corona virus btn
corona virus btn
Loading

সুশান্তের মৃত্যুতে ভেঙে পড়েছেন মাহি, জানালেন প্রযোজক অরুণ পাণ্ডে

সুশান্তের মৃত্যুতে ভেঙে পড়েছেন মাহি, জানালেন প্রযোজক অরুণ পাণ্ডে
একটি সাংবাদিক সম্মেলনে ধোনি বলেন, 'ছবির শ্যুটিং করার সময় সুশান্তের উপরে প্রচুর চাপ ছিল৷ আমার চরিত্র ফুটিয়ে তোলা ওর কাছে কঠিন চ্যালেঞ্জ ছিল৷ আমি তো সুশান্তকে বলেছি, তুমি খালি প্রশ্নই করতে থাকো৷'

তিনি বলেন, ‘যা হয়েছে তা বিশ্বাস করার মতো নয়। মাহিও অত্যন্ত ভেঙে পড়েছেন। এটা অত্যন্ত দুঃখের ঘটনা। ’

  • Share this:

#রাঁচি: সুশান্ত সিং রাজপুত আর জীবিত নেই ৷ রবিবার ছুটির দিনে নিজেকে চির দিনের মতো ছুটি দিয়ে দিয়েছেন সুশান্ত সিং রাজপুত। মাত্র ৩৪ বছর বয়সে ‘আলভিদা’ বলে স্বেচ্ছায় চলে গেলেন তিনি।

‘কিস দেশ মে হ্যায় মেরা দিল’, দিয়ে ছোট পর্দায় পা রাখে পটনার ছেলে। পড়ায় ফাঁকি দিয়ে যে মেয়েটা মায়ের সঙ্গে লুকিয় লুকিয়ে সিরিয়াল দেখত, তার মনে দাগ কেটেছিল সেই ছেলেটির নিষ্পাপ হরিণের মতো দু’টো চোখ। তাঁর ঠোঁটের কোণের মিষ্টি হাসি। কিন্তু ধরাবাহিকের গোড়ার দিকেই মৃত্যু হল সেই চরিত্রের। তন্বীদের মন এতোই খারাপ হল, যে চ্যানেল কর্তৃপক্ষকে গল্পে আত্মা করে ফিরিয়ে আনতে হয় সুশান্তকে। আবার তিনি চলে গেলেন। তবে এবার সে যাওয়া স্বেচ্ছায়। কোনও টিআরপি-র দোহাইয়ে নয়। কিন্তু এবার ফিরিয়ে আনার উপায় নেই। পর্দার ঈশান, রঘু, সরফারাজ, মনসুরকে ভীষণ দেখতে ইচ্ছে করছে দর্শকের। জানতে ইচ্ছে করছে, মনে কী এমন কথার পাহাড় চেপে রেখেছিলেন তিনি। যার জন্য অকালে চলে যেতে হল সুশান্ত সিং রাজপুতকে। সে প্রশ্ন মনে নিয়েই ফিরে দেখা যাক সুশান্তের ফিল্মি সফর।

‘শুদ্ধ দেশি রোম্যান্স’,‘পিকে’ প্রতিটি ছবিতে সুশান্ত দেখিয়েছেন নিজের ভিন্ন অভিনয় শৈলি। তবে তিনি তাক লাগিয়ে দেন দিবাকর বন্দ্যোপাধ্যায়ের ‘ডিটেকটিভ ব্যোমকেশ বক্সি’-তে। হিন্দি ভাষায় বাঙালি ব্যোমকেশ নিয়ে নানা, লোকের নানা মত থাকতেই পারে। তবে সুশান্তের অভিনয় মুগ্ধ করেছিল দর্শককে। তবে পরের ছবিতে যে তিনি আরও চমকে দেবেন সেটা কেউ ভাবতেই পারেননি। মহেন্দ্র সিং ধোনির বায়োপিক। হাঁটা- চলা , শরীরী ভাষা, চুলের ছাঁট,চাহনি ধোনি ও সুশান্তের মধ্যে পার্থক্য করা অসম্ভব। অমিতাভ বচ্চন একবার সুশান্তের কাছে জানতে চেয়েছিলেন যে সব কিছু ঠিক আছে, তবে হেলিকপটার শট মারার পর ধোনির সেই তাকানোটা কীভাবে অনুকরণ করলেন তিনি।

ধোনি ট্রেডমার্ক হেলিকপ্টার শট থেকে হাঁটাচলা, বাচন ভঙ্গি, স্টাইল সব কিছুই বড় পর্দার মাধ্যমে ক্রীড়াপ্রেমীদের কাছে নিয়ে এসেছিলেন সুশান্ত। ‘বলিউডের ধোনি’ সুশান্ত চলে গেছেন পৃথিবীর মায়া ত্যাগ করে। এমন অকালে পরলোকে পাড়ি জমানোর সংবাদ শুনে স্তম্ভিত হয়ে পড়েছেন ভারতের সর্বকালের অন্যতম সেরা অধিনায়ক এমএস ধোনি নিজেও। ধোনির ম্যানেজার ও এম এস ধোনি: দ্য আনটোল্ড স্টোরি’র প্রযোজক অরুণ পান্ডে এমনটাই জানিয়েছেন। তিনি বলেন, ‘যা হয়েছে তা বিশ্বাস করার মতো নয়। মাহিও অত্যন্ত ভেঙে পড়েছেন। এটা অত্যন্ত দুঃখের ঘটনা। ’

‘রাবতা’ ছবিটি মুখতুবড়ে পড়ে বক্স অফিসে। ‘কেদারনাথ’ দিয়ে বাউন্স ব্যাক সুশান্তের। তাঁর পরের ছবি ‘সনচিড়িয়া’। ভূমি, মনোজ বাজপেয়ীর মতো তাবড় অভিনেতাদের পাশে নিজের ছাপ ফেলেন সুশান্ত। ‘কেদারনাথ’, ‘সোনচিড়িয়া’ দু’টি ছবির শেষে সুশান্তের মৃত্যুতে দর্শক কষ্ট পান। তখন কেউ ভাবেনি রিল আর রিয়্যাল এক হয়ে যাবে খুব তাড়াতাড়ি।

সুশান্তের শেষ, ছবি ‘ছিছোরে’। জীবনযুদ্ধে লড়ে যাওয়া। সাময়িক পরাজয় এলেও হার না মানার বার্তা দেন সুশান্ত। তবে বাস্তবে কেন হার স্বীকার করে চলে গেলেন তিনি ? তাঁর মনে কথা শোনার মানুষের অভাব হতো না। কাই পো চে.....বলে কেন অচেনা আকাশে উড়ে গেলেন তিনি। সেটাই সবচেয়ে বড় প্রশ্ন।

Published by: Siddhartha Sarkar
First published: June 15, 2020, 1:37 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर