বিরাটই তাঁর যোগ্য উত্তরসূরি: ধোনি

বিরাটই তাঁর সেরা উত্তরসূরি। রাখাঢাক না করেই জানালেন মহেন্দ্র সিং ধোনি।

বিরাটই তাঁর সেরা উত্তরসূরি। রাখাঢাক না করেই জানালেন মহেন্দ্র সিং ধোনি।

  • Pradesh18
  • Last Updated :
  • Share this:

    #মুম্বই: বিরাটই তাঁর সেরা উত্তরসূরি। রাখাঢাক না করেই জানালেন মহেন্দ্র সিং ধোনি। পুণেতে মাহির দাবি, টেস্টে নেতৃত্ব দিয়েই বিরাট বুঝিয়ে দিয়েছেন, আর তাঁকে অপেক্ষা করতে হবে না।

     তিন বছর আগে অস্ট্রেলিয়ার মাটিতে অবসর নেওয়ার কথা ঘোষণা করেছিলেন। সেই অবসরের পরেও মাহি দাবি করেছিলেন, কোনও ভুল করেননি। শুক্রবারও ফের একবার জানালেন ঠিক সময়ে বিরাটের হাতে নেতৃত্ব তুলে দেওয়া হয়েছে। কারণ এই তিন বছরে বিরাট অনেক পরিণত। ক্রিকেটে সবচেয়ে কঠিন ফরম্যাটের অন্যতম নেতা।

    একটি দলের আদর্শ সহ-অধিনায়ক, একজন উইকেট কিপার। ঘরের মাঠে ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে সেই পদ নেই। কিন্তু বিরাটের দলে তিনি সেই কাজটাই করবেন। মাঠের মধ্যে সমস্ত ইনপুট অধিনায়ককে দেবেন। কারণ- একজন উইকেটকিপারই গোটা মাঠ দেখতে পান।

     বিরাটের নেতৃত্বে ভারত সাম্প্রতিককালে যতোই ভাল ফল করুক না কেন ৷ ভারতকে দু-দু’টো বিশ্বকাপ এনে দেওয়া অধিনায়ক মহেন্দ্র সিং ধোনিকে হঠাৎ করে ক্যাপ্টেন্সি ছেড়ে দেওয়ার সিদ্ধান্ত হজম হয়নি অনেকেরই ৷ ওয়ান ডে এবং টি২০-তে অধিনায়ক তিনি এবং টেস্টে বিরাট ৷ এই কম্বিনেশন তো ভালই চলছিল ৷ হঠাৎ করে তাহলে নেতৃত্ব ছাড়ার সিদ্ধান্ত কেন ধোনির ৷

    সাংবাদিক সম্মেলনে শুক্রবার সব প্রশ্নেরই জবাব দিয়েছেন মাহি ৷ জানালেন, ‘‘ দক্ষিণ আফ্রিকার বিরুদ্ধে হোম সিরিজে ফলাফলের পর থেকেই অধিনায়কত্ব ছাড়ার ভাবনা ঘোরাফেরা করছিল। তবে কোহলি টেস্টের দায়িত্ব নেওয়ার পরেই এই ভাবনা আরও জোরদার হয়। বিশ্বকাপের আগে কোহলিকে সময় দিতে চেয়েছিলাম। সেজন্যই এই সময়েই নেতৃত্ব ছাড়ার সিদ্ধান্ত নিই। দ্বৈত অধিনায়কত্বের নীতিতে আমি বিশ্বাস করি না ৷ যে কোনও টিমের একজনই নেতা হয় বলে আমি মনে করি৷’’ মাহি আরও বলেন, ‘‘ জাতীয় দলের হয়ে খেলা সবসময় উপভোগ করেছি। যখন প্রথম ভারতীয় দলে সুযোগ পাই, তখনও দলে অনেক সিনিয়র ছিল। আমাদের কর্তব্য ছিল ক্রিকেটারদের অবসরের পর যেন এই ব্যাটন-বদল পর্বটা মসৃণভাবে ঘটে।’’

    ১৫ তারিখ থেকে শুরু ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে একদিনের সিরিজ। নতুন দলের সঙ্গে মানিয়ে নিতে তৈরি মাহি। এই সিরিজে তাঁর ধামাকা চলবে বলেই ইঙ্গিত দিলেন মহেন্দ্র সিং ধোনি।

    First published: