• Home
  • »
  • News
  • »
  • sports
  • »
  • INDIA LOST TO NEW ZEALAND IN WORLD TEST CHAMPIONSHIP FINAL IN SOUTHAMPTON SMJ

WTC Final Ind vs NZ: টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপ ফাইনালে হার ভারতের, ট্রফি নিয়ে গেল নিউ জিল্য়ান্ড

আট উইকেটে টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের ফাইনাল হারল ভারত।

আট উইকেটে টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের ফাইনাল হারল ভারত।

  • Share this:

    #সাউদাম্পটন: ব্য়াটিংয়ে ভারতীয় দলের জীর্ণ দশা সামনে এসেছিল। রোহিত, কোহলি, পুজারা, রাহানের মতো তারকারা থাকা সত্ত্বেও বড় রান গড়তে পারেনি ভারত। তারই খেসারত দিয়ে যেতে হল কোহলির দলকে। যোগ্য দল হিসাবে টেস্ট বিশ্বকাপের ট্রফি নিয়ে গেল নিউ জিল্যান্ড। তবে শুধু ব্য়াটিংয়ে নয়, ফিল্ডিংয়েও এদিন ভারতীয় দলের পারফরম্যান্স ছিল বেশ খারাপ।

    দ্বিতীয় ইনিংসে ভারতীয় দল অল আউট হয় ১৭০ রানে। নিউ জিল্যান্ডের জয়ের জন্য প্রয়োজন ছিল ১৩৯ রান। হাসতে হাসতে সেই রান করল কিউয়িরা। কেন উইলিয়ামসন ও রস টেলরের জুটি ভাঙতে পারলেন না ভারতীয় বোলাররা। তবে এই দুজনই ব্যাটসম্যানই এদিন সুযোগ দিয়েছিলেন। ক্যাচ ফেলেন ভারতীয় ফিল্ডাররা। টেলরের ক্যাচ ফেললেন বুমরা। পুজারা ফেললেন উইলিয়ামসনকে। সেট হয়ে যাওয়া দুজন ব্য়াটসম্যানের উইকেট ফেলে বড় মূল্য চোকাতে হল ভারতীয় দলকে।

    প্রথম ইনিংসে ভারতীয় দল তুলেছিল ২১৭। প্রাক্তন ক্রিকেটারদের অনেকেই বলেছিলেন, কম করে ৩০০ তুলতে না পারলে কেন উইলিয়ামসনের দলকে চাপে ফেলা মুশকিল। বাস্তবে সেটাই সত্যি হল। নিউ জিল্যান্ড জবাবে তুলেছিল ২৪৯। তবে এর পরও দ্বিতীয় ইনিংসে ভারতীয় ব্যাটসম্য়ানদের ম্যাচের প্লট ঘুরিয়ে দেওয়ার মতো সুযোগ ছিল। কিন্তু তাঁরা সেটা পারলেন না। কোহলি, পুজারা, রোহিতের মতো তারকারা দ্বিতীয় ইনিংসে চূড়ান্ত ব্যর্থ। দ্বিতীয় ইনিংসে কিছুটা লড়াই করেছিলেন পন্থ। তবে শেষ রক্ষা হল না। ভারতের ইনিংস গুটিয়ে যায় মাত্র ১৭০ রানে। নিউ জিল্য়ান্ডকে জয়ের জন্য তুলতে হত মাত্র ১৩৯ রান। হাতে ছিল ৫৩ ওভার। তাড়াহুড়ো না করে রান তুলতে থাকেন দুই ওপেনার ডেভন কনওয়ে ও টম লাথাম। তবে তাঁদের বড় ইনিংস গড়তে দেননি অশ্বিন। এর পর ক্যাপ্টেন উইলিয়ামসন ও রস টেলর নেমে উইকেটে গেঁড়ে বসেন। উইলিয়ামসনের অপরাজিত ৫২ ও টেলরের অপরাজিত ৪৭ রানের সৌজন্যে নিউ জিল্যান্ড ম্য়াচ জেতে আট উইকেটে। টেস্ট ক্রিকেটে নিজেদের সেরা হিসাবে প্রমাণ করল কিউয়িরা। বড় মঞ্চে আরও একবার জাত চেনাতে ব্যর্থ ভারতের বিশ্বসেরা ব্য়াটিং লাইন।

    Published by:Suman Majumder
    First published: