শীর্ষ আদালত।

Elina Datta | News18 Bangla
Updated:May 12, 2017 08:13 PM IST
তিন তালাক প্রথা একটি অনভিপ্রেত ও তিক্ত সমাধান: সু্প্রিম কোর্ট
Elina Datta | News18 Bangla
Updated:May 12, 2017 08:13 PM IST

#নয়াদিল্লি: তিন তালাকের সাংবিধানিক বৈধতা নিয়ে দ্বিতীয় দিনের শুনানিতে এমনটাই মন্তব্য সুপ্রিম কোর্টের। তিন তালাক অত্যন্ত জঘন্য, অনঅভিপ্রেত সমাধান ৷ ‘বিবাহবিচ্ছেদের সব থেকে খারাপ রূপ তিন তালাক ৷ সাংবিধানিক অধিকার খর্ব করে তিন তালাক’,প্রথম পর্যবেক্ষণে সুপ্রিম কোর্টের মন্তব্য ৷ শুনানি চলাকালীন শীর্ষ আদালতের মন্তব্য,‘সংবিধানে প্রদত্ত সাম্যের অধিকার লঙ্ঘিত হয় ৷ তিন তালাকে সাম্যের অধিকার লঙ্ঘিত হয় ৷’ সুপ্রিম কোর্টকে জানালেন সংবিধান বিশেষজ্ঞ রাম জেঠমালানি ৷

ছ'দিনের শুনানি শেষ করে এনিয়ে রায় দেবে শীর্ষ আদালত। তিন তালাক নিয়ে জমা পড়া পাঁচটি পৃথক রিট পিটিশনের ভিত্তিতেই শুরু হল শুনানি। ইসলাম ধর্মের সঙ্গে তিন তালাকের কোনও মৌলিক সম্পর্ক আছে কিনা তা খতিয়ে দেখবেন পাঁচ বিচারপতির সাংবিধানিক বেঞ্চ। অল ইন্ডিয়া মুসলিম পার্সোনাল ল'বোর্ড বিবাহ বিচ্ছেদে তিন তালাকের পক্ষেই সওয়াল করেছে। প্রধান বিচারপতির নেতৃত্বাধীন বেঞ্চের নির্দেশ, তিন তালাকের পাশাপাশি খতিয়ে দেখা হবে নিকাহ হালালের সাংবিধানিক বৈধতাও।

‘কোন কোন দেশে তিন তালাক নিষিদ্ধ’, তা জানতে চেয়ে কেন্দ্রকে নোটিস দিয়েছে শীর্ষ আদালত ৷ ‘অ-ইসলামিক দেশগুলিতে কোথায় চালু এই প্রথা?’ তাও কেন্দ্রকে লিখিতভাবে জানাতে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে ৷

দ্বিতীয় দিনের শুনানির শুরুতেই প্রধান বিচারপতি জানতে চান, তিন তালাক কি ইসলাম ধর্মের অংশ? তিন তালাক িনয়ে ধর্মীয় আইনে কী নির্দেশ?

এর উত্তরে সলমন খুরশিদের জবাব তিন তালাকের সঙ্গে ইসলামের সম্পর্ক নেই ৷ একইসঙ্গে তিনি বলেন, ‘তিন তালাক অন্য কোনও দেশে নেই ৷ শুধু ভারতেই এই প্রথা প্রচলিত ৷ তিন তালাকের মত পাপ আর নেই ৷’ সলমন খুরশিদ সুপ্রিম কোর্ট নিযুক্ত আদালত বান্ধব ৷ অন্যদিকে, সংবিধান বিশেষজ্ঞ রাম জেঠমালানির সওয়াল, ‘তিন তালাক শরিয়তের অংশও নয় ৷’

দুই আবেদনকারীর আইনজীবী ছাড়াও প্রথম দিনেই সওয়াল করলেন মুসলিম পার্সোনাল ল বোর্ডের আইনজীবী কপিল সিব্বল। সংবিধানের ১৩ নম্বর ধারায় ধর্মীয় আইনকে অন্তর্ভুক্ত করা উচিত। এই দাবি তুলেই সওয়াল অন্যতম আবেদনকারী শবনম বানুর। যার বিরোধিতায় পাল্টা যুক্তি মুসলিম পার্সোনাল ল’বোর্ডের।

মামলার আবেদনকারী আইনজীবী এদিন বলেন,  তিন-তালাকের মতো প্রথায় সাংবিধানিক অধিকার থেকে বঞ্চিত মহিলারা। মুসলিম মহিলাদেরও সাংবিধানিক রক্ষাকবচের অধিকার রয়েছে। সেই অধিকার পেতে নির্দেশ দিক আদালত।

এআইএমপিএলবি আইনজীবি  কপিল সিবালের যুক্তি, এটা আদালতের বিবেচ্য বিষয়ই নয়। সংবিধান কখনই ধর্মীয় আইনকে অবৈধ ঘোষণা করেনি। ধর্মীয় আইনের সঙ্গে সাংবিধানিক অধিকারের কোনও লড়াই থাকতে পারে না।

তিন তালাকের অবসান চেয়ে আবেদন করেছিলেন মুসলিম মহিলা ও মানবাধিকার সংগঠন। এমনই ৫টি আবেদনের ভিত্তিতেই এই শুনানির সিদ্ধান্ত নেয় সুপ্রিম কোর্ট। ৫ ধর্মের ৫ বিচারপতিকে নিয়ে তৈরি হয় সাংবিধানিক বেঞ্চ। কোন পথে মামলা চলবে তাও স্পষ্ট করে দেয় আদালত।

-বহুবিবাহ নিয়ে কোনও বক্তব্যই শুনবে না আদালত

-তিন তালাকের সাংবিধানিক বৈধতাই খতিয়ে দেখা হবে

-তিন তালাকে সংবিধানের ২৫(১) ধারা ক্ষুণ্য হয় কিনা, তাও খতিয়ে দেখবে আদালত

-মানবাধিকার লঙ্ঘনের অভিযোগও বিবেচনা করবে সাংবিধানিক বেঞ্চ

-৬ দিন শুনানির পরই মামলার রায়

-প্রয়োজনে শনি-রবিবারও শুনানি হবে

মুসলিম পার্সোনাল ল বোর্ড ছাড়াও তিন তালাকের পক্ষে সওয়াল করতে আদালতে ১৭টি আবেদন জমা পড়েছে। শুক্রবার এনিয়ে সিদ্ধান্ত নেবে শীর্ষ আদালত।

তিন তালাকের পাশাপাশি নিকা-হালাল নিয়েও সিদ্ধান্ত জানাবে আদালত। তুরস্ক, মিশর সহ বহু মুসলিম রাষ্ট্রের পাশাপাশি পাকিস্তান ও বাংলাদেশেও নিষিদ্ধ হয়েছে তিন-তালাক। ইসলামের সঙ্গে তিন-তালাকের সম্পর্ক নেই বলেই এই সিদ্ধান্ত।

উল্লেখ্য,  তিন তালাক শুনানিতে অংশ নিতে ৫০০-রও বেশি আবেদন জমা পড়েছে সুপ্রিম কোর্টে ৷ শুনানির শুরুতেই  প্রধান বিচারপতি জানালেন, ‘নতুন করে কোনও আবেদন গ্রাহ্য নয় ৷ ’

First published: 02:32:23 PM May 12, 2017
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर