corona virus btn
corona virus btn
Loading

CWC 2019: ২৬৮ নয়, ভারতের রান হতে পারত ২৯০, তা হতে দিলেন না ধোনি, ট্যুইটারে বাকযুদ্ধে নেটিজেনরা

CWC 2019: ২৬৮ নয়, ভারতের রান হতে পারত ২৯০, তা হতে দিলেন না ধোনি, ট্যুইটারে বাকযুদ্ধে নেটিজেনরা
Photo Courtesy: BCCI
  • Share this:

#ম্যাঞ্চেস্টার: ৩৭-এও তিনি অনন্য। শাহেনশা। পাল্লা দেন হার্দিক, বিরাটদের সঙ্গে। মাহির ব্যাটেই ম্যাঞ্চেস্টারে শেষ বেলায় প্রত্যাঘাত টিম ইন্ডিয়ার। যদিও তাঁর মন্থর ব্যাটিং নিয়ে ফের প্রশ্ন উঠছেই ৷ ৬১ বলে অপরাজিত ৫৬ রান করলেও ধোনির খেলায় খুব একটা খুশি নন ফ্যানরা ৷ ট্যুইটারে তাদের অধিকাংশেরই বক্তব্য, ধোনির জন্যই এদিন ভারতের রান ২৬৮-তে পৌঁছয় ৷ আবার ধোনির জন্যই রানটা ২৯০ হয়নি ৷

তবে সমালোচকদের মুখে ছাই মাখাতে সফল ধোনি। সাইত্রিশেও শাহেনশা মাহি। সচিন হোক বা সানি। ক্রিকেটটা যে কারও থেকে কম বোঝেন না ক্যাপটেন কুল, বুঝিয়ে দিলেন আরও একবার। যে কোনও ম্যাচে প্রথম কয়েকটা বল খেলেই পিচের চরিত্র বুঝে নিতে জুড়ি নেই ধোনির। বৃহস্পতিবার ওল্ড ট্র্যাফোর্ডে যেমন। পিচে এসেই বুঝে নিতে পারেন পরিস্থিতি। ২৬৫ থেকে ২৭০ যে এই পিচে উইনিং স্কোর। সেটা বুঝেই ব্যাট করেন।

dhoni

আফগানিস্তান ম্যাচে সময়োপযোগী ২৮-র পর ক্যারিবিয়ানদের বিরুদ্ধেও ৬১ বলে ৫৬ রানের ইউটিলিটি ইনিংস। স্লো ব্যাটিং, স্লো ব্যাটিং বলে বাইশ গজ মাথায় তোলা ক্রিকেটবোদ্ধাদের চমকে দেওয়া স্ট্রাইক রেট। ভারতীয় ইনিংসে পান্ডিয়ার পরই এমএসডি-র স্ট্রাইক রেট। ৯১.৮০। বিরাট, রোহিত, রাহুলদের থেকে স্ট্রাইক রেটের ঝাঁঝে এগিয়ে সাইত্রিশের শাহেনশা।

22

আফগানিস্থান ম্যাচের যে ইনিংসের জন্য সমালোচকদের নিশানায় পড়েছিলেন মাহি, বুঝতে হবে সেই পিচে কম-বেশি ২৫০ রান উইনিং স্কোরের জন্য যথেষ্ট ছিল। উইকেট পড়তে থাকা ভারতীয় ইনিংসে ওই সময় ধোনির উইকেট পড়ে গেলে রানসংখ্যা ২২৫ পেরোতো না কিনা সন্দেহ। সেই অঙ্কেই আফগানিস্থান ম্যাচে ধীরে লয়ে ৫২ বলে ২৮ রানের ইনিংস। এবার দেখে নেওয়া যাক, বিশ্বকাপে একনজরে মাহির রানসংখ্যা ও স্ট্রাইকরেট।

২০১৯ বিশ্বকাপে ধোনি ------------------- বিপক্ষ রান বল স্ট্রাইক রেট দক্ষিণ আফ্রিকা ৩৪ রান, স্ট্রাইক রেট- ৭৩.৯১ অস্ট্রেলিয়া ২৭ রান, স্ট্রাইক রেট- ১৯২.৮৬ পাকিস্তান ০১ রান, স্ট্রাইক রেট- ৫০.০০ আফগানিস্তান ২৮ রান  স্ট্রাইক রেট- ৫৩.৮৫ ওয়েস্টইন্ডিজ ৫৬ রান, স্ট্রাইক রেট- ৯১.৮০

ক্রিকেট বুদ্ধি আর বিচক্ষণতায় সাইত্রিশেও তাই শাহেনশা মাহি। আরও দেখুন--
First published: June 27, 2019, 10:59 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर