প্রযুক্তি

?>
corona virus btn
corona virus btn
Loading

ভারত আটকে ছিল 2G-র ফাঁসে, ডেটা দুর্গতি থেকে মুক্তি দিয়েছে জিও: মুকেশ আম্বানি

ভারত আটকে ছিল 2G-র ফাঁসে, ডেটা দুর্গতি থেকে মুক্তি দিয়েছে জিও: মুকেশ আম্বানি

মুকেশ আম্বানির মতে, ভারতে ২জি টেলিকম ইন্ডাস্ট্রি গড়তে ২৫ বছর লেগেছিল ৷ সেখানে জিও ৪জি নেটওয়ার্ক গড়ে তুলেছে মাত্র তিন বছরের মধ্যেই ৷

  • Share this:

#মুম্বই: দেশকে কেবল আত্মনির্ভর নয়, ডিজিটালি উন্নত করতেও বদ্ধপরিকর প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। গত ১৫ অগাস্ট স্বাধীনতা দিবসের দিনই সেই ডিজিটাল ভারত গড়ার লক্ষ্যে তিনটি বড় ঘোষণা করেছিলেন প্রধানমন্ত্রী। এক, ন্যাশনাল ডিজিটাল হেলথ মিশন, দুই নতুন সাইবার সিকিউরিটি পলিসি এবং ১০০০ দিনের মধ্যে দেশের ছ’লক্ষ গ্রামে অপটিকাল ফাইবার কানেকশন দেওয়া। গোটা বিশ্বই এখন প্রযুক্তি নির্ভর ৷ এর গুরুত্ব বাড়ছে সর্বত্র ৷ এই রেসে নেমে পড়েছে ভারতও ৷ এখনও বিশ্বের শক্তিশালী দেশগুলির সঙ্গে লড়াইয়ে কিছুটা পিছিয়ে থাকলেও তাদের ধরার চেষ্টার রয়েছে ভারত ৷ এব্যাপারে রিলায়েন্স ইন্ডাস্ট্রির চেয়ারম্যান মুকেশ আম্বানি মনে করছেন, এই কাজে শুধুমাত্র বিশ্বের সেরা শক্তিগুলিকে ধরাই নয় ৷ তাদেরকে ছাপিয়ে গিয়ে বিশ্বসেরা হওয়ার ক্ষমতাও রাখে ভারত ৷

TM Forum's Digital Transformation World Series 2020-তে বক্তব্য রাখতে গিয়ে মুকেশ আম্বানি বলেন, ‘‘ ভারত প্রথম দুই শিল্প বিপ্লব এবং সেগুলোর জন্য যে পরিবর্তনগুলি এসেছিল, তার সুযোগ নিতে পারেনি ৷ জিও আসার আগে ভারত ২জি প্রযুক্তিতেই আটকে ছিল ৷ জিও এসেই ভারতের ডেটা সমস্যা দূর করেছে এবং দেশে ডিজিটাল বিপ্লব এনেছে ৷ ’’ তিনি যোগ করেন, দেশে ২জি টেলিকম ইন্ডাস্ট্রি গড়তে ২৫ বছর লেগেছিল ৷ সেখানে জিও ৪জি নেটওয়ার্ক গড়ে তুলেছে মাত্র তিন বছরের মধ্যেই ৷

Here is the full text of Mukesh Ambani’s speech:

এর আগে আর্টিফিসিয়াল ইন্টেলিজেন্স (এআই) নিয়ে সম্প্রতি একটি সামিটে মুকেশ আম্বানি জানিয়েছিলেন, এআই কখনওই মানব মেধার বিকল্প হতে পারে না, পারবেও না। তাঁর মতে, মানব মেধার উপর ভিত্তি করেই ভারতকে ৫ লক্ষ কোটি টাকার অর্থনীতির দিকে এগিয়ে যেতে হবে। তাতে সহযোগিতা করবে এআই। রেসপন্সিবল এআই ফর সোশ্যাল এমপাওয়ারমেন্ট সামিট (আরএআইএসই) ২০২০-তে মুকেশ আম্বানি বলেছিলেন, ‘‘ আর্টিফিসিয়াল ইন্টেলিজেন্স এবং তার সঙ্গে সম্পর্কিত অন্যান্য প্রযুক্তি ভারত এবং বিশ্বের সামনে থাকা জটিল সমস্যাগুলির সমাধান করবে। আমাদের ক্ষমতাকে আরও বেশি করে প্রসারিত করবে। ভারতের অর্থনীতিকে কাঙ্ক্ষিত লক্ষ্যে এগিয়ে নিয়ে যেতে এআই গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করবে।

রিলায়েন্স ইন্ডাস্ট্রিজের চেয়ারম্যানের মতে, অর্থনৈতিক বৃদ্ধির ক্ষেত্রে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি যে লক্ষ্যমাত্রা স্থির করে দিয়েছেন, তা পূরণে এআই-এর উল্লেখযোগ্য অবদান থাকবে। ভারতীয় কৃষির আধুনিকীকরণ এবং কৃষকদের আয় বৃদ্ধি, গ্রামাঞ্চলের প্রত্যন্ত অঞ্চলের বাসিন্দাদের জন্য বিশ্ব-মানের শিক্ষা, দক্ষতার প্রশিক্ষণ এবং প্রতিভা সমৃদ্ধ করার ক্ষেত্রে এআই-র সহযোগিতা প্রয়োজন।

Published by: Siddhartha Sarkar
First published: October 8, 2020, 6:26 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर