প্রয়োজনে নিখরচায় N-95 মাস্ক দিতে চান অশ্বিন

বিনামূল্যে মাস্ক দিতে চান অশ্বিন

একজন ভক্ত লেখেন N-95 মাস্ক ব্যবহার করা খরচ সাপেক্ষ। অশ্বিন সঙ্গে সঙ্গে জানিয়ে দেন তিনি নিখরচায় এই মাস্ক দিতে চান। তাঁকে কত পরিমান প্রয়োজন এবং কী প্রক্রিয়ায় বিতরণ করা হবে সেটা জানানো হোক

  • Share this:

    #চেন্নাই: আইপিএল চলাকালীন মাঝপথে টুর্নামেন্ট ছেড়ে ফিরে গিয়েছিলেন বাড়িতে। পরিবারের একাধিক সদস্য করোনা আক্রান্ত ছিলেন। রবি অশ্বিন দিল্লি ক্যাপিটালস দলকে জানিয়েছিলেন খেলায় মন দিতে পারছেন না। এই কঠিন পরিস্থিতিতে এটাই এখন ভারতের বেশিরভাগ ঘরের গল্প। নিজের পরিবারকে কিছুটা সামলেছেন। কিন্তু চারিদিকে এই অবস্থা দেখে চুপ করে থাকতে পারেননি দেশের সেরা অফ স্পিনার। সোশ্যাল মিডিয়ার মাধ্যমে ভক্তদের উদ্দেশ্যে তিনি সাবধানতা অবলম্বন করতে বলেন। ডবল মাস্ক ব্যবহার করার পরামর্শ দেন। ভ্যাকসিন নিতে বলেন।

    একজন ভক্ত লেখেন N-95 মাস্ক ব্যবহার করা খরচ সাপেক্ষ। অশ্বিন সঙ্গে সঙ্গে জানিয়ে দেন তিনি নিখরচায় এই মাস্ক দিতে চান। তাঁকে কত পরিমান প্রয়োজন এবং কী প্রক্রিয়ায় বিতরণ করা হবে সেটা জানানো হোক। পাশাপাশি তিনি লেখেন এই মাস্ক ধুয়ে ব্যবহার করা যায়, তবুও সকলের উচিত সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখা। একজন ভক্ত লেখেন প্রথম ডোজ নেওয়ার পর তিনি দ্বিতীয় ডোজ পাচ্ছেন না। অশ্বিন জানান তাড়াহুড়ো না করতে, উদ্বিগ্ন না হতে। ভারতবর্ষের মত বিশাল জনসংখ্যার দেশে ভ্যাকসিন পাওয়া খুব সহজ নয়। সেই ভক্তকে ধৈর্য ধরতে বলেন তিনি।

    পাশাপাশি তিনি জানিয়েছেন এই কঠিন সময়ে সকলকে এক সঙ্গে লড়তে হবে। তিনি নিশ্চিত এই চ্যালেঞ্জ সাফল্যের সঙ্গে মোকাবিলা করবে দেশবাসী। বিসিসিআই সচিব জয় শাহ আগেই জানিয়ে দিয়েছিলেন প্রত্যেকের নিরাপত্তা মাথায় রেখেই এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। শুধু ক্রিকেটার নয়, সাপোর্ট স্টাফ থেকে শুরু করে মাঠ কর্মী, ক্রিকেট সংস্থার কর্মচারী, সম্প্রচারকারী চ্যানেলের লোকজন এবং ক্রিকেটারদের পরিবার, প্রত্যেকের নিরাপত্তা জড়িত। তাই এই ভয়াবহ মুহূর্তে বিপদ বাড়াতে রাজি নয় বিসিসিআই।

    তাই বোর্ড এবং আইপিএল গভর্নিং কাউন্সিল যৌথভাবে এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে। উল্লেখ্য ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ড নিজেদের চেষ্টা করলেও, জৈব সুরক্ষা বলয় ভেঙে করোনার প্রবেশ আটকাতে পারেনি। অনেকেই বলছেন এই সিদ্ধান্ত নিতে দেরি করে ফেলেছে বিসিসিআই। অযথা ঝুঁকি বাড়িয়েছে। শেষপর্যন্ত অনির্দিষ্টকালের জন্য টুর্নামেন্ট বাতিল ছাড়া রাস্তা ছিল না। মুখে বিসিসিআই কর্তারা যাই বলুন না কেন, প্রশ্ন উঠছে দেওয়াল লিখনটা কী আগে পড়তে পারেননি তাঁরা? নাকি সব জেনেশুনেও জল মাপা হচ্ছিল? তবে এই কঠিন সময়ে অশ্বিন যেভাবে সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিলেন তার প্রশংসায় পঞ্চমুখ ভক্তরা।

    Published by:Rohan Chowdhury
    First published: