ফের করোনার থাবা ক্রিকেটে, পিছোল ভারত-অস্ট্রেলিয়া ওয়ানডে সিরিজ

ফের করোনার থাবা ক্রিকেটে, পিছোল ভারত-অস্ট্রেলিয়া ওয়ানডে সিরিজ

ফের করোনার থাবা ক্রিকেটে, পিছোল ভারত-অস্ট্রেলিয়া ওয়ানডে সিরিজ

ইন্দো-অস্ট্রেলিয়া সিরিজের তিনটি ম্যাচ হওয়ার কথা ছিল ক্যানবেরা (২২ জানুয়ারি), মেলবোর্ন (২৫ জানুয়ারি), হোবার্ট (২৮ জানুয়ারি)৷ গতবার পঞ্চাশ ও কুড়ি ওভারের বিশ্বকাপে রানার্স হওয়া ইন্ডিয়া শেষবার মাঠে নেমেছিল গত ৮ মার্চ৷

  • Share this:

    #সিডনি: ফের করোনার থাবা ক্রিকেটে৷ পিছোল ভারত বনাম অস্ট্রেলিয়া মহিলা দলের তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজ৷ জানুয়ারির শেষের দিকে মেগ ল্যানিংদের দেশে মিতালি রাজদের পঞ্চাশ ওভারের ফর্ম্যাটে মুখোমুখি হওয়ার কথা ছিল৷ কিন্তু সিডনিতে করোনা সংক্রমণ বাড়ায় সিরিজ অনির্দিষ্ট কালের জন্য পিছিয়ে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিল ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া (সিএ)৷ মনে করা হচ্ছে ২০২২ সালের আগে কোনও ভাবেই এই সিরিজ হওয়া সম্ভব নয়৷ করোনার জন্য অস্ট্রেলিয়ার বেশ কিছু জায়গায় ভ্রমণ নিয়ন্ত্রিত৷ আন্তর্জাতিক যাত্রীদের ১৪ দিনের কোয়ারেন্টিনে থাকতে হবে৷

    ইন্দো-অস্ট্রেলিয়া সিরিজের তিনটি ম্যাচ হওয়ার কথা ছিল ক্যানবেরা (২২ জানুয়ারি), মেলবোর্ন (২৫ জানুয়ারি), হোবার্ট (২৮ জানুয়ারি)৷ গতবার পঞ্চাশ ও কুড়ি ওভারের বিশ্বকাপে রানার্স হওয়া ইন্ডিয়া শেষবার মাঠে নেমেছিল গত ৮ মার্চ৷ অস্ট্রেলিয়াতেই টি-২০ বিশ্বকাপের ফাইনাল খেলেছিল হরমনপ্রীত কউররা৷ কিন্তু তারপর থেকে আর মাঠে নাম হয়নি ভারতের মহিলা ব্রিগেডের৷ অস্ট্রেলিয়ার মাটিতে সিরিজ পিছিয়ে যাওয়ায় ১০ মাস ক্রিকেটের বাইরে থাকতে হচ্ছে টিম ইন্ডিয়াকে৷

    গতবছর টি-২০ বিশ্বকাপের ফাইনালে অস্ট্রেলিয়া ৮৫ রানে হারিয়েছিল ভারতকে৷ মেলবোর্নে ৮৫ হাজার দর্শক সেই ম্যাচ দেখেছিলেন৷ অস্ট্রেলিয়ায় মহিলাদের কোনও স্পোর্টসে সেটাই ছিল সবচেয়ে বেশি দর্শক আসার রেকর্ড৷ সিএ-র অন্তর্বর্তী সিইও নিক হকলি বলছেন, "আমরা আগামী মরশুমে অস্ট্রেলিয়া এবং ভারতীয় মহিলা দলের মধ্যে একটি সময়সূচী বার করব৷ আমরা এ ব্যাপারে আশাবাদী৷ দুই দেশের ক্রিকেট ফ্যানেদের জন্যই যা দুর্দান্ত হবে৷ আমরা শুরুতে চেয়েছিলাম ইন্ডিয়া এই গ্রীষ্মে আমাদের এখানে খেলুক৷ কিন্তু বিশ্বব্যপী মহামারী জন্য পরের মরশুম পর্যন্ত পিছিয়ে দিতে হল৷"

    Published by:Subhapam Saha
    First published:

    লেটেস্ট খবর