সিএবিতে পিচ ভিশনের আমদানি সৌরভের

সিএবিতে পিচ ভিশনের আমদানি সৌরভের

এবার সিএবি-তে বসেই এক ক্লিকে জেলা থেকে ক্লাব ক্রিকেট। অস্ত্রের নাম পিচ-ভিশন। এমন এক অত্যাধুনিক সফটওয়্যার যার জন্ম দক্ষিণ আফ্রিকায়। সৌরভের দূরদর্শিতায় এবার বঙ্গ ক্রিকেটে জুড়ছে নতুন এই সফটওয়্যার।

  • Share this:

#কলকাতা: ‘পিচ ভিশন।’ দক্ষিণ আফ্রিকার একটি স্কোরিং এবং কোচিং টুল সফটওয়্যার। উলমার সভ্যতার এই অস্ত্রই হতে চলেছে আগামী দিনে বঙ্গ ক্রিকেটের সেরা হাতিয়ার। সৌজন্যে অবশ্যই অধিনায়ক সৌরভের দূরদৃষ্টি। কী কাজ এই সফটওয়্যারের? জেলা থেকে ক্লাব ক্রিকেট। বাংলা ক্রিকেটের বিস্তারিত সূচিতে মরশুমে এত ম্যাচ হয় যে সব মাঠে নির্বাচক বা স্পটার পাঠানো অসম্ভব। কিন্তু এই সফটওয়্যার সিএবি-কে উপহার দেবে এক অভিনব ডেটাবেস। যার সুবাদে এক ক্লিকেই জানা যাবে দলগত বা ব্যক্তিগত পারফরম্যান্সের সব তথ্য।

প্রোটিয়াদের দেশে রমরমিয়ে চলছে এই সফটওয়্যার। এবিডি-দের সেই অস্ত্রেরই লাইভ ডেমো দিতে সিএবি-তে হাজির হয়েছিলেন দক্ষিণ আফ্রিকার বিশেষজ্ঞরা। ইন্ডোরে সফটওয়্যার হাতেগরম পরখ করে দেখেন অধিনায়ক মনোজ। পরে রণদেব-দিন্দাদের ডেকে আলাদা ইনপুটও নেন সৌরভ। সফটওয়্যার দেখে উচ্ছ্বসিত ক্রিকেটাররা।

রাতভর বৃষ্টির পর এদিন ইডেনের আউটফিল্ড দেখতেও সরেজমিনে নেমে পড়েছিলেন সৌরভ। প্রায় গোটা মাঠই ঢাকা হয় লন্ডন থেকে আসা নতুন কভারে। পরে মাঠকর্মীদের কভার খোলার প্রশিক্ষণ দিলেন ব্রিটিশ বিশেষজ্ঞ জোনাথন। কোরিং-এর পর মাঠ তাড়াতাড়ি শুকোচ্ছে বলে দাবি কিউরেটর সুজন মুখোপাধ্যায়ের। সবমিলিয়ে ইডেনে বিশ্বকাপের কর্মকাণ্ড দেখে খুশি মহারাজ।

স্পেশ্যাল রিপোর্ট : প্রদীপ্ত গোস্বামী Prodipto Goswami

First published: 08:58:39 PM Feb 26, 2016
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर