Home /News /technology /
Microsoft Teams: বাড়বে কাজের গতি অথচ ক্লান্ত লাগবে না, বুদ্ধি খাটিয়ে কীভাবে ব্যবহার করতে হবে Microsoft Teams!

Microsoft Teams: বাড়বে কাজের গতি অথচ ক্লান্ত লাগবে না, বুদ্ধি খাটিয়ে কীভাবে ব্যবহার করতে হবে Microsoft Teams!

আধুনিক প্রযুক্তির সঙ্গে তাল মিলিয়ে চলতে গেলে সবার আগে জানতে হবে তাদের ব্যবহার।

  • Share this:

#কলকাতা: করোনা মহামারীর ফলে পুরো বিশ্বেই এখন ওয়ার্ক ফ্রম হোম প্রচলিত। এর ফলে অতি গুরুত্বপূর্ণ হয়ে উঠেছে নানা ধরনের টেকনোলজির ব্যবহার। ঘরে বসে কাজ করার জন্য ইন্টারনেট কানেকশন, ল্যাপটপ, কম্পিউটার ইত্যাদির সঙ্গে সঙ্গে নতুন টেকনোলজির ব্যবহার জানাও খুবই দরকার। আধুনিক প্রযুক্তির সঙ্গে তাল মিলিয়ে চলতে গেলে সবার আগে জানতে হবে তাদের ব্যবহার। এই সকল নতুন টেকনোলজি, তাদের নতুন নতুন ফিচারের বিষয়ে ধারণা না থাকলে নিজেদেরকেই পড়তে হবে অসুবিধায়। এই জন্যই মাইক্রোসফট টিমস (Microsoft Teams) লঞ্চ করেছে নানা ধরনের ফিচার। এই সকল ফিচারের মাধ্যমে ডিজিটাল প্ল্যাটফর্মের অনেক বিষয় সম্পর্কে সহজেই জানা যাবে।

মাইক্রোসফট টিমস ব্রেকআউট রুমস (Microsoft Teams Breakout Rooms)

এই ফিচারটির সাহায্যে ইউজাররা যে কোনও মিটিং সাব গ্রুপে ডিভাইড করতে পারে। এর সাহায্যে মিটিং অর্গানাইজার প্রায় ৫০টি ব্রেকআউট রুমস তৈরি করতে পারে এবং অটোমেটিক্যালি অথবা ম্যানুয়ালি অংশগ্রহণকারীদের নির্দিষ্ট ঘর নির্ধারণ করে দিতে পারে। আবার মিটিং অর্গানাইজার চাইলেই অংশগ্রহণকারীরা মেইন মিটিং-এ ফিরে আসতে পারে।

আরও পড়ুন- কাকে দেখাবেন প্রোফাইলের ছবি, সিলেক্ট করে রাখা যাবে WhatsApp-এ! জেনে নিন কায়দা

মাইক্রোসফট টিমস টুগেদার মোড (Microsoft Teams Together Mode) এর মাধ্যমে নিয়মিত ভিডিও কলের দ্বারা একটি ভার্চুয়াল এনভায়রনমেন্ট তৈরি করা যায়। এর মাধ্যমে ভিডিও কলে অংশগ্রহণকারী সকলের ভার্চুয়াল লাইভ অবতার (Virtual Live Avatar) বানানো সম্ভব। এর মাধ্যমে সকল অংশগ্রহণকারী ভার্চুয়াল স্পেসে একসঙ্গে মিলিত হতে পারবে।

মাইক্রোসফট টিমস লাইভ রিয়েকশন (Microsoft Teams Live Reaction) ওয়ার্ক ফ্রম হোমের ফলে অফিসের বন্ধু ও কলিগদের সঙ্গে দেখা হয় শুধুমাত্র ভিডিও কলে। এর ফলে তাদের থেকে কোনও লাইভ রিয়্যাকশন পাওয়া সম্ভব নয়। কারণ ভিডিও কলের মাধ্যমে যখন মিটিং হয়, সেখানে অন্য কোনও কথা বলা সম্ভব নয়। তাই কোনও রিয়্যাকশনও পাওয়া সম্ভব নয়। কিন্তু মাইক্রোসফট টিমস লাইভ রিয়্যাকশনের মাধ্যমে মিটিং চলাকালীন নানা ধরনের ইমোজি পাঠানো সম্ভব। যা সবাই দেখতে পারবে। এর ফলে ভার্চুয়াল স্পেসেও নিজেদের নানা রিয়্যাকশন শেয়ার করা সম্ভব।

মাইক্রোসফট টিমস ভিডিও ফিল্টার (Microsoft Teams Video Filters) এর মাধ্যমে ইউজাররা মিটিং-এ প্রবেশ করার আগেই নানা ধরনের ভিডিও ফিল্টার ব্যবহার করতে পারে। এগুলোর মাধ্যমে ছবির ব্রাইটনেস, লাইটের লেভেল, ক্যামেরা ফোকাস ইত্যাদি নিজেদের পছন্দমতো সেট করে নেওয়া যায়।

Published by:Suman Majumder
First published:

Tags: MICROSOFT, Work From Home

পরবর্তী খবর