Home /News /technology /

সাবধান! ২৩ কোটি ইনস্টাগ্রাম, টিকটক ও ইউটিউব ব্যবহারকারীদের তথ্য ফাঁস

সাবধান! ২৩ কোটি ইনস্টাগ্রাম, টিকটক ও ইউটিউব ব্যবহারকারীদের তথ্য ফাঁস

গাল যে স্ক্রিনশটটি শেয়ার করেছেন, তাতে দেখা যাচ্ছে, ২০২১-এর ১২ জানুয়ারি থেকে bot অ্যাক্টিভ রয়েছে। কিন্তু তথ্য পাচার শুরু করেছে ২০১৯ সাল থেকে। যদিও তথ্য দেখে মনে হতে পারে এটি পুরনো তথ্য, কিন্তু সেই তথ্য দিয়েই কেউ অন্যান্য তথ্য বা অ্যাকাউন্ট হ্যাক করছে কি না তা কিন্তু বোঝা যাবে না!

গাল যে স্ক্রিনশটটি শেয়ার করেছেন, তাতে দেখা যাচ্ছে, ২০২১-এর ১২ জানুয়ারি থেকে bot অ্যাক্টিভ রয়েছে। কিন্তু তথ্য পাচার শুরু করেছে ২০১৯ সাল থেকে। যদিও তথ্য দেখে মনে হতে পারে এটি পুরনো তথ্য, কিন্তু সেই তথ্য দিয়েই কেউ অন্যান্য তথ্য বা অ্যাকাউন্ট হ্যাক করছে কি না তা কিন্তু বোঝা যাবে না!

ইউজারদের কন্ট্যাক্ট ডিটেইলস, নাম, ছবি ইত্যাদি তথ্য দেয়া হয়েছে ডার্ক ওয়েবে !

  • Share this:

    ইনস্টাগ্রাম (instagram), টিকটক (TikTok) এবং গুগলের ইউটিউব (Youtube) নিয়ে বড় একটি খবর সামনে এসেছে। জানা গিয়েছে যে এই তিনটি প্লাটফর্মের প্রায় সাড়ে ২৩ কোটি ব্যবহারকারীর ডেটা ফাঁস হয়েছে। রিপোর্ট অনুযায়ী, এসব ব্যবহারকারীর ব্যক্তিগত ডেটা, নাম, প্রোফাইলের তথ্য, ছবি, অ্যাকাউন্টের বিস্তারিত, ফলোয়ার সংখ্যা, লাইক সংখ্যা সবকিছুই ডার্ক ওয়েবে রয়েছে। প্রো-কঞ্জিউমার ওয়েবসাইট Comparitech-এর সিকিউরিটি রিসার্চার জানিয়েছে যে এই ডেটা ব্রিচের পিছনে ‘unsecured data’ রয়েছে।

    এর মধ্যে যে দুটি বিশেষ ডেটা সেট রয়েছে তাতে প্রায় ১০ কোটি ব্যবহারকারীর ডেটা সঞ্চয় রয়েছে। এর মধ্যে এমন ব্যবহারকারীদের প্রোফাইলের ডেটা রয়েছে যা ইনস্টাগ্রাম থেকে সরানো হয়েছে। তৃতীয় বৃহত্তম ডেটা সেটটিতে ৪.২ কোটি টিকিটক ব্যবহারকারীদের ডেটা ছিল। এছাড়াও ডেটা সেটে প্রায় ৪০ লক্ষ ইউটিউব ব্যবহারকারীদের প্রোফাইল ছিল। রিপোর্টে বলা হয়েছে যে এতে ব্যবহারকারীদের প্রোফাইলের নাম, প্রোফাইল ছবি, বয়স, লিঙ্গ, আসল নাম, ফোন নম্বর, অ্যাকাউন্টের বিবরণ, ফলোয়ার সংখ্যা আর লাইক সব ডিটেল রয়েছে।

    Comparitec-এর এডিটর Paun Bischoff বলেছেন যে স্প্যামার আর সাইবার ক্রিমিনালদের জন্য এই শন তথ্য অনেক কাজের, এর সাহায্যে তাঁরা ফিসিং কোম্পানি চালাতে পারে। রিসার্চের অনুযায়ী, ফাঁস হওয়া তথ্যের পিছনে Deep Social নামের একটি কোম্পানির হাত রয়েছে। যা ২০১৮ সালে ফেসবুক আর ইনস্টাগ্রাম ব্যবহারকারীদের প্রোফাইল স্ক্র্যাপ করার জন্য ব্যান করা হয়েছিল। যদিও ক্যাম্পরিটেক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে যে সোশ্যাল ডেটা ডিপ সোশ্যালের সঙ্গে কোনও রকমের সংযোগ অস্বীকার করেছে।

    ক্যাম্পরিটেক এও জানিয়েছে যে, রিপোর্ট করার পর ডেটা মার্কেটিং কোম্পানি সোশ্যাল ডেটা unsecured data বেস বন্ধ করে দিয়েছে। এই মাসের শুরুতে, ShinyHunters নামে একটি হ্যাকার গ্রুপ ১৮টি কোম্পানির ৩৮.৬ কোটি ব্যবহারকারীর ডেটা চুরি করেছে। প্রসঙ্গত, গত বছরেও এমন একটি ডেটা স্ক্র্যাপিংয়ের ঘটনা সামনে আসে, যেখানে লক্ষ লক্ষ ফেসবুক ইউজারের ডেটা ফাঁস হয়।

    Published by:Ananya Chakraborty
    First published:

    Tags: Instagram, TikTok, Youtube

    পরবর্তী খবর