• Home
  • »
  • News
  • »
  • sports
  • »
  • #IPL2019 : স্বার্থের সংঘাত ?সৌরভের পর এবার নিশানায় লক্ষ্মণ, ক্ষোভ উগড়ে দিলেন হায়দরাবাদি

#IPL2019 : স্বার্থের সংঘাত ?সৌরভের পর এবার নিশানায় লক্ষ্মণ, ক্ষোভ উগড়ে দিলেন হায়দরাবাদি

Photo- File

Photo- File

  • Share this:

    #হায়দরাবাদ :রমরম করে চলছে আইপিএলের মরশুম ৷ তার মধ্যেই বিভিন্ন তারকা ক্রিকেটারের বিরুদ্ধে উঠছে স্বার্থের সংঘাতের মারাত্মক অভিযোগ ৷ দিন কয়েক আগে প্রথম স্বার্থের সংঘাতের অভিযোগে অভিযুক্ত হয়েছিলেন সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায় ৷ প্রশ্ন উঠেছিল কী করে সিএসি-অংশ হওয়ার পরেও দিল্লি ক্যাপিটাল্স দলের মেন্টর ৷ এই নিয়ে বোর্ডের অম্বুডসম্যান ডিকে  জৈনের কাছে হাজিরাও দিয়েছিলেন তিনি ৷ জানিয়ে দিয়েছিলেন প্রয়োজন হলে সিওএ-র পদ ছেড়ে দিতে তিনি রাজি ৷ সিএসি থাকলেও তার কার্যকারিতা প্রায় অথৈ জলে ৷ ২০১৭ -র পর এই কমিটি আর কখনও বৈঠক অবধি করেনি ৷

    এদিকে একইভাবে  স্বার্থের সঙ্ঘাতের অভিযোগ উঠেছে সচিন তেন্ডুলকার ও ভিভিএস লক্ষ্মণের বিরুদ্ধেও। তাঁরা ক্রিকেট অ্যাডভাইজারি কমিটির (‌সিএসি)‌ সদস্য। আবার  সচিন আইপিএলে মুম্বই ইন্ডিয়ান্স ও লক্ষ্মণ  সানরাইজার্স হায়দরাবাদের মেন্টরও। এই দ্বৈত ভূমিকার কারণেই এঁরাও রয়েছেন স্বার্থের সঙ্ঘাতের আওতায় ৷ এই বিষয়ে  অভিযোগ করেন মধ্যপ্রদেশ ক্রিকেট সংস্থার সদস্য সঞ্জীব গুপ্তা। এরপরেই দুই ক্রিকেটারকে  নিজেদের মত জানাতে বলেছিলেন ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের অম্বুডসম্যান, অবসরপ্রাপ্ত বিচারপতি ডি কে জৈন। তাঁর বিরুদ্ধে ওঠা স্বার্থের সঙ্ঘাতের অভিযোগ উড়িয়ে দিয়েছিলেন সচিন  এবার মুখের ওপর জবাব দিলেন লক্ষ্মণও। অম্বুডসম্যানকে লেখা চিঠিতে তিনি রীতিমতো ক্ষোভ উগরে দিয়েছেন কমিটি অফ অ্যাডমিনিস্ট্রেটর্সের (সিওএ)‌ বিরুদ্ধে।

    Photo- BCCI/IPL Photo- BCCI/IPL

    আরও পড়ুন - নায়িকার বক্ষদেশে আঁচল নাকি সরু ফিতে! নিন্দার ঝড়, ভিডিও দেখেই বুঝুন

     চিঠিতে তিনি লিখেছেন, ‘‌২০১৮–র ৭ ডিসেম্বর আমরা চিঠি লিখেছিলাম কমিটি অফ অ্যাডমিনিস্ট্রেটর্সকে। আমাদের ভূমিকা কী হবে, দায়িত্ব কী, তা স্পষ্ট করে জানাতে। আজ পর্যন্ত সেই চিঠির জবাব আসেনি। তাছাড়া ২০১৫–তে আমাদের যে চিঠি দেওয়া হয়েছিল, সেখানে কোনও মেয়াদের উল্লেখ ছিল না। সিএসি–র অস্তিত্ব আছে কি নেই, সেই বিষয়েও কোনওরকম যোগাযোগ করা হয়নি।’‌

    লক্ষ্মণ এও প্রশ্ন তুলেছেন যেভাবে সিএসিকে নিষ্ক্রিয় করে রাখা হয়েছে তাতে আদৌ সিএসি–র অস্তিত্ব আছে কিনা সেটা নিয়েই সন্দেহ প্রচুর ৷ তিনি আরও বলেছেন ,  ‌যতক্ষণ না সিএসি সদস্য হিসেবে আমার কী কাজ, বুঝিয়ে দেওয়া হচ্ছে, ততক্ষণ আমার বিরুদ্ধে স্বার্থের সঙ্ঘাতের অভিযোগ আনা ভিত্তিহীন।’‌

    আরও দেখুন

    First published: