Irfan Pathan: ধর্মীয় গোঁড়ামির অভিযোগ! স্বামী ইরফানের হয়ে এবার মুখ খুললেন সাফা

ইরফান পাঠান দাবি করেন, তিনি তাঁর স্ত্রীর সঙ্গী, মালিক নন।

ইরফান পাঠান দাবি করেন, তিনি তাঁর স্ত্রীর সঙ্গী, মালিক নন।

  • Share this:

    #ভদোদরা:

    স্ত্রীর সঙ্গে এর আগেও তিনি একাধিক ফটো সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করেছেন। কিন্তু এই ছবিটি নিয়ে যেন বিতর্ক ও সমালোচনা একটু বাড়াবাড়ি পর্যায়ে চলে গিয়েছে। ভারতীয় দলের প্রাক্তন ক্রিকেটার ইরফান পাঠানের বিরুদ্ধে অনেকেই ধর্মীয় গোঁড়ামির অভিযোগ তুলেছিলেন। স্ত্রী ও পুত্রের সঙ্গে একখানা ছবি দিয়ে ট্রোলড হন তিনি। কী এমন ছিল সেই ছবিতে! আসলে সেই ছবিটি তোলা হয়েছিল ক্রিকেট মাঠে। ইরফান পাঠানের কাঁধের ওপর ছিল তাঁর ছেলে। পাশে দাঁড়িয়েছিলেন পাঠানের স্ত্রী সাফা। তবে সাফার মুখে মাস্ক ছিল না। তিনি সেই মাস্ক নিজের হাতে রেখেছিলেন। ছবি পোস্ট করা হয় পাঠানের ছেলের প্রোফাইল থেকে। কিন্তু সেই ছবিতে সাফার মুখে ফটোশপ করে একটি মাস্ক এঁকে দেওয়া হয়। যা নিয়ে বিতর্কে সূত্রপাত।

    স্ত্রীর মুখ তিনি সোশ্যাল মিডিয়ায় খোলাখুলি দেখাবেন না। তাই স্ত্রী সাফার মুখে নকল মাস্ক এঁকে দিয়েছেন। ইরফান পাঠান আসলে ধর্মীয় গোঁড়ামিকে প্রশ্রয় দেন। এমনই অভিযোগ তুলেছিলেন অনেকে। ইরফান অবশ্য বলেছিলেন, ওই ছবি তাঁর স্ত্রী ছেলে ইমরানের প্রোফাইল থেকে শেয়ার করেছিলেন। সাপা স্বেচ্ছায় ছবিতে নিজের মুখে নকল মাস্ক দিয়ে ঢেকে দিয়েছিলেন। এতে তাঁর কোনও ভূমিকা ছিল না। ইরফান পাঠান আরো দাবি করেন, তিনি তাঁর স্ত্রীর সঙ্গী, মালিক নন। তবে এর পরও বিতর্ক ও সমালোচনা থেমে থাকেনি ।অনেকেই ইরফানের এই দাবি বিশ্বাস করছিলেন না। শেষ পর্যন্ত পাঠানের স্ত্রী সফা এবার মুখ খুললেন।

    সাফা বলেছেন, ''আমি আমার ছেলে ইমরানের ইনস্টাগ্রাম একাউন্ট বানিয়ে দিয়েছি। আমি ওর প্রোফাইল থেকে অনেক ছবি পোস্ট করি। যাতে ও বড় হলে সেইসব ছবিগুলো দেখে। ওই সব ছবিগুলো ওর কাছে স্মৃতি হয়ে থাকবে। আমি ওই একাউন্ট দেখাশোনা করি। আমি নিজেই সেদিন ওই ছবিটি ফটোশপ করে নিজের মুখ ঢেকে দিয়েছিলাম। সেটা করেছিলাম নিজের ইচ্ছাতেই। আমার সিদ্ধান্তে ইরফানের কোনও দখলদারি ছিল না। আমি বুঝতে পারিনি, আমাদের পরিবারের এই সাধারণ ছবি নিয়ে এত বিতর্ক হবে। আমি আত্মকেন্দ্রিক। আমি কখনওই অন্যের কাছে আকর্ষণের কেন্দ্রবিন্দু হওয়া পছন্দ করি না।''

    ২০১৪ সালে সাফার সঙ্গে ইরফানের দুবাইতে দেখা হয়েছিল। এর পর ২০১৬ সালে তাঁদের বিয়ে হয়। সাফা ও ইরফানের ছেলের নাম ইমরান। ইরফানের থেকে প্রায় দশ বছরের ছোট সাফা। তিনি সৌদি আরবে বড় হয়েছেন। মিডল ইস্ট এশিয়ার একজন নামিদামি মডেল ছিলেন তিনি। মধ্যপ্রাচ্যের অনেক নামজাদা ম্যাগাজিনের কভারে সাফার ছবি দেখা যেত। তবে ইরফানের সঙ্গে তাঁর নিকাহ্ হওয়ার পর তিনি মডেলিংকে বিদায় জানিয়েছেন।

    Published by:Suman Majumder
    First published: