corona virus btn
corona virus btn
Loading

এই মোবাইল চোর কোনও যেমন তেমন চোর নয়, নিমেষে বদলে ফেলতে পারে IMEI !

এই মোবাইল চোর কোনও যেমন তেমন চোর নয়, নিমেষে বদলে ফেলতে পারে IMEI !
Photo: News18 Bangla
  • Share this:

#কলকাতা: ট্রেনে বাসে বাদুড় ঝোলা। ভিড়ে ভারসাম্য রাখতে কোনওক্রমে ওপরের রড খুঁজে নেওয়া। কখনও পাশের। কখনও সামনের সিট ধরে ধাক্কা সামলানো। নিত্যদিন ঘণ্টাখানেকের যাত্রার পর যখন নামলেন নিজের গন্তব্যে। দেখলেন, পকেটের মালপত্র উধাও ! মোবাইল নেই। মানিব্যাগ হাপিস। তখন বুঝলেন কি সব্বোনাশ হয়েছে !

কেউ বলেন দুই আঙ্গুলের কারসাজি। কেউ স্রেফ বোকা বনে যান। কেউ রাগে গনগণে। পকেটমার হলে যার হয় তিনি বোঝেন। কিন্তু মোবাইল গেলে ? ভ্যাবাচাকা মুখ জানতে চায় এবার কি হবে ? নাম্বার ব্লক কর রে।  সার্ভিস প্রোভাইডারকে ফোন কর। ক্রেডিট আর ডেভিড কার্ডের পিন নম্বরও যে ওখানে লেখা ! নেট ব্যাঙ্কিং-এর গোপনীয়তাও মোবাইল নির্ভর। তারপর যাবতীয় ছবি। কিছু ব্যক্তিগত মুহূর্ত। ডাউনলোডের নথি। মোদ্দা কথা মোবাইল যাওয়া মানে আধখানা দুনিয়া বেহাত যেন।

এমনই এক মোবাইল লিফটারের নাম মহম্মদ ফৈয়াজ অথবা রাজা। তবে এটা তার আসল নাম কী না, তা নিয়ে সন্দেহ রয়েছে ৷ শর্ত একটাই, কলকাতার পথে ঘাটে এর সঙ্গে দেখা হলে, সেই নামেই ডাকবেন।নিজের মুখেই সে জানায়, মোবাইল চুরি করে সে কী কী কারসাজি দেখাতে পারে !

না জিন্স-ট্রাউজারের পকেট। না কোনও মহিলার বটুয়া কিম্বা ব্যাগ। কিছুই সুরক্ষিত নয়, এই রাজাবাবুর দু’আঙ্গুলের কারসাজিতে। মূলত বাসে ট্রেনে চলে তাঁর অপারেশন। স্মুথ আর শার্প। আপনার চোখের সামনেই, আপনার পকেট থেকে, সাফা হয়ে যেতে পারে আপনার মোবাইল।পেশায় চোর হলেও আত্মসম্মান আবার টনটনে। একটা কথা প্রচলিত। পিক-পকেটাররা নাকি তাঁদের গ্রুপ নিয়ে অপারেশন চালায়। কিন্তু এই রাজাবাবু পরিষ্কার জানাল তাঁর কোন দলবল নেই। সে একাই শের। একাই লিফটার।

আপনি চাইলে হাতে কলমে দেখিয়েও দেবে তার দু’আঙ্গুলের কারসাজি। নিউজ১৮-এর অনুরোধও ফেলতে পারল না সে। পাশে দাঁড়ানো ভদ্রলোকের পকেট থেকে নিঃশব্দে তুলে নিলেন মোবাইল। এমনকি স্পর্শ দোষও নেই। পকেট থেকে মোবাইল একটু মাথা তুলে রাখলে হাপিস করা সোজা। বড় স্মার্ট ফোন যারা ব্যবহার করেন তাঁরা সাবধান। আর পকেটে ঢোকান থাকলে একটু চাপ হয় বটে। কিন্তু সে কাজটাও জলবৎ।   তবে একটা গোপন কথা জানিয়েছে আমাদের এই মোবাইল লিফটার। পুলিশে গেলেও ফেরত পাবেন না মোবাইল। কারণ মোবাইল হাতে নেওয়ার পর কারখানায় পৌঁছতে যতটুকু সময়। তারপর মাত্র আধা ঘণ্টা। ব্যাস আপনার মোবাইলের নাম ঠিকানা জন্ম বৃত্তান্ত সব ভ্যানিস।

মোদ্দা কথা হল IMEI নম্বরটাই বদলে দেওয়া হয়। IMEI অর্থাৎ ইন্টারন্যাশনাল মোবাইল ইক্যুইপমেন্ট আইডেন্টিটি। IMEI হল একটা ইউনিক ১৫ ডিজিটের নাম্বার। যা সমস্ত মোবাইলের ক্ষেত্রে আলাদা। *#06# ডায়াল করে আপনিও আপনার মোবাইলের IMEI নাম্বার জানতে পারেন। যা আপনার পরিবারের কারোর সঙ্গেই মিলবে না। এই IMEI নম্বরটাই হল, মোবাইলের আইডেন্টিটি। যেকারনে ফোন হারালে ফোনটাকে ব্লক করা সম্ভব, ট্র্যাক করাও সহজ। কিন্তু এই IMEI নম্বরই বদলাতে বিশেষ সময় নেয় না রাজা ৷

একটাই দুঃখ।। সব মোবাইলকে কাবু করতে পারলেও মহম্মদ ফৈয়াজ অথবা রাজাবাবু নাকি আই-ফোন চুরি করে না। শুধু সে কেন, কোনও পকেটমাররাই নাকি আই ফোন এড়িয়ে চলে সুসংবাদ একটাই আইফোনের IMEI নম্বর বদলের কায়দা কানুন এখন বুঝে উঠতে পারেনি কলকাতার মোবাইল লিফটাররা।

তাই বলে আই-ফোন জিন্দাবাদ বলার কোন কারণ নেই। এই মোবাইল চোরেদের গ্রুপে রীতিমত সফটওয়ার ইঞ্জিনিয়াররাও এখন হাত পাকাচ্ছে। রাজাবাবুর গ্রুপ বা দল একটা ছোট দল মাত্র। আরও সফেস্টিকেটেড মোবাইল লিফটার গ্রুপ আছে কলকাতায়। কিন্তু তারা সামনে আসতে চাইছে না এখনও।

First published: November 2, 2017, 7:25 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर