Home /News /sports /
Mohun Bagan election : মোহনবাগান ক্লাবে ব্যাপক মারামারি, নির্বাচনের মনোনয়ন জমা দেওয়ার শেষ দিনে ঝড়ল রক্ত

Mohun Bagan election : মোহনবাগান ক্লাবে ব্যাপক মারামারি, নির্বাচনের মনোনয়ন জমা দেওয়ার শেষ দিনে ঝড়ল রক্ত

মনোনয়ন জমা দেওয়ার শেষ দিনে রক্তারক্তি মোহনবাগানে

মনোনয়ন জমা দেওয়ার শেষ দিনে রক্তারক্তি মোহনবাগানে

Violence erupted outside Mohun Bagan club on the last day of filing election nominations.নির্বাচনের মনোনয়ন জমা দেওয়ার শেষ দিনে রক্তারক্তি মোহনবাগানে

  • Share this:

    #কলকাতা: অতীতেও মোহনবাগান ক্লাবে নির্বাচন নিয়ে ঝামেলা হয়েছে। ক্লাবের ভেতরেই স্টেজের ওপর ঝামেলায় জড়াতে দেখা গিয়েছিল প্রাক্তন ফুটবলার প্রসূন বন্দ্যোপাধ্যায় এবং বর্তমানে ময়দানে পরিচিত এক কর্তাকে। সেটা অবশ্য কয়েক বছর আগের কথা। এবার আবার ঝামেলার সাক্ষী থাকল মোহনবাগান ক্লাব। নির্বাচনের মনোনয়ন জমা দেওয়াকে কেন্দ্র করে হঠাৎই অগ্নিগর্ভ পরিস্থিতি মোহনবাগান ক্লাবে।

    আরও পড়ুন- IND vs SL, Pink Ball test : বেঙ্গালুরুতে পিঙ্ক বল টেস্টের ঘূর্ণি সামলে ব্যাট হাতে জ্বলে উঠলেন শ্রেয়স আইয়ার

    তাঁবুর বাইরে দুই পক্ষের সংঘর্ষে ধুন্ধুমার বেঁধে যায় শনির বিকালে। ব্যাট-উইকেট নিয়ে রীতিমতো মারামারি শুরু হয়ে যায়। জানা যাচ্ছে এই ঘটনায় তিনজন আহত হয়েছেন। আহতদের ভর্তি করা হয়েছে স্থানীয় হাসপাতালে। মোহনবাগান ক্লাব থেকে ফোন পেয়ে ঘটনাস্থলে ময়দান থানার পুলিস এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। ঘটনাচক্রে এদিন ছিল সবুজ-মেরুনের আসন্ন নির্বাচনে মনোনয়ন জমা দেওয়ার শেষ দিন।

    এদিন যখন মনোনয়ন জমা দেওয়ার প্রক্রিয়া ক্লাবের ভিতরে চলছিল, তখনই প্রায় হাজার দুয়েক সমর্থক ক্লাবের বাইরে হাজির ছিলেন। সেই সমর্থকরাই বিবাদে জড়িয়ে পড়েন নিজেদের মধ্যে। মোহনবাগানের অর্থ সচিব দেবাশিস দত্ত  এই ঘটনার প্রতিক্রিয়া দিতে গিয়ে বলেছেন যে, কী হল, কেন হল, কিছুই জানা নেই আমার। প্রথম কথা, এর সঙ্গে মনোনয়নের কোনও সম্পর্ক নেই। মনোনয়ন আমাদের পাঁচটার সময় শেষ হয়ে গিয়েছে। এবার সেই অর্থে কোনও প্রতিদ্বন্দ্বিতা নেই, কোনও গোষ্ঠী নেই।

    ফলে দু'টো গোষ্ঠীর মধ্য়ে মারামারি হওয়ার কোনও প্রশ্নই নেই। বাইরে প্রচুর সমর্থক এসেছেন। ঝামেলা সমর্থকদের মধ্যে হয়েছে নাকি পথচলতি কোনও সাধারণের সঙ্গে হয়েছে, সে ব্যাপারে আমাদের কিছুই জানা নেই। বাইরে গন্ডগোলের খবর পেয়ে আমরা পুলিসকে খবর দিয়েছি। পুলিস তখন পদক্ষেপ নিয়েছে।

    দেবাশিস বাবুর কথার সূত্র ধরে বলাই যায় যে, যেখানে এবারে নির্বাচনে কোনও প্রতিদ্বন্দ্বিতা নেই বা একাধিক গোষ্ঠী নেই, তাহলে এই সংঘর্ষের নেপথ্যে কারা? এই প্রশ্ন কিন্তু থেকেই যাচ্ছে। তবে শোনা যাচ্ছে বাইরে রাখা সত্যজিৎ চট্টোপাধ্যায়ের গাড়িও ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে।

    Published by:Rohan Chowdhury
    First published:

    Tags: Mohun Bagan

    পরবর্তী খবর