খেলা

corona virus btn
corona virus btn
Loading

মানসিক যন্ত্রণা সহ্য করতে না পেরে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট ছাড়ছেন মহম্মদ আমির

মানসিক যন্ত্রণা সহ্য করতে না পেরে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট ছাড়ছেন মহম্মদ আমির
মানসিক যন্ত্রণা সহ্য করতে না পেরে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট ছাড়ছেন মহম্মদ আমির

আন্তর্জাতিক ক্রিকেটকে বিদায় জানাচ্ছেন পাকিস্তানের ফাস্ট বোলার মহম্মদ আমির৷ টিম ম্যানেজমেন্টের থেকে পাওয়া ক্রমাগত মানসিক যন্ত্রণায় এই সিদ্ধান্ত তাঁর৷

  • Share this:

#করাচি:  আন্তর্জাতিক ক্রিকেটকে বিদায় জানাচ্ছেন পাকিস্তানের ফাস্ট বোলার মহম্মদ আমির৷ স্বদেশীয় সাংবাদিক শোয়েব জাটকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে আমির জানিয়েছেন, পাক টিম ম্যানেজমেন্টের থেকে যে, মানসিক যন্ত্রণা তিনি পেয়ে চলেছেন, তাঁর পক্ষে আর খেলা চালিয়ে যাওয়া সম্ভব নয়৷ 

আমির গতবছর জুনে খেলার ধকল জনিত ইস্যুতে টেস্ট ক্রিকেটকে বিদায় জানান৷ এখন বলছেন যে, এই ম্যানেজমেন্টে থেকে তিনি আর আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে এগিয়ে যেতে পারবেন না৷ নিউজিল্যান্ডের বিরুদ্ধে চলতি সীমিত  ওভারের সিরিজে আমির দলে সুগোগ পাননি৷ তারপরেই এই সিদ্ধান্ত নিলেন তিনি৷

দল থেকে বাদ পড়ার পর আমির শ্রীলঙ্কায় গিয়ে লঙ্কা প্রিমিয়র লিগে অংশ নেন৷ টুর্নামেন্টের অভিষেক সংস্করণেই নিজের ছাপ রাখেন৷ গল গ্ল্যাডিয়েটর্সের হয়ে ১১টি উইকেট নেন৷ তাঁর টিম রানার্স হয় টুর্নামেন্টে৷

আমির বলছেন, "আমি ক্রিকেট থেকে দূরে যাচ্ছি না৷ কিন্তু এখানকার পরিবেশটা ঠিক নেই৷ যে ভাবে আমাকে সাইডলাইন করা হচ্ছে তাতে করে আমি বুঝতে পারছি,  এটাই আমার সিদ্ধান্ত নেওয়ার সময়৷  ৩৫ জনের স্কোয়াডেও আমার জায়গা হল না৷! মনে হয় না, এই ম্য়ানেজমেন্টের অধীনে আমি ক্রিকেট খেলতে পারব৷ ২০১০-২০১৫ পর্যন্ত অনেক যন্ত্রণা সহ্য করেছি৷ আমি খেলা থেকে দূরে ছিলাম৷ নিজের ভুলের শাস্তিও ভোগ করেছি৷ কিন্তু এই মানসিক যন্ত্রণা আর নিতে পাচ্ছি না আর৷"

আমির জানিয়েছেন, ম্যানেজমেন্টের ওপর তাঁর ক্ষোভ আছে ঠিকই৷ কিন্তু পিসিবি চেয়ারম্যান নাজাম শেঠী ও প্রাক্তন অধিনায়ক শহিদ আফ্রিদিকে তিনি ধন্যবাদ জানিয়েছেন তাঁর পাশে থাকার জন্য৷

২০০৯ সালে ১৭ বছর বয়সে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে অভিষেক করা আমির ১৪টি টেস্ট খেলে ১৫টি উইকেট পান৷ আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ঝড় তুলে দিয়েছিলেন আগুনে গতি আর সুইংয়ে৷ কিন্তু এর পরের বছরেই লর্ডসে স্পট-ফিক্সিং করে পাঁচ বছর ক্রিকেট থেকে নির্বাসিত থাকেন তিনি৷  ২০১৬ সালে ফের আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে প্রত্যাবর্তন করে তিনি বুঝিয়ে দেন যে, তাঁর মধ্যে আজও ক্রিকেট বাকি রয়েছে৷ ২০১৭-তে পাকিস্তানকে চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফি জেতান তিনি৷ এক তরফা ফাইনালে ভারতের টপ অর্ডার একাই ধসিয়ে দিয়ে ম্যাচের নায়ক হয়ে যান৷

আমির দেশের হয়ে ৩৬টি টেস্ট, ৬১টি ওয়ানডে ও ৫০টি টি-২০ ম্যাচ খেলে ২৫০-এর ওপর উইকেট পান৷

Published by: Subhapam Saha
First published: December 17, 2020, 2:46 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर