• Home
  • »
  • News
  • »
  • sports
  • »
  • না খেয়ে, এক কামরার ঘরে দিন কাটছে প্রত্যুষা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বাবা-মায়ের ! জট কাটেনি মৃত্যু রহস্যের

না খেয়ে, এক কামরার ঘরে দিন কাটছে প্রত্যুষা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বাবা-মায়ের ! জট কাটেনি মৃত্যু রহস্যের

Pratyusha Banerjee

Pratyusha Banerjee

Pratyusha Banerjee: ২০১৬ সালের পয়লা এপ্রিল নিজের ফ্ল্যাটে ঝুলন্ত অবস্থায় পাওয়া যায় প্রত্যুষাকে। আত্মহত্যা করেন নায়িকা। কিন্তু কি কারণে তিনি এই কাজ করেছিলেন তা আজও রহস্য।

  • Share this:

    #মুম্বই: প্রত্যুষা বন্দ্যোপাধ্যায় (Pratyusha Banerjee) । বলিউডের জনপ্রিয় অভিনেত্রী ছিলেন তিনি। একেরপর এক ভালো কাজ আসছিল তাঁর হাতে। 'রক্ত সম্বন্ধ' নামক ধারাবাহিকে সহ-নায়িকা হিসেবে কাজ শুরু করেছিলেন তিনি। এর পরেই ২০১০ সালে তাঁর হাতে আসে 'বালিকা বধূ'-তে কাজ করার অফার। সে সময় অভিকা করকে বাদ দিয়ে নেওয়া হয় প্রত্যুষাকে। 'শশুরাল সিমর কা', 'হাম হ্যায় না'-এর মতো বহু হিন্দি সিরিয়ালে প্রধাণ চরিত্রে অভিনয় করতে থাকেন তিনি। এর পর বিগবস ৭-এ সকলের মন জয় করেন নায়িকা। একের পর এক কাজ। কেরিয়ার গ্রাফ তুঙ্গে। ঠিক এই সময়েই ভয়ানক ঘটনা ঘটে যায় তাঁর সঙ্গে।

    ২০১৬ সালের পয়লা এপ্রিল নিজের ফ্ল্যাটে ঝুলন্ত অবস্থায় পাওয়া যায় প্রত্যুষাকে। আত্মহত্যা করেন নায়িকা। কিন্তু কি কারণে তিনি এই কাজ করেছিলেন তা জানা যায়নি। মানসিক অবসাদ, নাকি অন্য কিছু ছিল তাঁর আত্মহত্যার কারণ। সে সময় প্রত্যুষা একটি প্রেমের সম্পর্কেও ছিলেন। প্রেমে মনোমালিন্য থেকেই কি এই কাজ করেছিলেন তিনি, সে সব এখনও অজানা। কিন্তু মেয়ের মৃত্যুকে আত্মহত্যা মানতে নারাজ প্রত্যুষার বাবা শঙ্কর বন্দ্যোপাধ্যায় ও মা সোমা বন্দ্যোপাধ্যায়। তাঁদের দাবি ছিল, তাঁদের মেয়েকে খুন করা হয়েছে। এবং সেই দাবি নিয়েই বিচারের আশায় কোর্টে কেস করেন প্রত্যুষার বাবা। এই ঘটনার পর পাঁচ বছর কেটে গেলেও কোনও সুরাহা হয়নি। ঠিক যেভাবে আজও অজানা সুশান্ত সিং রাজপুত বা জিয়া খান, কিম্বা দিব্যা ভারতীর মৃত্যুর কারণ ।

    তবে প্রত্যুষার বাবা হাল ছাড়েননি। জামশেদপুর থেকে একরাশ স্বপ্ন নিয়ে তাঁর মেয়ে মুম্বই এসেছিলেন অভিনেত্রী হবেন বলে। সেই স্বপ্ন যখন সত্যি হতে চলেছে, তখন এভাবে প্রত্যুষা কিছুতেই সুইসাইড করতে পারেন না। তাঁকে খুন করা হয়েছিল। পাঁচ বছর ধরে লড়াই করতে করতে সব টাকা পয়সা শেষ হয়ে যায় নায়িকার বাবার। সম্প্রতি একটি সাক্ষাৎকারে তিনি জানিয়েছেন, "আমার হাতে একটা টাকাও নেই। মেয়ের জন্য সুবিচারের লড়াই লড়তে গিয়ে সব টাকা শেষ হয়ে গিয়েছে। একটা ছোট্ট ঘরে কোনরকমে দিন কাটে। অনেক সময় অভাব ও কেস লড়ার জন্য লোন পর্যন্ত নিতে হয়েছে আমাকে। প্রত্যুষার সঙ্গে আমার সব কিছুই হারিয়ে গিয়েছে। কিন্তু তবুও আমি লড়াই থামাব না। না খেয়ে হলেও মেয়ের জন্য লড়ব।" মেয়ের জন্য সুবিচারের আশায় নিজের সবটুকু দিয়ে ফেলেছেন প্রত্যুষার বাবা। প্রায় না খেয়েই কাটছে তাঁর দিন। সঙ্গে রয়েছেন নায়িকার মাও। হাজার কষ্ট সহ্য করেও তাঁরা মেয়েকে সুবিচার পাইয়ে দিতে বদ্ধপরিকর।

    Published by:Piya Banerjee
    First published: