প্রযুক্তি

corona virus btn
corona virus btn
Loading

একাকীত্বে ভুগছেন? কাটানোর সহজ উপায় দেখিয়ে দিয়েছে OnePlus, জানলে চোখ কপালে উঠবে

একাকীত্বে ভুগছেন? কাটানোর সহজ উপায় দেখিয়ে দিয়েছে OnePlus, জানলে চোখ কপালে উঠবে

এই বিজ্ঞাপন রীতিমতো ভাইরাল হয়ে গিয়েছে সোশ্যাল মিডিয়ায়

  • Share this:

#নয়াদিল্লি: আপনি কি ভীষণ একা? আপনার কি মনের কথা শেয়ার করার কেউ নেই? আপনি কি দোকা হতে চান? তা হলে কী কী করণীয় সেই নিয়ে আর বিস্তারিত আলোচনায় গেলাম না। এই জাতীয় বিজ্ঞাপন আকছারই আমাদের ফোন আর ইমেলে এসেই থাকে। এখন মুশকিল হচ্ছে এই যে করোনার প্রকোপে এখন আমরা ছয় ফিটের দূরত্ব মেনে চলছি আর শতকরা নিরানব্বই ভাগ বাড়িতেই বন্দী হয়ে আছি। তাই দোকা হওয়ার নানা সহজ পন্থা থাকলেও সেটা এই মুহূর্তে প্রয়োগ করা যাবে না।

কিন্তু একাকিত্ব বড় বিষম বস্তু। একা একা জীবন কাটাতে কে-ই বা চায়। আর সেই জন্যই তো আপনার জীবনের মুশকিল আসানের সহজ একটি রাস্তা দেখিয়ে দিয়েছে চিনা স্মার্টফোন কোম্পানি OnePlus।

তাই বলে এটা ভেবে বসবেন না যে আপনার একাকিত্ব কাটানোর জন্য তাঁরা চিন থেকে কাউকে পাঠিয়ে দেবেন। আপনার একাকিত্ব কাটাতে গেলে তাঁদের মডেলের দু'খানা ফোন ঝটপট কিনে ফেলতে হবে- ব্যাপার হল এই!

বিজ্ঞাপনী চালে ধোঁকা খেয়ে গেলেন তো? তবে এই বিজ্ঞাপন রীতিমতো ভাইরাল হয়ে গিয়েছে সোশ্যাল মিডিয়ায়। মার্কেটিংয়ের প্যাঁচ একেই বলে। OnePlus বলছে, একাকিত্ব কাটাতে তাঁদের দু'খানা ফোন OnePlus8T কিনে ফেলতে হবে। যাতে আপনি একটা ফোন থেকে আরেকটা ফোনে নিজেই নিজেকে ফোন করতে পারেন!

সারকাজমের ছোঁওয়া লাগানো এই পোস্ট Facebook-এ দেওয়া মাত্রই কমেন্টের বন্যা বইতে থাকে। একজন নেটিজেন মজার ছলে লেখেন যে তিনি আতঙ্কিত বোধ করছেন, তাই পুলিশকে ফোন করবেন! স্মার্টফোন কোম্পানিটিও কম যান না। তাঁরাও উত্তরে লেখেন, তা হলে তো সেই ব্যক্তির তিনখানা ফোন প্রয়োজন!

এ রকম একের পর এক মজার মন্তব্যে ভরে যায় এই পোস্টের কমেন্টবক্স। দু'খানা স্মার্টফোন কেনার খরচ তো আর কম নয়। তাই একজন নেটিজেন লেখেন, তিনি তাঁর দু'খানা কিডনি ছাড়া বাঁচতে পারবেন না। তাই একা থাকাই ভালো! বোঝাই যাচ্ছে যে এই সূক্ষ্ম খোঁচা দেওয়া হয়েছে ফোনের আকাশছোঁওয়া দাম নিয়ে। দু'খানা ফোন কিনতে হলে যে রীতিমতো কিডনি বেচার উপক্রম হবে, সেটাই এই কমেন্টে বেশ স্পষ্ট।

Published by: Ananya Chakraborty
First published: November 5, 2020, 1:39 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर