Home /News /sports /
দ্রাবিড়ের কথাতেই ২০০৭ বিশ্বকাপে খেলেননি সচিন- সৌরভ, ফাঁস করলেন প্রাক্তন ম্যানেজার

দ্রাবিড়ের কথাতেই ২০০৭ বিশ্বকাপে খেলেননি সচিন- সৌরভ, ফাঁস করলেন প্রাক্তন ম্যানেজার

এম এস ধোনির নেতৃত্বাধীন তরুণ দলের উপরে আস্থা রাখেন দ্রাবিড়৷ PHOTO- FILE

এম এস ধোনির নেতৃত্বাধীন তরুণ দলের উপরে আস্থা রাখেন দ্রাবিড়৷ PHOTO- FILE

রাজপুত জানিয়েছেন, মহেন্দ্র সিং ধোনির নেতৃত্বাধীন সেই দলের লক্ষ্যই ছিল চাপ না নিয়ে ফুরফুরে মেজাজে থাকা৷

  • Share this:

    #মুম্বই: ২০০৭-এর টি টোয়েন্টি বিশ্বকাপে না খেলার জন্য সচিন তেন্ডুলকর এবং সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়কে অনুরোধ করেছিলেন রাহুল দ্রাবিড়৷ এমনই দাবি করেছেন ২০০৭ টি টোয়েন্টি বিশ্বকাপ জয়ী দলের ম্যানেজার লালচাঁদ রাজপুত৷ পাকিস্তানকে ফাইনালে হারিয়ে প্রথম টি টোয়েন্টি বিশ্বকাপ জিতে ইতিহাস সৃষ্টি করেছিল মহেন্দ্র সিং ধোনির নেতৃত্বাধীন তরুণ ভারতীয় দল৷ দলে সুযোগ দেওয়া হয়েছিল রবিন উথাপ্পা, রোহিত শর্মা, যোগিন্দর শর্মাদের মতো একঝাঁক তরুণকে৷

    একটি ক্রীড়াবিষয়ক ওয়েবসাইটের ফেসবুক পেজে সাক্ষাৎকার দিতে গিয়ে লালচাঁদ রাজপুত জানিয়েছেন, 'হ্যাঁ এটা সত্যি যে রাহুল দ্রাবিড়ই সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায় এবং সচিন তেন্ডুলকরকে ২০০৭ সালের টি টোয়েন্টি বিশ্বকাপে অংশ না নেওয়ার জন্য অনুরোধ করেছিল৷ দ্রাবিড় সেই সময় ভারতীয় দলের অধিনায়ক ছিল৷ ইংল্যান্ড সফর থেকেই সরাসরি কয়েকজন খেলোয়াড়কে জোহানেসবার্গে উড়িয়ে আনা হয়েছিল৷' রাজপুতের দাবি অনুযায়ী, তরুণ ক্রিকেটারদের সুযোগ দিতেই এই তিন সিনিয়র ক্রিকেটার এই সিদ্ধান্ত নিয়েছিল৷

    রাজপুত অবশ্য আরও বলেন, 'তবে ভারতীয় দল যখন টি টোয়েন্টি বিশ্বকাপ জিতে গেল তখন নিশ্চয়ই ওঁরা দলে না থাকার জন্য আফশোস করেছে৷ সচিন আমায় সবসময়ই বলত, এত বছর খেলেও ও বিশ্বকাপ জিততে পারেনি৷ পরে অবশ্য ২০১১ সালে ওর সেই ইচ্ছেপূরণ হয়েছিল৷ কিন্তু ওই তরুণ দলটি প্রথম চেষ্টাতেই ২০০৭ সালের বিশ্বকাপে জয়লাভ করেছিল৷'

    রাজপুত জানিয়েছেন, মহেন্দ্র সিং ধোনির নেতৃত্বাধীন সেই দলের লক্ষ্যই ছিল চাপ না নিয়ে ফুরফুরে মেজাজে থাকা৷ আর সেই কারণেই সমস্ত প্রতিকূলতা কাটিয়ে বিশ্বকাপ জয় সম্ভব হয়েছিল বলে দাবি করেছেন রাজপুত৷ তাঁর কথায়, তরুণ একটি দলের ম্যানেজার এবং অধিনায়ক হিসেবে তাঁর এবং মহেন্দ্র সিং ধোনির নিজেদের দায়িত্ব ঠিকঠাক পালন করা যথেষ্ট চ্যালেঞ্জিং ছিল৷

     
    Published by:Debamoy Ghosh
    First published:

    পরবর্তী খবর