• Home
  • »
  • News
  • »
  • sports
  • »
  • PAKISTANS KHANEWALS CRICKET STADIUM TURNS INTO VEGETABLE FARM SMJ

Khanewals Cricket Stadium: ক্রিকেট স্টেডিয়ামে হচ্ছে এখন লাউ, কুমড়োর চাষ! কর্তৃপক্ষ উদাসীন

Pakistan Khanewals Cricket Stadium: স্টেডিয়াম এখন চাষের জমিতে পরিণত হয়েছে। সেখানে লাউ, কুমড়ো, লঙ্কার চাষ হচ্ছে।

Pakistan Khanewals Cricket Stadium: স্টেডিয়াম এখন চাষের জমিতে পরিণত হয়েছে। সেখানে লাউ, কুমড়ো, লঙ্কার চাষ হচ্ছে।

  • Share this:

    #করাচি:

    একটা সময় এখানে দাপিয়ে ক্রিকেট খেলা হত। এখন সেসব অতীত। গোটা স্টেডিয়ামে এখন সবজির চাষ হয়। অথচ পাকিস্তানের মতো দেশে ক্রিকেট নিয়ে উত্সাহ কিন্তু কম নয়। তবুও ইমরান খানের দেশে ক্রিকেট স্টেডিয়ামের প্রতি এমন উদাসীনতা কেন! পাকিস্তানের পঞ্জাব প্রবেশের খানেওয়াল (Khanewal) স্টেডিয়াম এখন চাষের জমিতে পরিণত হয়েছে। সেখানে লাউ, কুমড়ো, লঙ্কার চাষ হচ্ছে। ফলে ক্রিকেটের আর প্রশ্নই নেই। শোয়েব জাট নামের এক পাকিস্তানি সাংবাদিক সেই স্টেডিয়ামের কয়েকটি ছবি ও ভিডিও সম্প্রতি টুইটারে পোস্ট করেছেন। পাকিস্তান ক্রিকেটের ভবিষ্যত্ নিয়েও প্রশ্ন তুলে দিয়েছেন তিনি।

    খানেওয়াল স্টেডিয়াম রয়েছে জেলা সরকারের তত্ত্বাবধানে। অথচ স্টেডিয়ামের এমন পরিণতি নিয়ে কর্তৃপক্ষ মুখে কুলুপ এঁটেছে। কেউ কোনও কথা বলছেন না। খানেওয়াল স্টেডিয়ামে একটা সময় নিয়মিত ক্রিকেট ম্যাচ হত। সেখানে অনেক নামী ক্রিকেটারও ট্রেনিং করতেন। ফলে প্র্যাকটিসের জন্য প্রয়োজনীয় সমসত সুযোগ-সুবিধাও রয়েছে। কিন্তু রক্ষণাবেক্ষণের অভাবে সেসব এখন নষ্ট হয়েছে। স্টেডিয়ামের বিভিন্ন জায়গায় লঙ্কা, কুমড়ো, লাউ ফলাচ্ছেন চাষিরা। শোয়েব জাট ভিডিও পোস্ট করে লিখেছেন, কর্তৃপক্ষ কোথায়! দেখুন কীভাবে তারা একটি স্টেডিয়ামকে ধবংস করছে। খানেওয়ার স্টেডিয়ামের দুঃখের গল্প শুনুন।

    পাকিস্তানের এই স্টেডিয়ামের করুণ অবস্থা দেখে পেসার শোয়েব আখতারও দুঃখপ্রকাশ করেছেন। পাকিস্তান ক্রিকেটের কঙ্কালসার পরিকাঠামো নিয়ে বারবার সরব হয়েছেন আখতার। তিনি বরাবর বলে এসেছেন, পাকিস্তান ক্রিকেট কর্তাদের বিসিসিআইকে দেখে শেখা উচিত। ভারতে ঘরোয়া ক্রিকেটের পরিকাঠামো দেশের ক্রিকেটের উন্নতিতে বড় ভূমিকা নেয় বলে জানিয়েছিলেন তিনি। অন্যদিকে, পাকিস্তানে ঘরোয়া ক্রিকেট বলে কিছুই নেই। তার উপর স্টেডিয়ামেরও এমন দুরাবস্থা!

    Published by:Suman Majumder
    First published: