করোনা আক্রান্তদের দ্রুত খাবার পৌঁছে দেবে Zomato, আপডেটে মিলবে ইমার্জেন্সি পরিষেবা

করোনা আক্রান্তদের দ্রুত খাবার পৌঁছে দেবে Zomato, আপডেটে মিলবে ইমার্জেন্সি পরিষেবা

করোনা আক্রান্তদের দ্রুত খাবার পৌঁছে দেবে Zomato, আপডেটে মিলবে ইমার্জেন্সি পরিষেবা!

জানা গিয়েছে, এই আপডেট iOS ও অ্যান্ড্রয়েড উভয় ক্ষেত্রেই প্রযোজ্য

  • Share this:

#নয়াদিল্লি: দেশে হু-হু করে বাড়ছে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা। বাড়ছে মৃতের সংখ্যাও। গত ২৪ ঘণ্টায় ভারতে আক্রান্ত ৩ লাখ ১৪ হাজার মানুষ। যা গত প্রায় দেড় বছরে সব চেয়ে বেশি। যত দিন যাচ্ছে করোনা গ্রাফ উর্ধ্বমুখী। এই পরিস্থিতিতে অনেকেই বাড়িতে একা রয়েছে, করোনার ফলে খাবার বানানো সম্ভব হচ্ছে না। অনেকেরই আবার বাড়ির সকলেই আক্রান্ত ও অসুস্থ ফলে রান্না করার পরিস্থিতি নেই। এই সব মানুষের জন্যই এবার ফুড ডেলিভারি অ্যাপ Zomato নিয়ে এল ইমারজেন্সি সার্ভিস। যা অ্যাপটির নতুন আপডেটে পাওয়া যাবে। জানা গিয়েছে, এই আপডেট iOS ও অ্যান্ড্রয়েড উভয় ক্ষেত্রেই প্রযোজ্য।

করোনায় আক্রান্ত, ফলে ফুড ডেলিভারি অ্যাপই ভরসা, কিন্তু খাবার দরকার খুব তাড়াতাড়ি। এই পরিস্থিতিতে করোনা আক্রান্তদের কথা মাথায় রেখে এই ফুড ডেলিভারি নিয়ে এল এই সার্ভিস। সংস্থার তরফে জানানো হয়েছে, এই পরিষেবা যারা ব্যবহার করবে, তাদের আলাদা করে চিহ্নিত করে আগে খাবার পৌঁছে দেবে তারা।

এর জন্য Zomato-য় ফাস্টেস্ট রাইডার হিসেবে চিহ্নিতদেরই এই খাবার পৌঁছানোর দায়িত্ব দেওয়া হবে। এবং এই অর্ডারগুলিকে আলাদাভাবে হ্যান্ডেল করবে তারা। এছাড়াও এই প্রত্যেকটি অর্ডার কনট্যাক্টলেস হবে বলেও জানানো হয়েছে।

তবে, এক্ষেত্রে বার বার সংস্থার তরফে আবেদন করা হয়েছে, যারা সত্যিই ইমারজেন্সিতে রয়েছেন তারাই এই পরিষেবা ব্যবহার করুন।

News18-কে সংস্থা জানিয়েছে, তারা এই পরিষেবার জন্য কোনও রকম অতিরিক্ত চার্জ করবে না। এর জন্য কোনও রকম টাকা আলাদা করে অ্যাপকে দিতে হবে না। খাবার টাকা ও বাকি ট্যাক্স ও ডেলিভারি টার্জ যা থাকে, তাই থাকবে। প্রত্যেক ডেলিভারি পার্সনের তাপমাত্রা মেপে খাবার পাঠানো হবে। তবে, এক্ষেত্রে পছন্দের রেস্তোরাঁ থেকেই যে উক্ত ব্যক্তি খাবার পাবেন ইমার্জেন্সিতে তা নয়, কারণ এই পরিষেবার সঙ্গে যে সব রেস্তোরাঁ যুক্ত হয়েছে, শুধু তাদের থেকেই এই খাবার পাওয়া যাবে।

এবিষয়ে সংস্থার কর্নধার দীপিন্দার গয়াল জানিয়েছেন, এই পরিস্থিতিতে মানুষের সেবার হাত বাড়িয়ে দেওয়ার জন্য রেস্তোরাঁগুলিকে অসংখ্য ধন্যবাদ। তাঁর একটাই আবেদন, এই পরিষেবাকে অ্যাম্বুল্যান্সের মতো করেই ভাবুন। একে আলাদা ভাববেন না। দয়া করে এর অপব্যবহার করবেন না।

এই ধরনের পরিষেবা দেওয়ার পাশাপাশি বাড়ির খাবার বিনামূল্যে কোভিড রোগীদের দিচ্ছে অনেক সংস্থা। অনেকে আবার বাজার করে দেওয়া থেকে খাবার পৌঁছে দেওয়াও করছে।

Published by:Ananya Chakraborty
First published:

লেটেস্ট খবর