খেলা

corona virus btn
corona virus btn
Loading

নতুন কিট স্পন্সর, বিরাটদের জার্সিতে ২৮ বছর আগের ছোঁয়া

নতুন কিট স্পন্সর, বিরাটদের জার্সিতে ২৮ বছর আগের ছোঁয়া
অস্ট্রেলিয়ার পথে টিম ইন্ডিয়া৷

দিন কয়েক আগেই টিম ইন্ডিয়ার নয়া কিট স্পনসর নিয়ে বিতর্ক হয়েছিল। বোর্ডের তরফে গত আগস্ট মাসে বিরাট কোহলিদের কিট স্পনসরের জন্য নতুন টেন্ডার ডাকা হয়েছিল।

  • Share this:

#কলকাতা: করোনা আবহে প্রায় আট মাস পর মাঠে নামতে চলেছে টিম ইন্ডিয়া। অস্ট্রেলিয়া সিরিজ দিয়ে বাইশ গজে ফিরছে ভারতীয় দল। নিউ নর্মালে এবার নতুন জার্সিতে দেখা যাবে ভারতীয় দলকে। সীমিত ওভারের ক্রিকেটের জন্য নতুন জার্সি তৈরি করলো বিসিসিআই। নতুন কিট স্পনসরের হাত ধরেই টিম ইন্ডিয়ার জার্সিতে বিবর্তন। ২৮ বছর আগের এক জার্সির ছোঁয়া এবারে জার্সিতে। ১৯৯২ সালে বিশ্বকাপে যে জার্সি পরে ভারতীয় ক্রিকেটাররা মাঠে নেমেছিলেন অনেকটা সেরকমই জার্সি তৈরি করা হয়েছে। স্কাই ব্লু বা আকাশি নীল রংয়ের পরিবর্তে নতুন জার্সিতে থাকছে গাঢ় নীল রং। কাঁধের কাছে আরও কয়েকটি রং থাকছে। সেখানে সাদা, লাল, সবুজ, হালকা নীল রংয়ের ডোরা কাটা দাগ।

আসলে টিম ইন্ডিয়ার নতুন কিট স্পনসর হয়েছে এমপিএল। নাইকির পরিবর্তে তিন বছরের চুক্তিতে ভারতীয় ক্রিকেট দলের নতুন কিট স্পনসর হয়েছে এমপিএল। নতুন কিট স্পনসরের হাত ধরেই অতীতের ভারতীয় দলের স্মৃতি নতুন জার্সিতে। যদিও এখনও সরকারি ভাবে নতুন জার্সি প্রকাশ করা হয়নি বোর্ডের পক্ষ থেকে। তবে বুধবার অস্ট্রেলিয়াগামী দলের ছবিতে দেখা গিয়েছে নতুন ডিজাইনের পোশাক। করোনা পরিস্থিতিতে ক্রিকেটারদের পিপিই কিটের মতোই পোশাকের ব্যবস্থা হয়েছে। এই পোশাকে ভারতীয় দলের লোগো দেওয়া রয়েছে। জার্সির মতোই পিঠে লেখা রয়েছে নাম এবং নাম্বার। অস্ট্রেলিয়া সফরে যাওয়ার আগে গোটা টিমের ছবি সোশ্যাল মিডিয়ায় প্রকাশ করেছে বিসিসিআই।

দিন কয়েক আগেই টিম ইন্ডিয়ার নয়া কিট স্পনসর নিয়ে বিতর্ক হয়েছিল। বোর্ডের তরফে গত আগস্ট মাসে বিরাট কোহলিদের কিট স্পনসরের জন্য নতুন টেন্ডার ডাকা হয়েছিল। ডেডলাইন ছিল ১ সেপ্টেম্বর। নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে কোনও কোম্পানি টিম ইন্ডিয়া কিট স্পনসর হতে এগিয়ে আসেনি, এমনকি আগ্রহ প্রকাশও করেনি। ফলে বহুজাতিক সংস্থা নাইকির সঙ্গে চুক্তি শেষ হওয়ার পর ভারতীয় দলে কোন কিট স্পনসর ছিল না। তবে আচমকা দিন কয়েক আগে বিসিসিআইয়ের পক্ষ থেকে ভারতীয় ক্রিকেট দলের নতুন কিট স্পনসর চূড়ান্ত হওয়ার খবর প্রকাশ্যে আসে। জানা যায় এমপিএল বা মোবাইল প্রিমিয়ার লিগ ভারতীয় ক্রিকেট দলের কিট স্পনসর হয়েছে ।

এমপিএলের যুক্ত হওয়ার খবর প্রকাশ্যে আসার পরই বিতর্ক শুরু হয়। অভিযোগ উঠছে, ভারতীয় ক্রিকেট দলের জন্য নতুন কিট স্পনসর এমপিএল-কে চুক্তিবদ্ধ করার বিষয়টির মধ্যে সম্পূর্ণ স্বচ্ছতা নেই। তাছাড়া বেঙ্গালুরুর গ্যালাকটাস ফানওয়ার টেকনোলজি প্রাইভেট লিমিটেড নামক সংস্থার অধীনে থাকা এমপিএল কীভাবে এমনকি কোন যুক্তিতে বিরাট কোহলিদের কিট স্পনসর হওয়ার বরাত পেলে তাও স্পষ্ট নয়। বোর্ডের পক্ষ থেকে এই বিষয়ে স্পষ্ট করে কিছু জানানো হয়নি। এমপিএল-এর সঙ্গে চুক্তি নিয়ে বোর্ডের মধ্যেই মতবিরোধ রয়েছে বলে সেই সময় বোর্ড সূত্রে জানা যায়।কিট স্পনসর হিসেবে নাইকি এতদিন প্রতি ম্যাচে বোর্ডকে দিত ৮৮ লক্ষ টাকা। সেখানে নতুন কিট স্পনসর ম্যাচ প্রতি ৬৫ লক্ষ টাকা দেবে বলে খবর।

Eron Roy Burman

Published by: Debamoy Ghosh
First published: November 12, 2020, 7:48 AM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर