ভারতকে জিততে হলে রোহিত এবং শুভমানকে লম্বা ইনিংস খেলতে হবে বলছেন গাভাসকার

ভারতকে জিততে হলে রোহিত এবং শুভমানকে লম্বা ইনিংস খেলতে হবে বলছেন গাভাসকার

photo/twitter

ওপেনিং পার্টনারশিপ জোরদার হওয়া দরকার। রোহিত এবং গিল দু'জনকেই প্রথম এক ঘন্টা দেখে খেলতে হবে।

  • Share this:

    #ব্রিসবেন: এই মুহূর্তে একটি চ্যানেলের হয়ে কমেন্ট্রি করতে মেলবোর্নে রয়েছেন সুনীল গাভাসকার। মন দিয়ে দেখছেন ব্রিসবেন টেস্ট। ভারতের প্রথম ইনিংসে সেট হয়ে যাওয়ার পর রোহিত শর্মা যেভাবে তুলে মারতে গিয়ে উইকেট দিয়ে এসেছিলেন তার প্রবল সমালোচনা করেছিলেন গাভাসকার। চতুর্থ দিনে অস্ট্রেলিয়া অল আউট হওয়ার পর ভারত ব্যাট করতে নামলে স্কোরবোর্ডে মাত্র চার রান ওঠার সময় বৃষ্টি নামল। কিছুক্ষণ অপেক্ষা করে এদিনের মত খেলা বন্ধ জানিয়ে দিলেন আম্পায়ার। প্রায় তেইশ ওভার খেলা বাকি ছিল এদিন। কিন্তু মূল প্রশ্ন হল ভারত কী এই ম্যাচ জিততে পারবে? নাকি ঝুঁকি না নিয়ে ড্রয়ের খেলা খেলবে তাঁরা?

    সানি জানাচ্ছেন,"ভারতকে জিততে গেলে করতে হবে ৩২৮ রান। আজকের যে সময়টা খেলা হল না সেটা কাল যোগ করা হবে। সব ঠিক আছে। কিন্তু পিচ চতুর্থ দিনে ব্যাটসম্যানদের ঝামেলায় ফেলতে পারে। কখনও কখনও বল নীচু হয়ে আসছে। ঠিক মাঝখানে একটা ফাটল রয়েছে যেখানে বল পড়লে ব্যাটসম্যানদের কিছু করার থাকে না। খারাপ বলেও ব্যাটসম্যান আউট হয়ে যায়। তাই আমার মনে হয় ওপেনিং পার্টনারশিপ জোরদার হওয়া দরকার। রোহিত এবং গিল দু'জনকেই প্রথম এক ঘন্টা দেখে খেলতে হবে। এঁদের দু'জনকেই রান করার পাশাপাশি লম্বা ইনিংস খেলতে হবে। একশোর ওপর পার্টনারশিপ করতে পারলে বাকিরা খোলা মনে ব্যাট করতে পারবে"।

    ভারতের হাতে ঋষভ পন্থ, রাহানের মত ব্যাটসম্যান আছে যাঁরা রান করতে পারে দ্রুত। ওয়াশিংটন এবং শার্দুল ব্যাট হাতে প্রথম ইনিংসে নিজেদের প্রমাণ করেছে। চেতেশ্বর পূজারা একটা দিক ধরে রাখতে পারলে, ভারত জয়ের জন্য ঝাঁপাতে পারে। সানি বলেন,"ওপেনিং পার্টনারশিপ একটা ভিত তৈরি করে দিতে পারলে পন্থ, সুন্দর, ঠাকুর এঁরা চালিয়ে খেলার ক্ষমতা রাখে। সিডনিতে পন্থ দুর্দান্ত একটা ইনিংস খেলে প্রমাণ করেছিল। তাই বলা কঠিন পঞ্চম দিন সকালে ভারতীয় দল কী টার্গেট নিয়ে আসবে। কিন্তু রেজাল্ট যাই হোক, আমি মনে করি এই সিরিজে আমাদের ছেলেরা যে চরিত্র দেখিয়েছে , চোট-আঘাত সমস্যা উপেক্ষা করে যে লড়াই দিয়েছে তা তারিফ করার মত"।

    প্রথম ইনিংসে ব্যাপক সমালোচনার পর রোহিত শর্মা জানিয়েছিলেন ওই শট মেরে তিনি অনুতপ্ত নন। ওটাই তাঁর খেলার ধরণ। নিজের স্বাভাবিক শট খেলা থেকে নিজেকে গুটিয়ে রাখবেন না। পাশাপাশি তরুণ গিল ভাল শুরু করেও উইকেট দিয়ে আসছেন। অফ স্টাম্পের বাইরের বল খেলার সময় কিছুটা সমস্যা হচ্ছে তাঁর। পরিসংখ্যান বলছে এই মাঠে আজ থেকে সত্তর বছর আগে ২৩৬ রান তাড়া করে জিতেছিল কোনও সফরকারী দল। সেটাই সর্বোচ্চ। তারপর অন্য কোন দল এর চেয়ে বেশি রান তাড়া করে জিততে পারেনি। তাই ভারতের কাজটা নিঃসন্দেহে কঠিন। কিন্তু মহান অনিশ্চয়তার খেলায় অসম্ভব বলে কিছু হয় না। বৃষ্টি যদি বাধ না সাধে, আর ওপেনিং পার্টনারশিপ যদি ঠিকঠাক হয়, তাহলে অস্ট্রেলিয়ার দুর্গ বলে পরিচিত গাব্বাতেও তেরঙ্গা উড়তে পারে।

    Published by:Rohan Chowdhury
    First published:

    লেটেস্ট খবর