Home /News /sports /
Neeraj Chopra: বন্ধুরা মোটা বলে ঠাট্টা করত, 'মাটির মানুষ' নীরজ চোপড়া ভিতরে লোহা দিয়ে গড়া!

Neeraj Chopra: বন্ধুরা মোটা বলে ঠাট্টা করত, 'মাটির মানুষ' নীরজ চোপড়া ভিতরে লোহা দিয়ে গড়া!

Neeraj Chopra: কম বয়সে এত সাফল্য, অর্থ। তবু যেন এখনও গ্রামের সরল সাধাসিধে ছেলে নীরজ। এটাই কি তাঁর ইউএসপি?

  • Share this:

    #পানিপথ: নীরজ চোপড়া, নামটা এখন প্রায় প্রতিটা দেশবাসী জানে। টোকিও অলিম্পিকে ভারতকে সোনা জিতিয়েছিলেন তিনি। একমাত্র জ্যাভলিন থ্রোয়ার হিসেবে দেশকে সোনার পদক জেতান নীরজ।

    অলিম্পিকে ইতিহাস সৃষ্টি করা হরিয়ানার এই ক্রীড়াবিদ ১৩ বছর বয়সে খেলাধুলার প্রতি টান অনুভব করেন। ভাল কিছু করার স্বপ্ন দেখতে শুরু করেন। যদিও নীরজের বন্ধুরা তাঁকে স্থূলতার কারণে ঠাট্টা-বিদ্রূপ করত। কিন্তু তখন হয়তো তাঁরা জানতেন না যে, এই ছেলে একদিন ভারতকে বিশ্বের দরবারে গর্বিত করবে।ট

    আরও পড়ুন- Neeraj Chopra: 'কতদিন ও বাড়ি আসেনি', ছেলের পথ চেয়ে বসে পদকজয়ী নীরজ চোপড়ার মা

    ২৪ জুলাই আবারও ইতিহাস সৃষ্টি করলেন নীরজ চোপড়া। তিনি বিশ্ব অ্যাথলেটিক্স চ্যাম্পিয়নশিপে জ্যাভলিন থ্রোতে রুপোর পদক জিতেছেন। নীরজ প্রথম ভারতীয় হিসেবে এই কৃতিত্ব অর্জন করলেন।

    অলিম্পিকে পদক জয়ী ভারতের প্রথম ট্র্যাক অ্যান্ড ফিল্ড অ্যাথলিট নীরজ চোপড়া। এমন শিখরে পৌঁছানোর জন্য দীর্ঘ পথ পাড়ি দিয়েছেন তিনি৷ ১২১ বছর ধরে অলিম্পিকে পদকের অপেক্ষা করেছে ভারত। নীরজ সেই অপেক্ষার অবসান ঘটিয়েছেন।

    জ্যাভলিন থ্রো ব্যাপারটাকে দেশের যুব সম্প্রদায়ের কাছে আকর্ষণীয় করে তুলেছেন। নীরজ চোপড়ার জন্ম হরিয়ানার পানিপথ জেলায়। ১৯৯৭ সালে খান্দ্রা গ্রামে এক কৃষক পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন তিনি। নীরজ তাঁর প্রাথমিক পড়াশোনা পানিপথ থেকে করেন।

    নীরজ পরে চণ্ডীগড়ের একটি বিবিএ কলেজে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নেন। সেখান থেকে তিনি স্নাতক ডিগ্রি অর্জন করেন। নীরজ শৈশবে খুব মোটা ছিলেন। সেই কারণে গ্রামের অন্য ছেলেমেয়ে এমনকী তাঁর বন্ধুরাও তাঁকে নিয়ে মজা করত।

    আরও পড়ুন- Harmanpreet Kaur : সিন্ধু এবং নীরজ চোপড়ার থেকে টিপস চাইবেন মেয়েদের অধিনায়ক হরমনপ্রীত

    নীরজের পরিবারের সদস্যরাও তাঁর স্থূলতা নিয়ে চিন্তিত ছিল। তাই তাঁর কাকা তাঁকে দৌড়ানোর পরামর্শ দেন। ১৩ বছর বয়সে নীরজ তাঁর মামার সহ্গে দৌড়াতে স্টেডিয়ামে যেতে শুরু করেন।

    স্টেডিয়ামে যাওয়ার সময় নীরজ অন্য খেলোয়াড়দের জ্যাভলিন নিক্ষেপ করতে দেখেন। এর পর তিনিও সেই খেলায় আকর্ষণ অনুভব করেন। ২৩ বছর বয়সে নীরজ প্রায় ১০ বছরের কঠোর পরিশ্রম এবং অধ্যাবসায়ের দাম পান।

    অলিম্পিক সোনা জেতার পরও থেমে থাকেননি নীরজ। দীর্ঘদিন বাড়ি ফেরেননি। উল্টে প্রস্তুতি নিয়েছে আরও বেশি। ভারতীয় সেনাবাহিনীতে সুবেদার পদে নিযুক্ত নীরজ অল্প বয়সে অনেক কিছু অর্জন করেছেন। তবে তাঁর পা এখনও মাটিতেই রয়েছে।

    Published by:Suman Majumder
    First published:

    Tags: Neeraj Chopra

    পরবর্তী খবর