বিমানবন্দর থেকে সোজা বাবার কবরে 'রূপকথার নায়ক' সিরাজ, বাড়ি ফিরতেই কেঁদে ফেললেন মা

photo/india today

বিমানবন্দরে নেমে সোজা চলে গেলাম বাবার কবরে। সেখানে কিছুক্ষণ সময় কাটালাম। ফুল দিলাম। সামনে হয়তো নেই। জানতাম বাবা সব দেখছেন।

  • Share this:

    #হায়দরাবাদ: অস্ট্রেলিয়া থেকে দেশে ফিরে এসেছে ভারতীয় ক্রিকেট দল। একে একে যে যাঁর শহরের বিমান ধরেছেন। নিজের শহর হায়দরাবাদে পৌঁছে বিমানবন্দর থেকেই সোজা বাবার কবরে ছুটে গেলেন মহম্মদ সিরাজ। ভারতের তরুণ ফাস্ট বোলার নিজের অভিষেক সিরিজেই রূপকথার নায়ক হয়ে গিয়েছেন। তিন ম্যাচে তেরো উইকেট,সিরাজ যেন আবির্ভাব লগ্নে হাজার ওয়াটের আলো ছড়িয়েছেন। সর্বোচ্চ উইকেট শিকারির তালিকায় অশ্বিন,বুমরাহকে পেছনে ফেলেছেন। সিডনিতে জাতীয় সংগীত শুনে চোখের জল ধরে রাখতে পারেননি, ব্রিসবেনে পাঁচ উইকেট তুলে নিয়ে আকাশের দিকে তাকিয়ে প্রয়াত বাবার কথা স্মরণ করেছেন।

    সিরাজ জানিয়েছেন,"বিমানবন্দরে নেমে সোজা চলে গেলাম বাবার কবরে। সেখানে কিছুক্ষণ সময় কাটালাম। ফুল দিলাম। সামনে হয়তো নেই।কিন্তু জানতাম বাবা সব দেখছেন। তারপর বাড়ি ফিরতেই মা কেঁদে ফেললেন। আসলে এত তাড়াতাড়ি সব ঘটে গেল বোঝা গেল না। এসবের জন্য প্রস্তুত ছিলাম না। দীর্ঘদিন আমার ফেরার জন্য মা অপেক্ষা করেছে। সম্পূর্ণ অন্যরকম অনুভূতি। বলে বোঝাতে পারব না"।

    সত্যি তো। বাবার মৃত্যুর পর দেশে ফেরার সুযোগ থাকলেও দেশে ফেরেননি সিরাজ। ফোনে মা বলেছিলেন অস্ট্রেলিয়া থেকে যেতে, সুযোগ পেলে দেশের হয়ে নিজেকে উজাড় করে দিতে। সেটাই করেছেন সিরাজ।

    দেশের গণ্ডি ছাড়িয়ে আজ বিদেশেও প্রশংসিত হচ্ছে তাঁর নাম। ছেলেকে নিয়ে এমন স্বপ্ন দেখেছিলেন সিরাজের বাবা মহম্মদ ঘাউস। অভাবের সংসারে অটো চালিয়ে দিন যাপন করেছেন, কিন্তু ছেলের ক্রিকেটার হওয়ার স্বপ্নকে শেষ হতে দেননি। এমন কাহিনী ক্রিকেট রোমান্সের পাতায় স্বর্ণাক্ষরে লেখা থাকবে।অস্ট্রেলিয়ায় ভাল খেলার পুরস্কার পেয়েছেন সিরাজ। ফেব্রুয়ারি থেকে ঘরের মাঠে হতে চলা ইংল্যান্ড সিরিজে আঠারো জনের দলে জায়গা করে নিয়েছেন তিনি।

    Published by:Rohan Chowdhury
    First published: