প্রযুক্তি

?>
corona virus btn
corona virus btn
Loading

RAISE 2020: কৃত্রিম মেধার গ্লোবাল হাব হবে ভারত, দাবি প্রধানমন্ত্রীর

RAISE 2020: কৃত্রিম মেধার গ্লোবাল হাব হবে ভারত, দাবি প্রধানমন্ত্রীর
প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি৷

অদূর ভবিষ্যতে আরও বেশি সংখ্যক ভারতীয় এই বিষয়টি নিয়ে কাজ করবেন বলেও আশা প্রকাশ করেন নরেন্দ্র মোদি৷

  • Share this:

#নয়াদিল্লি: অস্ত্র তৈরি করে ধ্বংসের জন্য নয়, বরং মানব জাতির জীবনে উন্নয়নের জন্য দায়িত্বশীল ভাবে আর্টিফিশিয়াল ইন্টেলিজেন্স-এর ব্যবহার করতে হবে৷ কৃত্রিম মেধা নিয়ে আন্তর্জাতিক ভার্চুয়াল সম্মেলন RAISE 2020-এর মঞ্চে এমনই দাবি করলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি৷ একই সঙ্গে তিনি বলেন, কৃষি, শহুরে পরিকাঠামো এবং বিপর্যয় মোকাবিলা ব্যবস্থাকে আরও শক্তিশালী করে তুলতে কৃত্রিম মেধা বড় ভূমিকা নিতে পারে৷

প্রধানমন্ত্রী এ দিন বলেন, প্রযুক্তির সাহায্যে কর্মস্থলে যেমন আমূল বদল এসেছে, সেরকমই যোগাযোগ ব্যবস্থারও উন্নতি হয়েছে৷ তিনি আশা করেন, দায়িত্বশীল ভাবে আর্টিফিশিয়াল ইন্টেলিজেন্স-এর ব্যবহার করলে তা অনেক বেশি মানবিক হয়ে উঠবে৷ তিনি বলেন, কৃত্রিম মেধা এবং মানবজাতির মেলবন্ধন গোটা বিশ্বের জন্য বিস্ময়কর পরিবর্তন ঘটাতে পারে৷

প্রধানমন্ত্রী বলেন, শিক্ষা এবং জ্ঞানের ক্ষেত্রে গোটা পৃথিবীকে ভারত নেতৃত্ব দিয়েছে৷ ভবিষ্যতেও সেই ধারাই অব্যাহত থাকবে৷ প্রযুক্তির সাহায্যে যেভাবে স্বচ্ছতা বৃদ্ধি পাচ্ছে এবং পরিষেবা প্রদানের ক্ষেত্রে উন্নতি ঘটছে, তারও উল্লেখ করেন নরেন্দ্র মোদি৷ উদাহরণ হিসেবে তিনি বলেন, আধার এবং ইউপিআই-এর মতো উদ্ভাবনী পেমেন্ট সিস্টেমের সাহায্যে আর্থিক ক্ষেত্রে আমূল পরিবর্তন এসেছে৷ এর ফলে সমাজের গরিব এবং নিম্নবিত্তরাও সহজেই সরাসরি নগদ হস্তান্তরের সুবিধে পাচ্ছেন৷ অতিমারির সময়ও এই পরিষেবার মাধ্যমেই গরিবদের কাছে দ্রুত সাহায্য পৌঁছে দেওয়া সম্ভব হয়েছে বলেও মনে করিয়ে দেন প্রধানমন্ত্রী৷

নরেন্দ্র মোদি এ দিন আশা প্রকাশ করে বলেন, কৃত্রিম মেধার ক্ষেত্রে ভারত গ্লোবাল হাব হয়ে ওঠার ক্ষমতা রাখে৷ অদূর ভবিষ্যতে আরও বেশি সংখ্যক ভারতীয় এই বিষয়টি নিয়ে কাজ করবেন বলেও আশা প্রকাশ করেন তিনি৷ প্রধানমন্ত্রী বলেন, দলগত চেষ্টা, বিশ্বাস, মেলবন্ধন, দায়িত্বশীলতা এবং সামগ্রিক উন্নয়নের নীতিই এই লক্ষ্যে পৌঁছনোর মূলমন্ত্র হওয়া উচিত৷

প্রধানমন্ত্রী বলেন, 'কৃত্রিম মেধার ব্যবহার কীভাবে হবে, তা নিশ্চিত করা আমাদের সবার দায়িত্ব৷ অ্যালগোরিদমের ক্ষেত্রে স্বচ্ছতা বজায় রাখা এই বিশ্বাস স্থাপনের মূল মন্ত্র৷ একই সঙ্গে দায়িত্বজ্ঞান সম্পর্কে অবহিত থাকাও গুরুত্বপূর্ণ৷ কৃত্রিম মেধার ব্যবহার করে কোনও সংগঠন যাতে অস্ত্র তৈরি করতে না পারে, তা আমাদের নিশ্চিত করতে হবে৷'

প্রধানমন্ত্রী জানান, চলতি বছরের এপ্রিল মাসে Responsible AI for Youth নামে একটি কর্মসূচির ঘোষণা করে ভারত সরকার৷ বিভিন্ন স্কুলের প্রায় ১১ হাজার ছাত্রছাত্রী তাতে অংশ নিয়ে বেসিক কোর্স সম্পূর্ণ করে এখন নিজেদের প্রকল্প তৈরি করছে৷ তবে তিনি মনে করিয়ে দেন, কৃত্রিম মেধা নিয়ে আলোচনা করলেও মানুষের সৃষ্টিশীলতা এবং আবেগই আমাদের সবথেকে বড় শক্তি৷ যা মেশিনের থেকেও মানুষকে এগিয়ে রেখেছে৷

ভারত সরকার এবং শিল্প ও শিক্ষাক্ষেত্রের অগ্রণীদের যৌথ উদ্যোগে Responsible AI for Social Empowerment (RAISE2020)-এর আয়োজন করা হয়েছে৷ ৫ থেকে ৯ অক্টোবর পর্যন্ত প্রতিদিন সকাল ১০.৩০ টা থেকে রাত ৯টা পর্যন্ত এই সম্মেলনে আলোচনা চলবে৷ গত জুন মাসেই গ্লোবাল পার্টনারশিপ অন আর্টিফিশিয়াল ইন্টেলিজেন্স (GPAI)-এর প্রতিষ্ঠাতা সদস্য হিসেবে যোগ দিয়েছিল ভারত৷ GPAI-এর প্রতিষ্ঠাতা সদস্য হিসেবে আমেরিকা, যুক্তরাজ্য, ইউরোপীয় ইউনিয়ন, অস্ট্রেলিয়া, কানাডা, ফ্রান্স, ইটালি, জার্মানি, জাপান, মেক্সিকো, কোরিয়া প্রজাতন্ত্র, নিউজিল্যান্ড এবং সিঙ্গাপুরের মতো বিশ্বের অগ্রণী অর্থনীতিগুলির সঙ্গী হয়েছে ভারত৷

Published by: Debamoy Ghosh
First published: October 5, 2020, 11:25 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर