Home /News /technology /
iPhone-এ ব্যবহার করা যাবে USB-C পোর্ট, জোরদার পরীক্ষা চালাচ্ছে Apple

iPhone-এ ব্যবহার করা যাবে USB-C পোর্ট, জোরদার পরীক্ষা চালাচ্ছে Apple

Apple begins testing iPhones with USB-C | সাফল্য এলে লাইটনিং চার্জিং পোর্টের বদলে USB-C কনেক্টরেই যুক্ত করা হবে iPhone

  • Share this:

    Apple Inc. শুরু করেছে পরীক্ষা নিরীক্ষা। ইউরোপিয়ান ইউনিয়নের (EU) নির্দেশিকা অনুসারে USB-C পোর্ট আনার কথা আগেই চিন্তা ভাবনা শুরু করেছে সংস্থা। সে উদ্দেশেই iPhone মডেলের ক্ষেত্রে বিশেষ ফিচার নিয়ে পরীক্ষা নিরীক্ষা শুরু করা হয়েছে বলে জানা গিয়েছে। সাফল্য এলে লাইটনিং চার্জিং পোর্টের বদলে USB-C কনেক্টরেই যুক্ত করা হবে iPhone।

    Apple-এর সাম্প্রতিক স্মার্টফোন মডেলগুলিতে USB-C পোর্ট কী ভাবে আনা যায় সেই পরীক্ষার পাশাপাশি সংস্থা কাজ করছে অন্য একটি বিষয়েও। জানা গিয়েছে অ্যাডপ্টর (adapter) নিয়েও ভাবনা চিন্তা করা হচ্ছে। মনে করা হচ্ছে, নতুন ফিচার iPhone-এর বর্তমান লাইটনিং কনেক্টরে যে সব অ্যাকসেসারিজ চলে, তার সঙ্গেও কাজ করবে। তবে এ বিষয়ে সরাসরি কিছুই জানাতে চায়নি Apple।

    সূত্রের খবর, যা কিছু পরিবর্তন তা ২০২৩ সালের আগে সম্ভব নয়। এ বছর Apple-এর যা কিছু মডেল আসবে তাতে লাইটনিং (Lightning connector) কানেক্টরই থাকবে বলে মনে করা হচ্ছে।

    আরও পড়ুন - শেষ হয়ে যাচ্ছে দেখতে না দেখতেই? জেনে নিন ইন্টারনেট ডেটা বাঁচানোর উপায়

    Apple-এর অন্য সব পণ্য যেমন iPad, Mac-এ ইতিমধ্যেই ব্যবহার করা হয় USB-C চার্জার। এ বার iPhone-এও ওই একই চার্জার ব্যবহার করা শুরু হলে সুবিধা হবে গ্রাহকের। iPhone এবং Apple Watch-এর ওয়্যারলেস চার্জারেও USB-C connector ব্যবহার করা হয়। যদিও এ বিষয়ে কোনও মন্তব্য করতে চাননি কর্তৃপক্ষ।

    গোটা বিষয়টি নিয়ে গ্রাহকদের মধ্যে ধোঁয়াশা তৈরি হয়েছে। জানা গিয়েছে, USB-C চার্জার আসলে Lightning connector-এর থেকে সামান্য বড়। এতে খুব দ্রুত চার্জ হয় এবং ডেটা ট্রান্সফারও করা যায়। নতুন ধরনের যে কানেক্টরটির কথা Apple ভাবছে, তা অ্যান্ড্রয়েড ফোন বা ট্যাবলেটের মতো ডিভাইসেও কাজ করবে।

    কিন্তু বেশির ভাগ অ্যাপল অ্যাকসেসারিজ (Apple accessories) যেমন, AirPods, Apple TV remote, MagSafe ব্যাটারি প্যাক এবং MagSafe ডুয়ো চার্জারে এখনও লাইটনিং-এ রয়েছে। সেই সমস্যার সমাধান করতে পারে। কিন্তু এই নতুন পোর্ট কি আদৌ Apple-এর প্যাকেজে পাওয়া যাবে, নাকি গ্রাহককে আলাদা করে কিনতে হবে তা এখনও স্পষ্ট নয়।

    আরও পড়ুন - Android ইউজাররা ভাল ড্রাইভার, তবে iPhone ইউজাররা বড্ড আবেগপ্রবণ! ফোন দেখে এ কী বলছে সমীক্ষা

    ঘটনা হল এর সঙ্গে জড়িয়ে রয়েছে বেশ কিছু থার্ড পার্টি অ্যাকসেসারিজের (third-party accessories)-এর ব্যবহারও। যেমন চার্জার, কার অ্যাডপ্টর, এক্সটার্নাল মাইক্রোফোন—যা বর্তমান কানেক্টরে যুক্ত হয়। কানেক্টর বদলালে সেগুলিও নতুন করে ডিজাইন করতে হতে পারে। আর তার ফলে আইফোন অ্যাকসেসারিজের বাজারে Apple-এর কর্তৃত্ব ব্যহত হতে পারে। এখন অ্যাকসেসরিজ উৎপাদনকারী সংস্থাগুলিকে Apple-এর থেকে লাইটনিং কনেক্টর ব্যবহার করার জন্য বিশেষ অনুমতি হয়। এ জন্য তারা Apple-কে টাকা দিতেও বাধ্য হয়। USB-C পোর্ট এলে, তা সব রকম ডিভাইসেই ব্যবহার করা যাবে। ফলে এই একচেটিয়া মনোভাব খর্ব হবে Apple-এর।

    সম্প্রতি ইউরোপিয়ান ইউনিয়ন(European Union) সিদ্ধান্ত নিয়েছে সারা বিশ্বে জমে ওঠা ই-বর্জ্য কমানোর জন্য USB-C অ্যাডপ্টরই ব্যবহার করতে হবে। গত এপ্রিলে সংখ্যা গরিষ্ঠের ভোটে পাশ হয়েছে সেই বিল। আর তার পরেই নড়ে বসেছে Apple। সংস্থার দাবি, ইউরোপের নতুন আইনে তাদের উৎপাদনশীলতার সঙ্কট দেখা দেবে। এক বিবৃতিতে Apple জানিয়েছে, ইউরোপিয়ান ইউনিয়নের এই সিদ্ধান্তে গ্রাহকের চার্জিং ব্যবস্থার ক্ষতি হবে। এর সঙ্গে জড়িয়ে রয়েছে সুরক্ষা এবং শক্তির অপচয় রোধের বিষয়টিও। বহু গ্রাহকই জটিলতা সরিয়ে একটি অভিন্ন চার্জিং ব্যবস্থার পক্ষে মত দিয়েছেন।

    Published by:Ananya Chakraborty
    First published:

    Tags: Apple, IPhone

    পরবর্তী খবর