India vs England: ফিরছেন রোহিত, ইশানকে খেলাতে পারে ভারত

India vs England: ফিরছেন রোহিত, ইশানকে খেলাতে পারে ভারত

দ্বিতীয় ম্যাচে রোহিত শর্মা ফিরছেন

দ্বিতীয় ম্যাচে নামার আগে রোহিত শর্মার দলে ফেরা যেমন নিশ্চিত, তেমনই দাবি উঠছে ইশান কিষানকে খেলানোর।

  • Share this:

    #আমেদাবাদ: প্রথম টি টোয়েন্টি শুরু হওয়ার আগে সাংবাদিক সম্মেলনে বিরাট কোহলি দাবি করেছিলেন ওপেনিং পার্টনারশিপ হিসেবে শুরু করবেন রাহুল এবং রোহিত শর্মা। কিন্তু কার্যক্ষেত্রে তা হয়নি। রোহিতকে বিশ্রাম দিয়ে নামানো হয়েছিল শিখর ধাওয়ানকে। দুই ওপেনার চরম ব্যর্থ। দুজনেই বোল্ড হয়েছেন। অনেক বাইরের বল টেনে এনে উইকেট ভেঙেছে রাহুলের, উডের গতিময় বলে পুল করতে গিয়ে বোল্ড হন শিখর। চরম ব্যর্থ অধিনায়ক বিরাট কোহলি। রবিবার দ্বিতীয় ম্যাচে নামার আগে রোহিত শর্মার দলে ফেরা যেমন নিশ্চিত, তেমনই দাবি উঠছে ইশান কিষানকে খেলানোর।

    ছেলেটি ভারতীয়দের মধ্যে গতবার আইপিএলে সর্বোচ্চ স্কোরার ছিলেন। কিন্তু প্রশ্ন উঠছে কার জায়গায় খেলানো হবে তাঁকে? সোশ্যাল মিডিয়ায় অনেক ভক্ত দাবি তুলেছেন বিরাট নিজে সরে গিয়ে এই ম্যাচটায় জায়গা করে দিও তরুণ ইশানকে। কিন্তু মনে রাখতে হবে ভারত অধিনায়ক নিজেও বড় রান পেতে মরিয়া। তাই ভক্তরা চাইলেও তিনি নিজে জায়গা ছেড়ে দেবেন এমন সম্ভাবনা নেই বললেই চলে। কিন্তু পাশাপাশি এটাও ঠিক ইশানদের মত প্রতিভাদের দেশের হয়ে খেলার সুযোগ করে দিতে হবে। ইশান বড় শট খেলতে যথেষ্ট দক্ষ। দলে সুযোগ পেলে নিজেকে প্রমাণ করতে মরিয়া থাকবেন।

    দীর্ঘদিন পর ওপেন করতে নেমে প্রথম ম্যাচে ব্যর্থ কে এল রাহুল দ্বিতীয় ম্যাচে রান পেতে চাইবেন। রাহুলের যোগ্যতা নিয়ে প্রশ্ন নেই। প্রথম দিকটা একটু ধরে খেলতে পারলে তিনি বড় রান তোলার ক্ষমতা রাখেন। সাধারণত ভারত রান তাড়া করতে ভালোবাসে। নরেন্দ্র মোদি স্টেডিয়াম অন্য মাঠের তুলনায় বেশি বড়। কাজেই এই মাঠে দুশো রান না করলেও হবে। তবে প্রথমে ব্যাট করলে কমপক্ষে ১৬০ থেকে ১৮০ যথেষ্ট। কিন্তু পাওয়ার প্লেতে যে জঘন্য ব্যাটিং প্রদর্শন করেছে ভারতীয় দল তা অবিলম্বে কাটিয়ে উঠতে গেলে দুই ওপেনার রোহিত এবং রাহুলকে ভাল শুরু করতে হবে।

    পাশাপাশি অনেকের মত পন্থ ছাড়া ইশানকে দলে নিলে আরও একজন বাঁহাতি আসবে। ফলে ইংলিশ বোলারদের অসুবিধে হতে পারে। সেক্ষেত্রে একজন স্পিনার অর্থাৎ অক্ষর প্যাটেলকে বসিয়ে খেলানো যেতে পারে ইশানকে। রোহিত শর্মাকে দেখা গেল নেটে দীর্ঘক্ষন অনুশীলন করতে। আর্চার, উড, রশিদদের কীভাবে সামলাবেন সেই মহড়া সেরে রাখলেন মুম্বইকর।

    তবে এই ম্যাচেও রান না পেলে চাপ বাড়বে বিরাটের ওপর। অতীতে দেখা গিয়েছিল অস্ট্রেলিয়ার মাটিতে প্রথম টেস্টে লজ্জাজনক পরাজয়ের পর বাকি তিনটি টেস্ট দুর্দান্ত খেলে সিরিজ জিতে ছিল ভারত। ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে প্রথম টেস্টে হারের পর বাকি তিনটি টেস্ট দুর্দান্ত কামব্যাক করে টিম ইন্ডিয়া। টি টোয়েন্টি সিরিজে সেই একই ট্রেন্ড বজায় থাকে কিনা দেখতে হবে।

    পাশাপাশি ব্যাটিং অর্ডারে হার্দিক পান্ডিয়াকে আর একটু ওপরে আনা সম্ভব কিনা সে বিষয়েও আলোচনা চলছে। টি টোয়েন্টির নিয়ম বলে দলের সেরা হার্ড হিটারদের যত বেশি সম্ভব বল খেলতে দেওয়া উচিত। তাতে আউট হলেও রান রেট কখনই নীচের দিকে নামে না। তাই পান্ডিয়া,পন্থদের যত বেশি সম্ভব স্ট্রাইক নিতে দেওয়া হোক এটাই ঠিক করেছে টিম ম্যানেজমেন্ট। পাশাপাশি প্রথম ছয় ওভার অর্থাৎ পাওয়ার প্লে বুদ্ধি করে কাজে লাগানো উচিত।

    Published by:Rohan Chowdhury
    First published: