Home /News /sports /
Football News: শুধু ফুটবল খেলাতেই নয়, দাপুটে মেয়েরা এখন রেফারি হওয়ার স্বপ্নে বুঁদ

Football News: শুধু ফুটবল খেলাতেই নয়, দাপুটে মেয়েরা এখন রেফারি হওয়ার স্বপ্নে বুঁদ

Jalpaiguri News: Girls are taking training for referee in hope to get FIFA recognistion - Photo- Representative Jalpaiguri News: Girls are taking training for referee in hope to get FIFA recognistion - Photo- Representative

Jalpaiguri News: Girls are taking training for referee in hope to get FIFA recognistion - Photo- Representative Jalpaiguri News: Girls are taking training for referee in hope to get FIFA recognistion - Photo- Representative

রেফারি হবার কৌশল থেকে খেলার সব ক'টি বিষয়ে তারা এখন পারদর্শী হয়ে উঠেছে বলে প্রশিক্ষকরা জানিয়েছেন।

  • Share this:

    #জলপাইগুড়ি:  কেবল ছেলেরাই কেন  শুনতে খানিক অবাক লাগলেও মেয়েরাও ভালো রেফারি হয়ে উঠতে পারে যদি সঠিক সুযোগ দেওয়া যায়। এ বিশ্বাসকে সাথে নিয়েই সামনে এগিয়ে চলছে প্রিয়া টোপ্পো, বর্ণালী রায়। চোখে স্বপ্ন একদিন তারা ফিফায় খেলাবে। আর এই স্বপ্নকে বাস্তবায়িত করতেই তারা ভোর রাত থেকে লড়াই শুরু করছে। কেউ আসছে ঘুঘুডাঙা থেকে,  কেউ হলদিবাড়ি কেউ বা অন্য কোনো দূরের গ্রাম থেকে।

    জীবনে ভালো মহিলা রেফারি হতে চায় চা বাগান থেকে  শুরু করে  প্রত্যন্ত গ্রামাঞ্চলের থেকে জলপাইগুড়ির মাঠে ফুটবলের রেফারির প্রশিক্ষণ নিতে আসা এই মেয়েরা। কারো বয়স ১৭ কারো ১৫।   প্রিয়া টপপু ,বর্ণালী রায় ,রুবী কর্মকারের মত ছাত্রীরা এখন রোজ জলপাইগুড়ির যে ওয়াই সি  সি আই মাঠে ডি এস এর সহযোগীতায় রেফারি হবার ট্রেনিং নিতে আসছে।

    আরও পড়ুন - Viral Video: সজোরে থাপ্পড় ছেলের গালে, বাবা-র হাতে ‘এভাবে’ মার খাওয়ার ভিডিও পোস্ট শিখর ধাওয়ানের

    তাদের  উৎসাহ উদ্দীপনা দেখে অবাক প্রশিক্ষকরাও।  কারও বাড়ি চা বাগানে আবার কারো বাড়ি জলপাইগুড়ি থেকে ২৫- ৩০ কিলোমিটার দূরে। রেফারি হবার কৌশল থেকে খেলার সব ক'টি বিষয়ে তারা এখন পারদর্শী হয়ে উঠেছে বলে প্রশিক্ষকরা জানিয়েছেন। রোজ মাঠে এসে নিয়মিত ভাবে ফুটবলের রেফারি টেনিং নিচ্ছে তারা। শিখছেন ডিসিশন মেকিং, ফ্ল্যাগ বাশির ব্যবহার সহ অনান্য সব রেফারির আদব কায়দা।

    এ প্রসঙ্গে প্রশিক্ষক ভোলা দাস বলেন, মেয়েরা বিভিন্ন দূর দূরান্ত থেকে আসছে খুবই ভালো তাদের উৎসাহ। একদিন তারা অনেক দূর এগিয়ে যাবে এটাই আমাদের আশা।  অপর এক প্রশিক্ষক সুমন বনিক বলেন, মেয়েরা রেফারি হয়েছে এমন খুব কমই শোনা যায়। এরা দারুন উৎসাহী রেফারি হতে। তাই একবার ডাকাতেই দূর দূরান্ত থেকে এসেছে তারা। আরো অনেকে আসতে চায়।  গ্রাম থেকে শহরে আসা এক ছাত্রী জানান, গ্রামে এই সুযোগ পাওয়া অসম্ভব। তাই খুব ভালো লাগছে। অনেক ধন্যবাদ জানাব প্রশিক্ষকদের।

    Geetasree Mukherjee

    Published by:Debalina Datta
    First published:

    Tags: Football

    পরবর্তী খবর