প্রযুক্তি

corona virus btn
corona virus btn
Loading

ফুচকা, ঝালমুড়ি থেকে তেলেভাজা- রাস্তার খাবারও এবার বাড়িতে পৌঁছে দেবে Swiggy!

ফুচকা, ঝালমুড়ি থেকে তেলেভাজা- রাস্তার খাবারও এবার বাড়িতে পৌঁছে দেবে Swiggy!

জিভে জল আনা স্ট্রিট ফুড বা রাস্তার খাবারও আপনি অর্ডার করলেই বাড়িতে পৌঁছে দেবে Swiggy

  • Share this:

আবাসন ও নগরায়ণ মন্ত্রকের সঙ্গে সম্প্রতি চুক্তি সই করেছে সুইগি। তাতে সংস্থার যেমন লাভ, তেমনই আপনারও পোয়া বারো!

কেন না, পথের খাবারের স্বাদ নেওয়ার জন্য আর পথে নামতে হবে না। চিনে থেকে মুঘলাই- এ সব খাবারের সঙ্গে সঙ্গে ফুচকা, ঝালমুড়ি, ভেলপুরি, তেলেভাজার মতো জিভে জল আনা স্ট্রিট ফুড বা রাস্তার খাবারও আপনি অর্ডার করলেই বাড়িতে দিয়ে যাবে এ বার থেকে সুইগি। এতে করে সেই সব বিক্রেতা, যাঁরা রাস্তায় খাবার বিক্রি করেন, তাঁদেরও সুইগি-র পাশাপাশি কিছু আয় হবে এবং ব্যবসা বৃদ্ধি হবে।

খবর অনুযায়ী, মূল পরিকল্পনা আসলে প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ যোজনা স্ট্রিট ভেনডরস আত্মনির্ভর নিধির অন্তর্গত। আহমেদাবাদ, চেন্নাই, দিল্লি, বারাণসী ও ইন্দোরে ইতিমধ্যেই ২৫০ জন বিক্রেতাকে নিয়ে কাজকর্ম শুরু হয়ে গিয়েছে।

তা, করোনা অতিমারী হওয়ার অনেক আগে থেকেই তো মাননীয় প্রধানমন্ত্রী আত্মনির্ভর হওয়ার কথা তামাম দেশবাসীকে বারবার বলে আসছেন! সেই উদ্যোগেই এ বার তিনি রাস্তার এই সব ছোটখাট বিক্রেতাদেরও সামিল করেছেন। এতে সত্যিই তাঁরা আত্মনির্ভর হওয়ার সুযোগ পাবেন। ২০০২- এর পয়লা জুন থেকে এই প্রকল্প চালু হয়েছে এবং স্ট্রিট ভেনডরদের ১০ হাজার টাকা করে ঋণ দেওয়া হয়েছে। এক বছরের মধ্যে মাসিক কিস্তিতে এই ঋণ শোধ করতে হবে। যদি কেউ সময়ের আগেই ঋণ শোধ করে দেন, তা হলে বাড়তি সুযোগ পাবেন।

অস্বীকার করার উপায় নেই যে কোভিড অতিমারীর জন্য এই সব বিক্রেতাদের অনেক আর্থিক ক্ষতি হচ্ছে। বেশ কয়েকমাস হয়ে গেল এই সব বিক্রেতারা রাস্তায় বসতে পারছেন না। তা ছাড়া অফিস, স্কুল ও বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকায় বিক্রির আশাও বিশেষ নেই। এখন বিক্রেতারও ব্যবসা অনলাইনে বৃদ্ধি পাবে। পাশাপাশি সুবিধে হবে ক্রেতারও। সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখার হ্যাপায় না গিয়েই অনলাইনে সব খাবার পেলে ক্রেতারাও ভরসা পাবেন।

কী ভাবে প্রযুক্তি ব্যবহার করে মেনু তৈরি করতে হয়, কী ভাবে তার দাম ঠিক করতে হয় এবং কী ভাবে স্বাস্থ্যবিধি মেনে খাবার প্যাক করতে হয় সেই বিষয়ে প্রশিক্ষণ দেওয়া হবে বিক্রেতাদের। কারণ এর আগে তাঁরা এই ভাবে খাবার বিক্রি করতে অভ্যস্ত ছিলেন না। তা ছাড়া স্বাস্থ্যবিধির বিষয়টিও সুইগি বিশেষ ভাবে নজরে রাখছে। কোনও ভাবে সেই বিধি ভঙ্গ হলে সুইগির ব্র্যান্ড ভ্যালুও যে ক্ষতিগ্রস্ত হবে!

Published by: Ananya Chakraborty
First published: October 6, 2020, 3:07 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर