ইন্টারনেটে গত কয়েকদিন রোনাল্ডোকেই সার্চ করেছেন কোহলি ! কেন ?

রোনাল্ডোর জুভেন্টাস ছাড়ার ব্যাপারে খোজ রাখছেন বিরাট

ইন্সটাগ্রামে নিজের প্রোফাইলে প্রশ্নোত্তর পর্বের আয়োজন করেন কোহলি। যেখানে একটি প্রশ্ন ছিল, গুগলে সবশেষ কী খুঁজেছেন? উত্তরে কোহলি লিখেছেন, ‘ক্রিশ্চিয়ানো রোনাল্ডো ট্রান্সফার।’

  • Share this:

    #মুম্বই: চলতি মরশুমে ইতালিয়ান সুপার কাপ ও কোপা ইতালিয়ার শিরোপা জিতেছে জুভেন্টাস। কিন্তু উয়েফা চ্যাম্পিয়নস লিগ ও ইতালিয়ান সিরি ‘আ’য় মিলেছে হতাশা। তাই গুঞ্জন শোনা যাচ্ছে, আগামী মরশুমে হয়তো আর জুভেন্টাসে থাকবেন না দলটির সবচেয়ে বড় তারকা ক্রিশ্চিয়ানো রোনাল্ডো। এ বিষয়ে এখনও আনুষ্ঠানিক কোনো তথ্য মেলেনি। তাই সংবাদমাধ্যমের নানান প্রতিবেদনেই চোখ রাখতে হচ্ছে ফুটবলপ্রেমিদের। যে তালিকায় রয়েছে ভারতীয় ক্রিকেট দলের অধিনায়ক বিরাট কোহলিরও নাম।

    তিনি চিন্তিত নতুন মরশুমে কোথায় যাবেন রোনাল্ডো অথবা জুভেন্টাসেই থাকবেন কি না। শনিবার রাতে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ইন্সটাগ্রামে নিজের প্রোফাইলে প্রশ্নোত্তর পর্বের আয়োজন করেন কোহলি। যেখানে একটি প্রশ্ন ছিল, গুগলে সবশেষ কী খুঁজেছেন? উত্তরে কোহলি লিখেছেন, ‘ক্রিশ্চিয়ানো রোনাল্ডো ট্রান্সফার।’ তাঁকে জিজ্ঞেস করা হয় কোয়ারেন্টাইনের রুটিনের ব্যাপারে। উত্তর দেন, ‘দিনে একবার ট্রেনিং আর পরিবারের সঙ্গে সময় কাটানো। এই তো। খুব বিশেষ কিছু নয়।’

    এই প্রশ্নোত্তর পর্বে দারুণ একটি বিষয়ও জানিয়েছেন কোহলি। অনুষ্কা শর্মার সঙ্গে তার দাম্পত্য জীবনের নতুন অতিথি কন্যা ভামিকা। ছোট্ট ভামিকার জন্মের পর থেকেই সবার আগ্রহ এক ঝলক দেখার জন্য। কিন্তু এখনও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম কিংবা গণমাধ্যমে নিজের মেয়ের ছবি দেখানি কোহলি। ইন্সটাগ্রামের প্রশ্নোত্তর পর্বে এক ভক্ত ভামিকার ছবি দেখতে চাইলে কোহলি লিখেন, ‘দেবি দুর্গার আরেক নাম ভামিকা। এখনই আমরা ওর ছবি দিবো না। আমি ও আনুশকা মিলে ঠিক করেছি, ও নিজে যখন সোশ্যাল মিডিয়া সম্পর্কে বুঝতে শিখবে, তখন নিজেই এ ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নেবে। এর আগে আমরা সোশ্যাল মিডিয়ায় ওকে আনব না।’

    এসময় রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স ব্যাঙ্গালুরুর সবচেয়ে কৌতুকপ্রিয়, স্মার্ট এবং লাজুক তিনজন খেলোয়াড়ের নাম জানতে চাওয়া হয় কোহলির কাছে। উত্তরে তিনি জানিয়েছেন, কৌতুকপ্রিয় হলেন ইয়ুজভেন্দ্র চাহাল, সবচেয়ে স্মার্ট এবি ডি ভিলিয়ার্স এবং লাজুক নিউজিল্যান্ডের দীর্ঘদেহী পেসার কাইল জেমিসন। এদিকে করোনাভাইরাসের টিকার দ্বিতীয় ডোজও নিয়ে ফেলেছেন কোহলি।

    এই টিকা নেয়ার পর কোনো পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া হয়েছে কি না জানতে চাওয়া হলে কোহলি লিখেন, ‘খানিক শরীর ব্যথা এবং খুবই হালকা জ্বর হয়েছিল। তবে কোনোটাই গুরুতর নয়।’অতীতের কোন বোলার সবচেয়ে বেশি পরীক্ষা নিতে পারত? এর উত্তরে পাকিস্তানি কিংবদন্তি ওয়াসিম আক্রমের নাম লিখেছেন বিরাট কোহলি।

    Published by:Rohan Chowdhury
    First published: