corona virus btn
corona virus btn
Loading

মহিলা বিশ্বকাপ পিছিয়ে যাওয়ায় 'প্রবীণ' ঝুলন-মিতালির ভবিষ্যৎ নিয়ে জল্পনা! কী বলছেন ঝুলন...

মহিলা বিশ্বকাপ পিছিয়ে যাওয়ায় 'প্রবীণ' ঝুলন-মিতালির ভবিষ্যৎ নিয়ে জল্পনা! কী বলছেন ঝুলন...

শুক্রবার এক বছরের জন্য মহিলাদের বিশ্বকাপ পিছিয়ে দিয়েছে আইসিসি।

  • Share this:

#কলকাতা: শুক্রবার এক বছরের জন্য মহিলাদের বিশ্বকাপ পিছিয়ে দিয়েছে আইসিসি। করোনা পরিস্থিতির জেরে ২০২২ সালের ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত পিছিয়ে গিয়েছে  মহিলাদের একদিনের বিশ্বকাপ। ২০২১ সালে নিউজিল্যান্ডে ৬ ফেব্রুয়ারি থেকে ৭ মার্চ পর্যন্ত হওয়ার কথা ছিল মহিলাদের বিশ্বকাপ। আইসিসির এই ঘোষণার পরই প্রশ্ন উঠছে ভারতীয় মহিলা দলের 'প্রবীণ' দুই ক্রিকেটারের ভবিষ্যৎ নিয়ে।

৩৮ ছুঁইছুঁই ঝুলন গোস্বামী কিংবা মিতালি রাজরা কি পারবেন ২০২২ বিশ্বকাপ খেলতে? ৪০ বছরের দোরগোড়ায় পৌঁছে গিয়ে কি বিশ্বকাপ খেলা সম্ভব হবে দুই তারকা ক্রিকেটারের? ঝুলন-মিতালি দুজনেই টি-টোয়েন্টি ফর্ম্যাট থেকে অবসর নিয়েছেন। আগামী বছরের শুরুতে একদিনের বিশ্বকাপ খেলেই হয়তো ক্রিকেটকে বিদায় জানাতেন। তবে এক বছর বিশ্বকাপ পিছিয়ে যাওয়ার ফলে ঝুলন-মিতালিদের নিজের ভবিষ্যৎ নিয়ে জল্পনা শুরু হয়েছে।

এই প্রশ্নের উত্তরে সরাসরি কিছু বলতে নারাজ ভারতীয় দলের প্রাক্তন অধিনায়ক বাংলার ঝুলন গোস্বামী। বিশ্বকাপ পিছিয়ে যাওয়ার খবরে ঝুলন বলেন, "ভারতীয় ক্রিকেট দলের জন্য ভাল হয়েছে। প্রস্তুতির জন্য একটা বছর সময় পাওয়া যাবে। দীর্ঘ কয়েক মাস ধরে ক্রিকেটাররা অনুশীলনের মধ্যে নেই। আমরা অতিমারীর জন্য ঘরবন্দি। তাই ফেব্রুয়ারিতে বিশ্বকাপ হলে প্রস্তুতি যথেষ্ট সময় পেত না ভারতীয় মহিলা দল। আইসিসির সিদ্ধান্তকে স্বাগত।"

বিশ্বকাপ পিছিয়ে যাওয়ায় মহিলা ক্রিকেট দলের পক্ষে ভালো হয়েছে বললেও নিজের ভবিষ্যৎ নিয়ে কোনও উত্তর দিতে নারাজ ঝুলন। আরও এক বছরের বেশি সময় নিজের ফিটনেস ধরে রাখতে হবে বিশ্বকাপ খেলার জন্য। একজন ফাস্ট বোলাররের পক্ষে কি বয়সটা ফ্যাক্টর হবে না? এই প্রশ্নের উত্তরে ঝুলন স্পিকটি নট। টেলিফোনে ঝুলন জানান, "আইসিসির ঘোষণা দেখেছি। এই প্রশ্নের উত্তর এখন দেওয়া সম্ভব নয়। শুধু এটুকু বলব নভেম্বরে সংযুক্ত আরব আমিরশাহীতে মহিলাদের চ্যালেঞ্জার্স আছে। সেটা খেলব। আশা করি তার আগে মহিলা দলের একটি ক্যাম্প হবে।"

ঝুলন নিজের ভবিষ্যৎ নিয়ে মুখে কিছু না বললেও ঘনিষ্ঠ সূত্রে খবর, "বিশ্বকাপ পিছিয়ে যাওয়ার খবরে কিছুটা হতাশ হলেও বর্তমান পরিস্থিতিতে বিশ্বকাপ পিছিয়ে যাওয়ার সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানিয়েছেন ঝুলন। নিজের ভবিষ্যৎ নিয়ে তাড়াহুড়ো করতে চান না চাকদহ এক্সপ্রেস।" তাঁর ঘনিষ্ঠ মহলের আরও দাবি, "ঝুলনের যা মনের জোর, তাতে শরীর ফিট থাকলে ২০২২ সালের বিশ্বকাপ খেলে দিলেও দিতে পারেন তিনি। তবে ফিট থাকাটাই গুরুত্বপূর্ণ।" তবে বলা বাহুল্য আগামী দিনে ভারতীয় দলের শিবিরগুলো খুব গুরুত্বপূর্ণ হতে চলেছে ঝুলনের কাছে। বর্তমান পরিস্থিতিতে ঘরোয়া ক্রিকেট কবে শুরু হবে এখনই কেউ বলতে পারছেন না। ভারতের মাটিতে আন্তর্জাতিক সিরিজ কবে শুরু হবে সেটাও এখনই বলা মুশকিল।

এ দিকে, আগামী বছর শুরুতে অস্ট্রেলিয়া সফরে যাবে ভারতীয় মহিলা দল। আপাতত ঝুলন চ্যালেঞ্জার্স এবং অনুশীলনে ফেরা নিয়ে ভাবনা চিন্তা করতে চান। ঝুলনের তাৎপর্যপূর্ণ মন্তব্য, "ক্রিকেট যতদিন উপভোগ করব, ততদিনই খেলব।"

ERON ROY BURMAN

Published by: Shubhagata Dey
First published: August 9, 2020, 12:31 AM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर