• Home
  • »
  • News
  • »
  • technology
  • »
  • এখনও বিদায় নেয়নি করোনা, ভ্যাকসিনেশন শেষ না হওয়া পর্যন্ত এক অভিনব সতর্কবিধি জারি করল Google

এখনও বিদায় নেয়নি করোনা, ভ্যাকসিনেশন শেষ না হওয়া পর্যন্ত এক অভিনব সতর্কবিধি জারি করল Google

নিজের শরীর ও মনও ভালো রাখতে হবে। খানিকটা সেই দৃষ্টিভঙ্গি নিয়েই এক অভিনব সতর্কবিধি জারি করল Google

নিজের শরীর ও মনও ভালো রাখতে হবে। খানিকটা সেই দৃষ্টিভঙ্গি নিয়েই এক অভিনব সতর্কবিধি জারি করল Google

নিজের শরীর ও মনও ভালো রাখতে হবে। খানিকটা সেই দৃষ্টিভঙ্গি নিয়েই এক অভিনব সতর্কবিধি জারি করল Google

  • Share this:

#ক্যালিফোর্নিয়া: ভ্যাকসিন আসতেই বুকে বল পেয়েছে মানুষজন। ধীরে ধীরে নিউ নর্ম্যালে অভ্যস্ত হয়ে উঠেছেন। তবে কোথাও যেন একটা গা-ছাড়া ভাবও লক্ষ্য করা গিয়েছে। সব ঠিক হয়ে গিয়েছে ভেবে, ফের স্বাভাবিক হওয়ার চেষ্টা করছেন সবাই। এদিকে ধীরে ধীরে বাড়তে শুরু করেছে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা। আর ভ্যাকসিনেশনও মাঝপথে। এখনও বিশ্বের একটা বড় মাত্রার মানুষ ভ্যাকসিন থেকে বহু দূরে রয়েছেন। এই পরিস্থিতিতে একটু অবহেলাই বড় বিপদ ডেকে আনতে পারে। ফের ডানা মেলতে সাহায্য করতে পারে এই মারণ ভাইরাসকে। তাই প্রাথমিক স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে হবে। যতটা সম্ভব ঘরে থাকতে হবে। আর একই সঙ্গে নিজের শরীর ও মনও ভালো রাখতে হবে। খানিকটা সেই দৃষ্টিভঙ্গি নিয়েই এক অভিনব সতর্কবিধি জারি করল Google।

Google-এর 'Dos and Don’ts'-এর তালিকায় একটু আলাদা ভাবে সচেতনতার বার্তা দেওয়া হয়েছে মানুষজনকে। সংস্থার বার্তা, যতক্ষণ পর্যন্ত না সবাই ভ্যাকসিন পাচ্ছেন, ততক্ষণ যাবতীয় প্রাথমিক স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে হবে। এক্ষেত্রে ছোট ছোট গ্রাফিক্সের মাধ্যমে প্রতিটি স্বাস্থ্যবিধিকে বর্ণণা করা হয়েছে। DOs-এর তালিকায় ফেস মাস্কের ব্যবহার, নিয়মিত হাত ধোওয়া, স্যানিটাইজার ব্যবহার, সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখা-সহ যাবতীয় স্বাস্থ্যবিধির কথা উল্লেখ করা হয়েছে।

View this post on Instagram

A post shared by Google India (@googleindia)

তবে, নজর কেড়েছে Don’t সেকশন। এক্ষেত্রে Google-এর বার্তা, নাক ও মুখে মাস্ক ঢাকা থাকলেও নিজের আবেগ-অনুভূতি, স্বচ্ছন্দবোধ যেন মাস্কের আড়ালে ঢাকা না পড়ে যায়। বাড়িতে থেকে কোনও রকম অবসাদের শিকার হলে চলবে না। সবার সঙ্গে ভার্চুয়ালি যোগাযোগ রাখতে হবে। সকাল সকাল অন্তত একটা গুড মর্নিং মেসেজেও সামনের জনকে আনন্দ দেওয়ার চেষ্টা করতে হবে। একই ভাবে ভাইরাস থেকে বাঁচতে সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখলেও, আত্মিক দূরত্ব যেন না বাড়ে। বাড়ি বসে নানা সোশাল মিডিয়া, ভিডিও কলের মাধ্যমে বন্ধু-বান্ধবদের সঙ্গে আড্ডা দিতে হবে। নিয়ম করে হাত ধুতে হবে। তবে বাড়িতে থেকে অবসরে নানা শখ পূরণ করার জন্য হাত নোংরা করতে ভুলবেন না। তা সে আঁকা হোক কোনও হাতের কাজ হোক বা কোনও ইনডোর গেম!

উল্লেখ্য, বছরের শুরুর দিকে করোনার সংক্রমণ কমেছিল। তবে ফের করোনা আক্রান্তের সংখ্যা বাড়তে শুরু করেছে। তাই স্বাস্থ্যমন্ত্রকের বার্তা, মানুষজন যাতে সব সময়ে প্রাথমিক স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলেন এবং সামাজিক দূরত্ববিধি পালন করেন। কারণ করোনা এখনও সম্পূর্ণ ভাবে বিদায় নেয়নি। এক্ষেত্রে ২৫ ফেব্রুয়ারি থেকে পর পর তিনদিন দেশে ১৬,০০০-এর বেশি করোনা আক্রান্তের সন্ধান পাওয়া যায়। সেই মতো শনিবার অর্থাৎ ২৭ ফেব্রুয়ারিও সংক্রমণের সংখ্যা ছিল ১৬,০০০-এর বেশি। সব মিলিয়ে এ পর্যন্ত ভারতে মোট করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ১,১০,৭৯,৯৭৯। করোনা থেকে সুস্থ হয়ে উঠেছেন ১,০৭,৬৩,৪৫১। সম্প্রতি এক বিবৃতিতে এমনই জানানো হয়েছে কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রকের তরফে। সেই সূত্রেই জানা গিয়েছে, এ পর্যন্ত স্বাস্থ্য কর্মী ও সামনের সারির করোনা যোদ্ধাদের ভ্যাকসিনের ২,৮৪,২৯৭টি ডোজ দেওয়া হয়েছে। এখনও পর্যন্ত দেশে ভ্যাকসিনেশনের সংখ্যা ১.৩৭ কোটিরও বেশি।

Published by:Ananya Chakraborty
First published: